রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
লাউসেন বলে তুমি রঞ্জাবতী মা |
এত শুনি বারুই বৌএর মুখে নাই রা ||
মনে দুঃখ বাড়িল মরমে লাগে ব্যথা |
বৈদেশী নাগর সঙ্গে না হইল কথা ||
নয়নী চিন্তিল মনে কি বুদ্ধি করিব |
এ হেন নাগরে মিছে অপবাদ দিব ||
কূয়ায় ফেলিব শিশু এহার লাগিয়া |
বন্দিখানা দিব আজি এ বুদ্ধি করিয়া ||
পাসরিব পুত্রশোক দেখিলে এহারে |
কোলের বালক পথে কাছাড়িয়া মারে ||
ঘাড় মুচড়িয়া শিশু পেলিল কূয়ায় |
পরিত্রাই ডাকে মাগী চারিপানে চায় ||
আস্য রে জামতির লোক পথে বল করে |
কূয়ায় পেলিল শিশু বৈদেশী নাগরে ||
কুচ্ছিত আকার মাগী ডাকে পরিত্রাই |
পথে শিশু বধিয়া পালায় দুই ভাই ||
জাতি কুল জীবন যৌবনে দাগা দিল |
জামতির লোক শুনি চৌদিগে ধাইল ||
কার হাথে অস্ত্র কার হাথে ঠেঙ্গা নড়ি |
মার মার শব্দ ধন হুঙ্কার দাবড়ি ||
বিপত্ত পড়িল বড় লাউসেন উপর |
বনে লুকাইল গিয়া কর্পূর পাতর ||
ধাত্তাধাই কর্পূর পালায় আড়ে আড়ে |
তরাসে লুকাইল গিয়া শেওড়ারঝাড়ে ||
বিদেশে বিপত্ত বড় লাউসেন উপরে |
কুন্তলে ধরিয়া কেহ পাছু ধাকা মারে ||
বাজুবন্দ সোনা নিল অঙ্গুরী বসন |
গলার গরুড়মণি নিল কোনজন ||
ঘন পড়ে ইড়িক পয়জার কিল হুড়া |
রতি মাসা হইল অঙ্গের খাসা জোড়া ||
জামতির মান্ধাতা বারুই গদাধর |
লাউসেনে বান্ধি নিল  তার বরাবর ||
ভালমন্দ কিছু নাই করিল বিচার|
বন্দী রাখ লয়্যা আজি বৈদেশী কুমার ||
বিচার করিব কালি প্রত্যুষ বিহানে |
এত শুনি বন্দীঘরে বান্ধে সমাধানে ||
হাথে দিল হাতকড়া চরণে নিয়ল |
বুকে তুল্যা দিলেক পাথর জগদ্দল ||
ডানি পাশ নাড়িতে পঞ্চম শেল ফুটে |
বাম পাশ নাড়িতে  করাতে মাংস কাটে ||
কুন্তল বান্ধিল দড় রেশমের দড়ি |
বদন উপরে দিল গরল বিষবড়ি ||
রাখিল বৈদেশী দড় বত্রিশ বন্ধনে |
হেনকালে নয়নী ভাবিল মনে মনে ||
নাগপাশে বন্দী যেন শ্রীরাম লক্ষ্মণে |
লাউসেন বন্দী হৈল বিষম বন্ধনে ||
নাগর বান্ধিয়া কান্দে গালে দিয়া  হাথ |
বড় দুঃখ মরমে কেমনে খাব ভাত ||
পুত্র মৈল কূয়ায় ভাতার যাকু বনে |
কেমনে নাগর বন্দী দেখিব নয়নে ||
মনে মনে মনকথা চিন্তিল বিস্তর |
লাউসেন দেখিতে মাগী গেল বন্দিঘর ||
ঈষত আড়ালে বস্যা বারুই-র বউ |
কল্পনা বচনে বলে মুখে মাখা মউ ||
একবার দেহ যদি আলিঙ্গনদান |
রাজাকে বলিয়া তোমার করিব ছোড়ান ||
গদাধর রাজা বটে মোর আজ্ঞাকারী |
এখনি বন্ধন তোমার খসাইতে পারি ||
লাউসেন বলে তুমি রঞ্জাবতী মা |
নিবেদিনু সমুখ ছাড়িয়া ঘর যা ||
নিরঞ্জন চরণ মরমে করি আশ |
দ্বিজ রূপরাম গান অনাদ্যের দাস ||

বন্দীঘরে কান্দেন ময়নার মহাজন |
কোথা গেলে কর্পূর মাএর প্রাণধন ||
কান্দে বালা লাউসেন কর্পূর মায়ামোহে |
পরিধান বসন ভিজিয়া গেল লোহে ||
বলে মঈষ ভল্লুক শার্দূল গন্ডাচয়|
কদাচিত কাননে কর্পূর রক্ষা হয় ||
হুতাস ভাবিয়া ভাই কোনখানে মৈল |
এত দূরে এখানে এমন গতি হৈল ||
কান্দিতে কান্দিতে করে ধর্ম সঙরণ |
এবার উদ্ধার কর দেব নিরঞ্জন ||
সঙ্কটে উদ্ধার কেবা করে তোমা বিনে |
প্রাণ যায় মায়াধর দারুণ বন্ধনে ||
ধর্ম রাখ ধর্ম রাখ বলে বারে বার |
হেন বেলা বৈকুন্ঠে জানিল করতার ||
অর্জুন সারথি হরি জানিল বিমানে |
আপনি বলেন কিছু বীর হনুমানে ||
তুমি যাহ জামতি লাউসেন রাখিবারে |
অনুচিত জীবন সংশয় কারাগারে ||
অবিলম্বে নাই গেলে হারাবে জীবন |
তোমা হেতু রক্ষা পাইল সুমিত্রানন্দন ||
জনক-নন্দিনী সীতা করিলে উদ্ধার |
দশানন তোমা হেতু সবংশে সংহার ||
যাহ তুমি জামতি বিলম্বে নাই কাজ |
পাছে মরে বন্ধনে ময়নার যুবরাজ ||
সয়াল মন্ডলে নাহি পাব পুষ্পজল |
তুমি তার আপনি হইবে পক্ষাবল ||
পান পাইল প্রসাদ পঞ্চাশ পারিজাত |
বিদায় হইল হনু ধর্মের সাক্ষাত ||
মনগতি কি জানি পবনবেগে ধায় |
একদন্ডে জামতি নগর গিয়া পায় ||
বন্দিঘরে মহাবীর দিল দরশন |
চরণে কপাট চুর করিল তখন ||
দারুণ তসলা পায় করে চুরমার |
অজ্ঞান দেখিল গিয়া লাউসেনকুমার ||
বত্রিশ বন্ধনে বড় হয়্যাছে কাতর |
দেখিয়া কুপিত হইল পবন কুঙর ||

.      ******************      
.                                                      
জামতিপালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                      
পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
জামতি পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
জামতি পালা
পৃষ্ঠা -