*
গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উদ্দীপনার গান
www.milansagar.com
ছি ছি, চোখের জলে ভেজাস নে আর মাটি
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


ছি ছি,   চোখের জলে ভেজাস নে আর মাটি |
এবার   কঠিন হয়ে থাক্-না ওরে, বক্ষোদুয়ার আঁটি-----
.     জোরে       বক্ষোদুয়ার আঁটি ||
পরানটাকে গলিয়ে ফেলে   দিস নে, রে ভাই, পথে ঢেলে
.                  মিথ্যে অকাজে------
ওরে    নিয়ে তারে চলবি পারে কতই বাধা কাটি,
.    পথের         কতই বাধা কাটি ||
দেখলে ও তোর জলের ধারা    ঘরে পরে হাসবে যারা
.                  তারা চার দিকে-----
তাদের     দ্বারেই গিয়ে কান্না জুড়িস,     যায় না কি বুক ফাটি,
.        লাজে      যায় না কি বুক ফাটি ?
দিনের বেলা জগৎ-মাঝে   সবাই যখন চলছে কাজে  আপন গরবে----
.        তোরা     পথের ধারে ব্যথা নিয়ে করিস ঘাঁটাঘাঁটি-------
.                        কেবল    করিস ঘাঁটাঘাঁটি ||

.                   ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
এখন আর দেরি নয়, ধর্ গো তোরা হাতে হাতে ধর্ গো
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


.        এখন    আর দেরি নয়, ধর্ গো তোরা   হাতে হাতে ধর্ গো |
.        আজ      আপন পথে ফিরতে হবে      সামনে মিলন-স্বর্গ ||
ওরে        ওই উঠেছে শঙ্খ বেজে,     খুলল দুয়ার মন্দিরে যে----
.        লগ্ন বয়ে যায় পাছে, ভাই,   কোথায় পূজার অর্ঘ্য ?
এখন           যার যা-কিছু আছে ঘরে  সাজা পূজার থালার ‘পরে,
.        আত্মদানের উৎসধারায়   মঙ্গলঘট ভর্ গো |
আজ        নিতেও হবে, আজ  দিতেও হবে,  দেরি কেন করিস তবে----
.        বাঁচতে যদি হয় বেঁচে নে,      মর্ তে হয় তো মর্ গো ||

.                       ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
বুক বেঁধে তুই দাঁড়া দেখি
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


.  বুক বেঁধে তুই দাঁড়া দেখি,    বারে বারে হেলিস নে ভাই !
.  শুধু তুই    ভেবে ভেবেই হাতের লক্ষ্ণী   ঠেলিস নে ভাই ||
একটা কিছু করে নে ঠিক,           ভেসে ফেরা মরার অধিক----
.  বারেক এ দিক বারেক ও দিক,     এ খেলা আর খেলিস নে ভাই ||
মেলে কিনা মেলে রতন    করতে  তবু হবে যতন-----
.  না যদি হয় মনের মতন     চোখের জলটা ফেলিস নে ভাই !
ভাসাতে হয় ভাসা ভেলা,    করিস নে আর হেলাফেলা----
.  পেরিয়ে যখন যাবে বেলা    তখন আঁখি মেলিস নে ভাই ||

.                       ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
আজি এ ভারত লজ্জিত হে
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


.                আজি এ ভারত লজ্জিত হে,
.                  হীনতাপঙ্কে মজ্জিত হে ||
নাহি পৌরুষ, নাহি বিচারণা,       কঠিন তপস্যা, সত্যসাধনা-----
.     অন্তরে বাহিরে ধর্মে কর্মে সকলই ব্রহ্মবিবর্জিত হে ||
ধিক্ কৃত লাঞ্ছিত পৃথ্বী ‘পরে,       ধূলিবিলুন্ঠিত সুপ্তিভরে----
.     রুদ্র, তোমার নিদারুণ বজ্রে করো তারে সহসা তর্জিত হে ||
পর্বতে প্রান্তরে নগরে গ্রামে        জাগ্রত ভারত ব্রহ্মের নামে,
.     পুণ্যে বীর্যে অভয়ে অমৃতে হইবে পলকে সজ্জিত হে ||

