কবি অসীমা দাস-এর কবিতা
যে কোন গানের উপর ক্লিক করলেই সেই গানটি আপনার সামনে চলে আসবে।
*
ঝরাফুল      
অসীমা দাস

অস্ত রবির ছায়া পথ
.                       
ক্লান্ত বিহগ থামায়ে কা
.                      
.          অদূরের পথে
.          জাগিছে চাঁদি
দূর মন্দিরে রহিয়া র
.                       
ফিরিছে মলয় মৃদু দখি
.                       
রাজ নন্দিনী চন্দ্রা ফি
.                       
কুসুমের সাজি দক্ষিণ
.                      
.                পায়ের নূপুর বাজিছে সঘনে,
.           অঞ্চল ওড়ে মৃদুল পবনে |
রূপ গরবিনী রাজার দুলালী
.                       চপল চরণে চলে  |
গৌড় অঙ্গে মাণিক মুকুতা
.                      ঝিক্ মিক্ করে জ্বলে ||
গরবিনী বালা আপন গরবে
.                      চলিয়াছে পথ ধরি |
সহসা হেরিল ভিখারিনী ‘সোনা’
.                      জীর্ণ বসন পরি ||
.           মন্দির পানে চলে অতি ধীরে,
.           ভরিয়াছে আঁখি অশ্রুর নীরে |
আপন দুঃখে চলে নত মুখে
.                      ওষ্ঠে নাহিক হাসি |
অন্তরখানি ভরেছে বিষাদে
.                      পুঞ্জিত ব্যথা রাশি ||
রাজার কুমারী কহিল সোনারে
.                      ওরে নারী ভিখারিনী |
ঝরাফুল লয়ে কেন যাও আজ
.                      পূজিতে শ্রীপদ খানি ||
.           মাটির থালায় লয়ে ফুল ডোর,
.           চলেছে পূজিতে মন্দিরে মোর |
ফিরে যাও আজ যেও নাকো হোথা
.                              লয়ে দীনহান ডালা  |
পার যদি এনো সোনার ঝাঁপিটি
.                              এতো বলি গেলো বালা ||
মৌন নীরব  ‘সোনার’  চক্ষে
.                              সহসা  নামিল ধারা |
তবু চলে ধীরে মন্থর পদে
.                              হিয়াখানি কেঁদে সারা ||
.           দীনের তারণ ওগো দয়াময়,
.           এই যদি হয় তব পরিচয়  |
পাব নাকি তবে তোমার চরণে
.                              জানাতে বাসনা মোর |
আকুল হৃদয়ে বেদনা  ঊর্মি
.                              উপছিল আঁখি লোর ||
পরদিন প্রাতে রাজার দুলালী
.                              আসি মন্দির দ্বারে |
হেরিল তাহার সোনার সাজিটি
.                             পড়ে আছে এক ধারে ||
.         পূজারীরে কয় এ কেমন ধারা ,
.         মোর পূজাখানি হল নাকো সারা |

.                              লুটাইছে ভূমে আজ |
পূজারী কহিল, আমি তো
.                              
শোনে না কুমারী কোন কথা তার
.                              শুধায় কেবলই তারে |
প্রভুর অঙ্গ উজ্জ্বল হয়েছে
.                              কার পূজা সম্ভারে ?
.        সহসা  স্মরিল কালিকার কথা,
.        বাজিল মরমে ভিখারীর ব্যথা |
কাঁদিয়া কহিল অভিমানী মেয়ে
.                             বুঝেছি প্রভুর খেলা |
আঘাত হেনেছি ভকতের বুকে
.                             তাই মোরে আবহেলা ||

.                ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
*
.                   চাঁদের কিরণ পড়িছে লুটিয়া ||
ফুলের সুবাসে অলি,                          ধায় যথা ফুল কলি,
.                   ঘোর আবেশে হইয়া বিহ্বল |
মধু পান করে তারা,                          আনন্দেতে দিশেহারা,
.                   মত্ত হইয়া অতীব চঞ্চল ||
কাননের পাখি সব,                            করিয়া মধুর রব,
.                   মাতাইল মানবের প্রাণ |
আকাশের তারার মালা,                      চাঁদে লয়ে করে খেলা,
.                   জোছনা-পরীরা করে গান ||
মধুর বসন্তে আজি,                           হাসিছে কানন রাজি,
.                   হাসিতেছে ধরণী সাজিয়া |
ঋতুরাজ আগমনে,                           তাহারই পরশনে,
.                   শোকতাপ গিয়াছে ঘুচিয়া ||

.                         ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
বসন্ত
অসীমা দাস
*
দোল     
অসীমা দাস

