রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
দুই শিষ্য পায়ে গিয়া ধরিল অচল |
লাউসেনের পক্ষাবল সেবকবত্সল ||
একবারে নিধন করিবে লাউসেনে |
ঐমনি কাছাড় দিব ধরিয়া চরণে ||
দুই শিষ্য প্রণমি গুরুর দুই পায়  |
লাউসেন করিতে বধ হইল বিদায়  ||
দুই মল্ল একবারে রুষিল তখন |
আখড়া দক্ষিণদিগে খেলায় সরণ ||
বিচিত্র চালনি পরে পরিসর উরু |
অঙ্গে রাঙ্গা ধূলা মাখে রক্তবর্ণ গুরু ||
শূন্যভরে দুইভাই কত তন্ত্র যায়  |
দুদিকে দু বীর ধরে লাউসেনের পায়  ||
পায়ে ধরি প্রাণপণ করিল বিস্তর |
কাছাড়িতে চায় লয়্যা পর্বত উপর ||
ধরাধরি কাছাড় সারিতে লয়্যা যায়  |
গড়াগড়ি দু মালে দুদন্ড ভূমে ঠায়  ||
তুলিতে নারিল মল্ল পাইল পরাজয় |
দুহাতে দুমল্লে ধরে রঞ্জার তনয় ||
দুই মল্ল লাউসেন ধরি দুই হাথে |
ঐমনি কাছাড় দিল গুরুর সাক্ষাতে ||
দুই মল্ল তার যদি গেল যমঘরে  |
দ্বিজ রূপরাম গান বাঁকুড়ার বরে ||

দু মাল মরিল যদি আখড়ার শালে  |
লম্ফ দিয়া সারেঙ্গ আইল হেনকালে ||
শিষ্যের মরণ দেখি মরমে পাগল  |
যমদূত সদৃশ রুষিল সারেঙ্গধল ||
মনে করে এবার বধিব লাউসেনে  |
সরণে ফলঙ্গ দেই চায় চারিপানে ||
দুই গোটা চাপড়ে পাঠাব যমালয়  |
চারি শিষ্য চরণে ধরিয়া কিছু কয়  ||
একবারে লাউসেনে ধরিল চারিজন |
পর্বতে কাছাড় দিয়া বধিতে জীবন ||
দেবতা অসুর দেখি হায় হায় করে |
একবারে চারি মল্ল লাউসেনে ধরে ||
দুই মল্ল হাথে ধরে দুই মল্ল পায় |
ঐরূপে পর্বতে কাছাড় দিতে চায় ||
আকাশে তুলিতে চায় অতি পরাক্রম |
অকালে পাবক যেন কালান্তক যম  ||
মনে করে লাউসেনে তুলি শূন্যভরে |
কেহ পাএ ধরি তার প্রাণপণ করে ||
হাথে ধরি কাছাড় সারিতে কেহ লড়ে  |
দান্ডাইল লাউসেন অনন্ত অবতারে ||
চারিদিগে চারি মল্ল লাউসেন মাঝে  |
প্রভাতে পতঙ্গবর্ণ অঙ্গে ধূলা সাজে ||
প্রাণপণে পর্বতে পেলিতে সভে চায়  |
মলয় পর্বত যেন নাড়া নাহি যায়  ||
কোপে কম্পমান হৈল ময়নার রাজা |
মনে মনে তখন করিল ধর্মপূজা ||
একবারে লাউসেন মারিল কাছাড় |
ভাঙ্গিয়া মাথার খুলি চূর্ণ হৈল হাড় ||
তবে যদি চারি মল্ল গেল যমঘর |
মালসাট মারে তবে লাউসেন কুঙর ||
পরাক্রম বিশাল সঘন সিংহনাদ  |
দেবতা অসুর দেখি চিন্তিল প্রমাদ ||
ছয় শিষ্য নিধন সারেঙ্গধল দেখে  |
শশিমণি শিখরে কাঞ্চন ফণী লেখে  ||
হতাশে শুখাল্য হিয়া অঙ্গে আইল জ্বর |
বলিবারে লাগিল লাউসেন বরাবর  ||
দুই গোটা চাপড়ে বধিব আজি প্রাণ |
চারিপানে চাহে বীর পাকাল নয়ান  ||
আগু পাছু সরণ খেলায় বিপরীত |
একা মল্লবীর হৈল দশ ইন্দ্রজিত  ||
এত শুনি লাউসেন বলিল জোড়কর |
তুমি মল্লগুরু গোসাঞি সভার উপর  ||
তোমার সাক্ষাতে আমি কি বলিতে জানি |
পুনর্বার মনে কর গৌড় অবনী ||
বনিতা বালক বন্ধু দেখ গিয়া ঘরে  |
নতুবা হারাবে প্রাণ ময়না নগরে ||
যেথা সেথা কল্পনা করিলে এতকাল |
মায়ারূপে অবনী অনন্ত মায়াজাল  ||
পড়িলে আমার হাথে নাঞি পরিত্রাণ |
অবশ্য এবার তোর বধিব পরাণ ||
কহিতে বলিতে দুই মল্ল কম্পমান  |
লাউসেনের দুই পায় ধরিল নিদান  ||
এইরূপে কাছাড় দিলেক গোটা দুই |
নিধন হইল বলি অন্য ঠাঁই থুই ||
ঝলকে ঝলকে রক্ত মুখে তার উঠে |
বিশাল বিক্রম বীর বল নাহি টুটে  ||
তাড়িয়া চাপড় হানে সারেঙ্গধল-বুকে  |
অজ্ঞান হইল মল্ল লোহ উঠে মুখে  ||
ধন্য বলি বাখানিল সারেঙ্গধল মাল  |
মনে করে এবার আমাকে হৈলে কাল ||
হাথে হাথে সঘনে বাজিল কসাকসি  |
ধাত্তধাই মাথায় মাথায় ঢুসাঢুসি ||
দুজনা বসিতে চায় দুজনার বুকে |
চাকের ভাঙুরি প্রায় ঘোরে ঘন পাকে ||
ধরাধরি ঘন ঘন গড়াগড়ি যায়  |
শূন্যভরে উলটি-পালটি পুনু পায়  ||
ঝনঝনা মল্লের চরণে তুলা কুটি  |
পদভরে কাঁপি গেল ময়নার মাটি  ||
সিংহসম বিক্রম সঘনে গালাগালি  |
ভীমসেন কীচকে যেন বলাবলি  ||
শব্দ শুনি স্তব্ধ হৈল যতেক অসুর  |
আখড়া মন্দির খান নড়ে দুরদুর  ||
হেনবেলা লাউসেন ময়নার তপোবন  |
তাড়িয়া ধরিল বীর মল্লের চরণ  ||
বাম হাথে ঘরিয়া সঘনে দিল পাক  |
গগনে ঘুরায় যেন কুমারের চাক  ||
অবনীমন্ডলে দিল ঐমনি কাছাড় |
পরাণ তেজিল মল্ল চূর্ণ হৈল হাড়  ||
নিধন হৈল আজি মাল সারেঙ্গধল  |
দ্বিজ রূপরাম গান অনাদ্যমঙ্গল ||




.                                                   
মল্লবধ পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                 
এই পাতার উপরে . . .     


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
ল্লবধ পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
|| মল্লবধপালা ||
পৃষ্ঠা