.                       ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
চলো যাই, চলো যাই, চলো যাই
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


চলো যাই, চলো যাই, চলো যাই-----
.     চলো পদে পদে সত্যের ছন্দে
.        চলো দুর্জয় প্রাণের আনন্দে |
.              চলো মুক্তিপথে,
.        চলো বিঘ্নবিপদজয়ী মনোরথে
করো ছিন্ন, করো ছিন্ন, করো ছিন্ন-----
.                    স্বপ্নকুহক করো ছিন্ন |
.            থেকো না জড়িত অবরুদ্ধ
.                        জড়তার জর্জর বন্ধে |
বলো জয় বলো, জয় বলো, জয়-------
.                 মুক্তির জয় বলো ভাই ||


চলো দুর্গমদূরপথযাত্রী     চলো দিবারাত্রি,
.                করো জয়যাত্রা,
চলো বহি নির্ভয় বীর্যের বার্তা,
.        বলো জয় বলো, জয় বলো, জয়-----
.                সত্যের জয় বলো ভাই ||


দূর করো সংশয়শঙ্কার ভার,
.        যাও চলি তিমিরদিগন্তের পার |
কেন  যায় দিন হায় দুশ্চিন্তার দ্বন্দ্বে-----
.        চলো দুর্জয় প্রাণের আনন্দে |
.                চলো জ্যোতির্লোকে জাগ্রত চোখে-----


.        বলো জয় বলো, জয় বলো, জয়-------
বলো নির্মল জ্যোতির জয় বলো ভাই ||
.         হও মৃত্যুতোরণ উত্তীর্ণ,
.      যাক, যাক ভেঙে যাক যাহা জীর্ণ |
চলো   অভয় অমৃতময় লোকে, অজর অশোকে,  
.        বলো জয় বলো, জয় বলো, জয়------
.                    অমৃতের জয় বলো ভাই ||

.                       ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
শুভ কর্মপথে ধর’ নির্ভয় গান
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


শুভ        কর্মপথে ধর’ নির্ভয় গান |
সব         দুর্বল সংশয় হোক অবসান |
চির-        শক্তির নির্ঝর নিত্য ঝরে
লহ’         সে অভিষেক ললাট ‘পরে |
তব         জাগ্রত নির্মল নূতন প্রাণ
ত্যাগব্রতে নিক দীক্ষা,
বিঘ্ন হতে নিক শিক্ষা-----
নিষ্ঠুর সঙ্কট দিক সম্মান |
দুঃখই হোক তব বিত্ত মহান |
চল’ যাত্রী, চল’ দিনরাত্রি----
কর’ অমৃতলোকপথ অনুসন্ধান |
জড়তাতামস হও উত্তীর্ণ,
ক্লান্তিজাল কর’ দীর্ণ বিদীর্ণ---    
দিন-অন্তে অপরাজিত চিত্তে
মৃত্যুতরণ তীর্থে কর’ স্নান ||

.           ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
ওরে, নূতন যুগের ভোরে
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


.        ওরে,    নূতন যুগের ভোরে
দিস নে সময় কাটিয়ে বৃথা সময় বিচার করে ||
কী রবে আর কী রবে না,   কী হবে আর কী হবে না
.                    ওরে হিসাবি,
এ সংশয়ের মাঝে কি তোর ভাবনা মিশাবি ?
.        যেমন করে ঝর্ণা নামে দুর্গম পর্বতে
নির্ভাবনায় ঝাঁপ দিয়ে পড় অজানিতের পথে |
জাগবে ততই শক্তি যতই হানবে তোরে মানা,
অজানাকে বশ ক’রে তুই করবি আপন জানা |
.        চলায় চলয় বাজবে জয়ের ভেরী----
পায়ের বেগেই পথ কেটে যায়, করিস নে আর দেরি ||

.           ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
ওদের বাঁধন যতই শক্ত হবে ততই বাঁধন টুটবে
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


ওদের   বাঁধন যতই শক্ত হবে ততই বাঁধন টুটবে,
.         মোদের ততই বাঁধন টুটবে |
ওদের   যতই আঁখি রক্ত হবে মোদের আঁখি ফুটবে,
.         ততই মোদের আঁখি ফুটবে ||
আজকে যে তোর কাজ করা চাই,   স্বপ্ন দেখার সময় তো নাই----
এখন    ওরা যতই গর্জাবে, ভাই, তন্দ্রা ততই ছুটবে,
.         মোদের তন্দ্রা ততই ছুটবে ||
ওরা    ভাঙতে যতই চাবে জোরে  গড়বে ততই দ্বিগুণ করে,
ওরা    যতই রাগে মারবে রে ঘা ততই যে ঢেউ উঠবে |
তোরা   ভরসা না ছাড়িস কভু,    জেগে আছেন জগৎ-প্রভু-----
ওরা    ধর্ম যতই দলবে ততই ধুলায় ধ্বজা লুটবে,
.                ওদের      ধুলায় ধ্বজা লুটবে ||

.                    ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
বিধির বাঁধন কাটবে তুমি এমন শক্তিমান
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


.        বিধির বাঁধন কাটবে তুমি এমন শক্তিমান-----
.                তুমি কি এমনি শক্তিমান !
আমাদের ভাঙাগড়া তোমার হাতে এমন অভিমান----
.                তোমাদের এমনি অভিমান ||
.      চিরদিন টানবে পিছে, চিরদিন রাখবে নীচে----
.   এত বল নাই রে তোমার, সবে না সেই টান ||
শাসনে  যতই ঘেরো আছে বল দুর্বলেরও,
.   হও-না  যতই বড়ো আছেন ভগবান |
.      আমাদের শক্তি মেরে তোরাও বাঁচবি নে রে,
.        বোঝা তোর ভারী হলেই ডুববে তরীখান ||

.                    ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর
*
আজি বাংলা দেশের হৃদয় হতে কখন আপনি
কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
গীতবিতান, স্বদেশ পর্যায়


আজি           বাংলা দেশের হৃদয় হতে কখন আপনি
তুমি এই        অপরূপ রূপে বাহির হলে জননী!
ওগো মা,        তোমায় দেখে দেখে আঁখি না ফিরে!
তোমার         দুয়ার আজি খুলে গেছে সোনার মন্দিরে॥

ডান হাতে তোর খড়গ জ্বলে, বাঁহাত করে শঙ্কাহরণ,
দুই নয়নে স্নেহের হাসি, ললাটনেত্র আগুনবরণ।
ওগো মা,        তোমার কী মুরতি আজ দেখি রে!
তোমার         মুক্তকেশের পুঞ্জমেঘে লুকায় অশনি,
তোমার         আঁচল ঝলে আকাশতলে রৌদ্রবসনী!
ওগো মা,        তোমায় দেখে দেখে আঁখি না ফিরে!
তোমার         দুয়ার আজি খুলে গেছে সোনার মন্দিরে॥

যখন             অনাদরে চাইনি মুখে ভেবেছিলাম দুঃখিনী মা
আছে            ভাঙা ঘরে একলা পড়ে, দুখের বুঝি নাইকো সীমা।
কোথা সে তোর দরিদ্র বেশ, কোথা সে তোর মলিন হাসি---
আকাসে আজ ছড়িয়ে গেল ওই চরণের দীপ্তিরাশি!
ওগো মা,        তোমায় দেখে দেখে আঁখি না ফিরে!

আজি           দুখের রাতে সুখের স্রোতে ভাসাও ধরণী---
তোমার         অভয় বাজে হৃদয়মাঝে হৃদয়হরণী!
ওগো মা,        তোমায় দেখে দেখে আঁখি না ফিরে!
তোমার         দুয়ার আজি খুলে গেছে সোনার মন্দিরে॥

.                    ***************************     


.                                            
বীন্দ্রনাথের উদ্দীপনার গানের সূচীতে . . .    
.                                                    
রবীন্দ্রনাথের মূল সূচীর পাতায় . . .    



মিলনসাগর