কবি অমিতাভ গুপ্ত - জন্ম ৫ই সেপ্টেম্বর ১৯৪৭ (১৯ ভাদ্র ১৩৫৪ বঙ্গাব্দ), হুগলী জেলার ব্যাণ্ডেল
শহরে-এ | পিতা বীরেন্দ্র কুমার গুপ্ত | মাতা মাধবী গুপ্ত |

কবিতা লিখতে শুরু করেছিলেন খুব ছোটবেলা থেকেই | তিনি বলেন হয়তো হাতের লেখা শিখেই কবিতা
লিখতে শুরু করেছিলেন | এমন কি হাতে লেখা শুরু করার আগেও হয়তো মুখে মুখে ছন্দ মিলিয়েই কবিতার
শুরু হয়ে গিয়েছিল |

বাবার বদলীর চাকরি ছিল | তিনি সরকারের শিক্ষা বিভাগের আধিকারিকের চাকরি করতেন |   তাই
কবিকে একাধিক ইস্কুলে পড়তে হয়েছিল | তাঁর মধ্যে রয়েছে বীরভূম জেলা স্কুল এবং হুগলী ব্র্যাঞ্চ স্কুল |    
এই হুগলী ব্র্যাঞ্চ স্কুল আমাদের দেশের প্রাচীনতম স্কুলের মধ্যে অন্যতম | এই স্কুলের প্রাক্তন ছাত্রদের মধ্যে
ছিলেন
বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, শরত্চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মত মনিষীরা |

কবি ১৯৬৪ সালে হাইয়ার সেকেণ্ডারি পাশ করে কলকাতার স্কটিশ চার্চ কলেজে থেকে ইংরেজীতে অনার্স
নিয়ে স্নাতক হন ১৯৬৭ সালে |  এরপর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে এম.এ. পাশ
করেন ১৯৬৯ সালে |

দমদমের কুমার আশুতোষ ইনস্টিটিউশন স্কুলে শিক্ষকতার চাকরি দিয়ে শুরু হয় কর্ম জীবন | পরে আসেন
বালিগঞ্জ গভমেন্ট স্কুলে | এম.এ. পরীক্ষার ফল বার হবার পরই তিনি বজবজ-এ একটি প্রাইভেট কলেজে
শিক্ষকতার কাজে যোগ দেন | এরপর পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষা পাশ করে সরকারী কলেজে
শিক্ষকতা শুরু করেন দুর্গাপুর গভমেন্ট কলেজে | তারপর মৌলানা আজাদ কলেজ, গোয়েঙ্কা কলেজ, হুগলী
মোহসিন কলেজ হয়ে মৌলানা কলেজ থেকে ২০০৭ সালে অবসর গ্রহণ করেন | অবসর নেবার পরেও তিনি
মৌলানা আজাদ কলেজে ইংরেজী এম.এ. এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে কমপ্যারিটিভ লিটারেচারের বাংলা
স্পেশাল পেপার পড়ান |   

তাঁর কলেজ জীবনটা ছিল বাংলার বুকে রাজনৈতিক চরম অস্থিরতার সময় | আর পাঁচজন বাঙালী যুবকের
মত তিনিও খুব বড় স্বপ্ন দেখেছিলেন | শোষণহীন সাম্য সমাজের স্বপ্ন | ৬৭ তে কংগ্রেসের সংসদীয় শাসন
শেষ হয়েছিল | একটা বিকল্প বা অল্টারনেটিভ গভমেন্ট এসেছিল |  তাকে কেন্দ্র করেও অনেকের মত
তিনিও স্বপ্ন দেখতে লাগলেন যে এবারে সুশাসন আসবে | তাঁরা, যারা নানাভাবে এ ধরণের স্বপ্নে আপ্লুত হয়ে
গিয়েছিলেন, তাঁদের স্বপ্ন দেখার সাথে সাথে  স্বপ্ন-ভঙ্গটাও তিন চার বছরের মধ্যেই হয়ে গিয়েছিল |

কবি বলেন যে তিনি খুব অল্প ছাত্র রাজনীতি করেছেন | ঐ তথাকথিত বামপন্থী রাজনীতির, কমিউনিজম এর
আকর্শনে এগিয়েছিলেন |  শেষ  দিকের  পর্যায়ে স্বভাবতই নকশালবাড়ীর রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্ট
হয়েছিলেন |  তাঁর  প্রথম  স্বপ্নভঙ্গটা ঘটেছিল সেদিন, যেদিন হঠাৎ কলকাতায় একটা তত্ত্ব এসে হাজির
হয়েছিল --- ব্যক্তিহত্যার তত্ত্ব | এই ব্যক্তিহত্যার তত্ত্ব যেদিন প্রথম আলোচিত হয় গেট-মিটিং এ, সেদিনই
তিনি, ঘোষিত ভাবে, এই রাজনীতির সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করেন |  তাঁকে বলাও হয়েছিল, "কমরেড আপনি
যদি আপনার অভিমত না পাল্টান তাহলে আর আসবেন না গেট মিটিং এ" |

