কবি অন্নদা সুন্দরী ঘোষের কবিতা
*
প্রেম
কবি অন্নদা সুন্দরী ঘোষ

তুষার-মুদ্রিত শুভ্র হিমাদ্রি-অচল,
কিংবা ঘনঘটাজালে মূর্তি প্রকৃতির ;
নিরূর্মি সাগরবক্ষ, ধীর অচঞ্চল,
ধ্যানমগ্ন তাপসের মূরতি গম্ভীর!
অথবা নিরুদ্ধবায় বিটপিস্তম্ভন,
উদার সে অভ্রজালে তারকা-নিকর,
শান্ত ছায়াপথ--- কবি-মানসমোহন!
প্রশান্ত চন্দ্রিমা-হাসি স্নিগ্ধ, মনোহর!
না পশে সেখানে কভু বিলাস-বাসনা।
ইন্দ্রিয় তরঙ্গোচ্ছ্বাস মথে না জীবন।
নাহি আবিলতা, নাহি স্বার্থের কামনা,
আমার একত্ব শুধু প্রাণের সাধন!
অতীন্দ্রিয়, অচপল, সংসারের সার,
অনাবিল প্রেমচ্ছবি দৃশ্য চমত্কার।

.        *************************      
.                                                                               
সূচিতে . . .   



মিলনসাগর   
*
ধুতুরা ফুলের সহিত মনোদুঃখ-কথন
কবি অন্নদা সুন্দরী ঘোষ

ধুতুরা সুন্দরী! কেন বিরসবদন?
কেন এ অরণ্য মাঝে কর গো রোদন?
বিনোদিনী। তুমিও কি কাঁদ একাকিনী?
অথবা আমার সমা চির-অনাথিনী।
করে বটে হতাদর এ মানবগণে,
শিব আগরিলা, কেন দুঃখ ভাব মনে?
যুগান্তরে মুনি যার দেখা নাহি পায়।
কেন চিন্ত ধনি! তিনি তোমার সহায়?
তব শক্তি গুণে হর, না পরে অম্বর ;
তোমাতে হইয়া মত্ত সদা দিগম্বর।
গলে অস্থি মত্ত ভোলা ভস্মমাখা অঙ্গ।
তব প্রেমে মগ্ন সদা ত্যেজে সতী-সঙ্গ।
তোমার সম্ভোগে শিব ত্যজেন কৈলাস,
তোমারে যে এরা বলে শ্মশানেতে বাস।
দেখ! রে অনাথা আমি নাহি সুখলেশ,
নাথের বিয়োগে ধরি যোগিনীর বেশ।
পতন হইয়া আছি শোক-পারাবারে,
যতন করিতে কেহ নাহি এ সংসারে।
একাকী ভবন০মাঝে করি হাহাকার,
হেনজন নাহি করে বিপদ-উদ্ধার,
যে দুঃখের জ্বালা মম হৃদয়-মাঝারে
অবলা অ-বলা, তাই বর্ণিতে না পারে।
পিতামাতা, ভাইবন্ধু ত্যজিল আমায়,
কে আছে সহায় বল, হায়! হায়! হায়!

.        *************************      
.                                                                               
সূচিতে . . .   



মিলনসাগর