রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
মহা অষ্টমীর পূজা বিধি বিষ্ণু করে |
হেন পুজা নাই দেখি অপূর্ব নগরে ||
হেন বুঝি এই কোন্ ইন্দ্রের নগর |
পদ্মার চাহিল মুখ চঞ্চল অধর ||
হেন বেলা লাউসেন ছাড়িল হুঙ্কার |
রখভরে দেবীকে লাগিল চমত্কার ||
সচঞ্চলা ঈশ্বরী বিমানে বিচলিত |
পদ্মাকে বলেন কিছু আকার ইঙ্গিত ||
দন্ত মুষ্টি বধিল করাল মৈষাসুর |
তাহার সঙ্গের সেনা বধিল প্রচুর ||
শুম্ভ নিশুম্ভ মাইল ধুম্রলোচন |
ইহাকে অধিক বীর আছে কোন্ জন ||
বিরূপ দেখিল যদি ভবানীর কোপ |
প্রণাম করিয়া পদ্মাবতী করে লোপ ||
শুন জয়া যশোদা-নন্দিনী ত্রিলোচনা |
আশ্বিনে তোমার পূজা নাহিক ময়না ||
ময়নার হয়াছ্যে লাউসেন অবতার |
ঘরে ঘরে ধর্মপূজা হয় একাকার ||
কলিযুগে বার দন্ড পশ্চিম উদয়  |
অবতার এহা লাগি কশ্যপ-তনয়  ||
ধর্ম বিনু লাউসেন অন্য নাহি জানে |
অতেব তোমার পূজা না করে আশ্বিনে ||
বেদশাস্ত্র নাহি মানে গঙ্গা ভাগীরথী  |
একভাবে ধর্মের চরণে দড় মতি ||
নিরন্তর পূজা করে অনাদ্য গোসাঞি |
চল যাই কৈলাস বিলম্বে কার্য নাঞি ||
এত শুনি ঈশ্বরী ঈষত কম্পমান  |
পুনর্বার বলেন পদ্মার সন্নিধান  ||
আশ্বিনে পূজিল মোরে অনাদ্য ঠাকুর |
তবে কেন লাউসেন পূজা করে দূর ||
বেউশ্যার বেশ ধরি করিব গমন  |
অবশ্য ছলিব আজ লাউসেনের মন ||
তবে যদি চিনে আমা হয়্যা সাবধান |
জয়মঙ্গল অস্ত্রখানি দিয়া যাব দান  ||
যদি নাহি চিনে মোরে ধর্মের তপস্বী |
আখড়ার ঘরেতে করিব ভস্মরাশি ||
ধর্ম বলে কলি যুগে কেহ নাহি জানে |
শরত আশ্বিনে যেন পূজা নাহি মানে ||
আশ্বিনে অম্বিকা যেবা না করে অর্চনা  |
সেই মুর্খ কিবা জানে ধর্মের ভজনা ||
অবশ্য যাইব আমি আখড়ার ঘর |
দেখিব কেমন জ্ঞানী লাউসেন কুঙর ||
বলিতে বলিতে রূপ ত্রৈলোক্য-মোহিনী  |
যেইরূপে পীযুষ হরিল চক্রপাণি ||
অনাদ্যের পদরেণু ভরসা কেবল  |
দ্বিজ রূপরাম গান ধর্মের মঙ্গল ||

রূপার গিলিপে দিল সুবর্ণ চিরণি  |
নানা পরিবন্ধে কেশ আঁচড়ে আপনি  ||
আঁচড়িয়া কুন্তল করিল সমতুল |
বান্ধিল বিনোদ খোঁপা যার নাঞি মূল  ||
পরশমণি খোঁপাখানি মউর পেখম ছন্দে |
রঙ্গের বেলারঙ্গে কড়ি মদন কেনি কান্দে ||
চারিদিকে ধায় অলি বদন-সৌরভে |
পরশমালার প্রাণ গেল রূপমালার ভাবে ||
নয়নে অঞ্জন দিল কপালে সিন্দুর |
দরশনে রবির কিরণ গেল দূর  ||
তার কোলে দিল যদি চন্দনের রেখা |
প্রথম উদয় যেন কুমুদের সখা ||
কজ্জলের বিন্দু কিবা দিল তার কোলে |
নব জলধারা ছটা বিষ্ণুপদতলে ||
নানা অলঙ্কার পরে সিন্দরে মাজিয়া |
লক্ষেশ্বরী হার গলে দিলেন তুলিয়া  ||
পাশুলী বউলি পলা দোসতি তেসতি  |
রসকাঠি পরে কত তাহার সংহতি  ||
উপরে তেসতি তার করে কেয়াপাতা |
স্থির হয়্যা ঐমনি বসিলা জগন্মাতা ||




.                                                   
আখড়া পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                 
এই পাতার উপরে . . .     


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
খড়া পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
|| আখড়া পালা ||
পৃষ্ঠা