আধুনিক কবিতা যে পথে এগোচ্ছিল তার সঙ্গে তিনি একমত হতে পারেন নি | প্রতিবাদ করেছেন এবং
বাংলা কবিতায় ইউরোপমুখিতা মূলত
হাংগ্রিয়ালিজম্, মডার্নিজম্ ও পোস্ট মডার্নিজম্ এর ধারার বিরুদ্ধে
এক নতুন ধারার দর্শন, যাকে বলা হয় "উত্তর আধুনিক চেতনা", সেই চিন্তাগোষ্ঠির তিনি অন্যতম পথিকৃত |
এই উত্তর আধুনিক চিন্তাধারার কবিতা হলে তা উত্তর আধুনিক কবিতা | তিনি মনে করেন, ক্ষুধা এবং
দারিদ্রের যে বাস্তবতা, সেখানে এই উত্তর আধুনিক চেতনা ব্যাপারটা রাজনীতির দিক থেকে, অর্থনীতির দিক
থেকে, শিক্ষা ব্যবস্থার দিক থেকে বোধহয় খুব বেশী দরকারী |

মিলনসাগরের সঙ্গে ২৫শে জুলাই ২০১০ তারিখে একটি সাক্ষাত্কারে তিনি এই "উত্তর আধুনিক চেতনা" নিয়ে
সরল ভাষায় ব্যাখ্যা করছেন |
সেই সাক্ষাত্কারটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন |  

তাঁর কাব্যগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে "মাতা ও মৃত্তিকা" (১৯৮৪), "মুক্তিশৃঙ্খল" (১৯৯০), "দুঃখমহূল" (১৯৯৫) প্রভৃতি |
উত্তর আধুনিক কাব্যচিন্তার পরিচয় পাওয়া যাবে "উত্তর আধুনিক চেতনার ভূমিকা" (১৯৯২),
"Moments of
Infinity"
(১৯৯১) গ্রন্থে | কবি অমিতাভ গুপ্ত, সিঙ্গুর নন্দীগ্রাম আন্দোলন চলাকালীন তাঁর কবিতায় পশ্চিমবঙ্গ
সরকারের জনবিরোধী নীতি ও নক্কারজনক কাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন | সেই সব কবিতা নানা পত্র
পত্রিকায় আন্দোলনকালেই প্রকাশিত হয়ছিল | আমাদের সাইটের
"সিঙ্গুর নন্দীগ্রামের কবিতার"  সংগ্রহেও
তাঁর কয়েকটি কবিতা সংগ্রহ করতে পেরেছিলাম | সেই সব কবিতা এবং অন্যান্য আন্দোলন ও ঘটনাবলির
প্রসঙ্গে লেখা কবিতা নিয়ে ১৪ই আগষ্ট ২০১০ তারিখে প্রকাশিত হয়েছে  "বিন্দু বিন্দু ধরিত্রী" বইটি | আমরা
কবির অনুমতি নিয়ে তার থেকে ১০টি কবিতা এখানে প্রকাশিত করলাম |


উত্স: এই পরিচিতিটি কবি অমিতাভ গুপ্তর সাথে ২৫শে জুলাই ২০১০, রবিবার, তাঁর যোধপুর পার্কের
.       বাড়ীতে, একটি সাক্ষাত্কারের পর লেখা হয়েছে | মিলনসাগরের পক্ষে সাক্ষাত্কারটি নিয়েছিলেন
.       মিলন সেনগুপ্ত এবং মানস গুপ্ত |

কবির সঙ্গে যোগাযোগ -
৭৪ এ, যোধপুর পার্ক, কলকাতা-৭০০০৬৮


কবি অমিতাভ গুপ্ত-র মূল কবিতার পাতায় যেতে এখানে ক্লিক্ করুন         


আমাদের যোগাযোগের ঠিকানা :-
srimilansengupta@yahoo.co.in       




এই পাতার প্রথম প্রকাশ - ২৮.৭.২০১২
"যুক্তিশৃঙ্খল" কাব্যগ্রন্থের ৩৪টি কবিতা নিয়ে পরিবরিধিত সংস্করণ - ২৫.১১.২০১৩
"ও" কাব্যগ্রন্থের ১৫টি এবং "বিন্দু বিন্দু ধরিত্রী" থেকে
১২টি কবিতা নিয়ে পরিবরিধিত সংস্করণ - ১৭.২.২০১৬
...
কবি অমিতাভ গুপ্ত-র সাথে উত্তর আধুনিক চেতনা নিয়ে একটি
সাক্ষাত্কারের পাতায় যেতে এখানে ক্লিক্ করুন