ফাগুণ প্রভাতে এল মাধবীর
রঙ্গীন স্বপন মাখা আবেশে
পূর্ণিমাতিথি   এল  লয়ে   ম
পলাশ পারুল দোলে আনন্দে
পথঘাট  লালে  লাল মাতাল  
ক্ষণে  ক্ষণে ফেলি  যায় দীর
সহকার  শাখা  নত  মুকুলে
চঞ্চল  সমীরণে   দোলে বারে
মুখরিত  পথে  শোন  খুসিভ
আবীর উড়ায়ে করে নানা র
লাল নাল নানা রঙে সাজিয়া
বাণীতে   জাগে  আনন্দের
কেঁপে উঠে দেহ পেয়ে রঙে
মুখে  হাসি  বুকে  রং মনখা
আশার  ঝরণা  যেন নিরাশা
ছুটে চলে দলে দলে নরনারী অনিবার,
সাগরের কলরোল জেগেছে পরাণে যার |
যারে   পায়  দেয়  রং  মানে  না মানা,
ছোট  বড়  সবাকারে  জানা  অজানা |
হাতে  রং  মনে রং  রঙে  একাকার,
ভুলি  সব  ভেদাভেদ মাতে চারিধার |
মন  ফাগে  রাঙা  করি দেহ-মন-প্রাণ,
দুঃখ   ভুলিয়া  গাও আনন্দের গান  |

.             ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
*
রবি বন্দনা     
অসীমা দাস

দিনের  সূর্য  উদিবে আবার
.                       নিশি শেষে ঊষা সাথে,
হে  যুগ  সূর্য  তোমারে প্রণাম
.                           শুভ বৈশাখী প্রাতে |
এসেছিলে  তুমি শস্য শ্যামলা
.                           বাংলার  বুকে  কবি,
ধন্য আমরা,   বঙ্গ  জননী
.                          তোমার  পরশ  লভি |
তোমার  উদয় প্রভাতে ছন্দ
.                          শত  শত  দল  মেলি,
জাগিল  কাব্য  কমলিনী  সেই
.                         ঘন  আঁধিয়ার  ঠেলি |
তোমার  কন্ঠে  শুনিল বাঙ্গালী
.                         নূতন   যুগের   গান,
জাগ্রত  হল  লুপ্ত শক্তি
মিলনসাগর  
.                         জাগিল  নুতন  প্রাণ  |
দিকে  দিকে  উড়ে বিজয় নিশান
.                         যাত্রা  হল  যে  শুরু,
ঘুচে  গেল  তার  ভীরু অপবাদ
.                         ওগো    অমৃতের গুরু ,
বাণী  মন্দিরের  শ্রেষ্ঠ পূজারী
.                         সার্থক  তব  দান,
মুছালে  অশ্রু  যতনে মায়ের
.                         রাখিলে তাহার মান |
শরৎ  প্রভাতে  চৈতি  নিশিতে
.                         ঘন  ঘোর  বরিষায়,
মিলনসাগর.কম থেকে এই,
.                         কবিতাটি কপি হয়েছে।
  

তুমি  এনে দেছ অমৃত সুধা
.                           সুখে  দুখে  নিরাশায় |        
আজি  শান্ত  ঊষায়  উৎসব মাঝে
.                            কাঁদে  হিয়া হারে বারে,
চলে   গেছ  তুমি মোদের  ছাড়িয়া
.                            তাই তো স্মরি তোমারে |
মহামানবের  মহান  আত্মা
.                            বিনাশ   হয়  না  জানি,
বিশ্বমনের  মণির  কোঠায়
.                            ছড়ানো  তোমার বাণী
পঁচিশে  বৈশাখ  ফিরে  এল  পুনঃ
.                            লয়ে  তব  মধু স্মৃতি,
ঘরে  ঘরে  তাই  বেজে উঠে শাঁখ
.                            গাহে  মঙ্গল  গীতি |
ভেদাভেদ ভুলি সবাই আজিকে
.                            হাতে হাত ধরাধরি,
অন্তর ভরি ভক্তি অর্ঘ্যে
মিলনসাগর   
.                            তোমারে প্রণাম করি |

.             ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
*
দেশ  বন্দনা     
অসীমা দাস

সোনার বাংলা গর্বের ধন
.                                
শস্য শ্যামল চির উর্বর
.                                
তব নাম লয়ে কবিগণ রচে
.                                
যুগ যুগ ধরি স্বর্ণবাহিনী
.                               
ইতিহাস বলে কল্পনা শুধু
.                                
তবু কবি কহে সোনার বাং
.                                
বাংলার ছেলে আম্রছায়ায়
.                                
তাল-হিন্তাল কুঞ্জ  ছায়ায়
.                                শাল তমালের ডালে |
তরুণ বয়সে উৎসব মাঝে
.                                নিজেরে দিয়েছে সঁপি,
জ্ঞান গরিমায় বীর্য সাহসে
.                                জগৎ উঠেছে কাঁপি |
শত পুরুষের বাস যে ভিটায়
.                               তারি  মঙ্গল লাগি,
শরতে করেছে অকাল বোধন
.                               মাতার করুণা মাগি |
যে মাটিরে লয়ে বেঁধেছে কুটির
.                               রচেছে কুঞ্জ বীথি,
সেই সে মাটিতে গড়ছে প্রতিমা
.                               গাহি আনন্দ গীতি |
সন্ধ্যা   বেলায়  রামায়ণ  হাতে
.                              দাওয়ায় ডিবাটি জ্বেলে,
   
.                                   
ধন্য আমরা এদেশে জন্মে
.                              পেয়েছি মায়ের স্মেহ,
সোনার মাটিতে পালিত হয়েছি
.                              পুণ্য  হয়েছে  দেহ |


.                    ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর