রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
মকরন্দ বোলে রাজা করিল আশ্বাস |
মনে লয় অবশ্য তাহার হব দাস ||
অতিশয় প্রভাতে সজাগ যদি ডাকে |
মনে চমত্কার গুরু শমনের পাকে ||
সদাই সম্বল-চিন্তা চক্ষে নাই দেখি |
গোউড় উত্কল যাত্যে মন হৈল পাখি ||
মিরাসে বিস্তর দিন মিছা দুঃখ পাই |
জ্ঞাতিবন্ধু সংহতি ময়না চল যাই ||
এত শুনি ডুমনী ডাকিল বন্ধুজন |
লাউসেন রাজার কাছে দিল দরশন ||
জোড়হাথে ডোম যত করিল জোহার |
ডুমনী রাজার পাএ করে নমস্কার ||
নয়ান ভরিয়া দেখে ময়নার রাজা |
সম্ভাষ করিল যত রমতির প্রজা ||
লাউসেন বলে শুন লখিয়া ডুমনী |
রমতি রাখিয়া চল ময়না-অবনী ||
সুধন্য দক্ষিণ রাজ্য নীলাচল কাছে |
ইহাকে অধিক সুখ আর কোথা আছে ||
বত্সর সম্বল দিব বসন-ভূষণ |
সঙ্গে নিবে জ্ঞাতি বন্ধু সহায় স্বজন ||
বিনোদ মন্দির দিব মনোহর চূড়া |
তাহার উপর দিব সুবর্ণ কুমুড়া ||
মহাজন বলি যেন সর্বকাল মানে |
ভাই বলি কালুকে বসাব সন্নিধানে ||
অপরঞ্চ ক্ষেম দিব অর্ধেক ময়না |
মকর কুন্ডলমণি কানে দিব সোনা ||
দুই হাথে শঙ্খ দিব শ্রীরাম-লক্ষ্মণ |
পান খাবে সদাই পরিবে অভরণ ||
বড় ভাউজ বলিয়া করিব উপহাস |
নতুবা মায়ের তুল্য মনে অভিলাষ ||
এই কথা শুনিঞা ডুমনী তত্ত্ব কয় |
জ্ঞাতি বন্ধু সঙ্গে যাব তোমার আলয় ||
রমতি গৌউড়ে সাত পুরুষের মাটি |
পূর্বাশর রাজার চাকর গুয়াহাটি ||
অনেক দিবস আছি ডোম তের ঘর |
ইবে তত্ত্ব নাই লয় রাজা গৌড়েশ্বর ||
চাকর রাখিতে যদি নিজ সঙ্গে নিবে |
একবার এই তত্ত্ব রাজাকে কহিবে ||
রাজনিন্দা করি কেন যাব পালাইয়া |
সংহতি আপনি লহ রাজাকে বলিয়া ||
রাজাকে বলিলে পরিণাম ভাল হয় |
লবণে জিনিলে তবে ঘরে অন্ন রয় ||
এ বোল শুনিঞা সেন হরষিত মন |
রাজার দরবারে পুন করিল গমন ||
তরুমূলে কর্পূর বসিল আনন্দিত |
লাউসেন দরবার গিয়া হৈল উপনীত ||
রাজার চরণে গিয়া করিল জোহার |
অতি সবিনয় বাণী বলে পুনর্বার ||
যদি মোরে গৌরব মানিলে গৌড়েশ্বর |
বীর কালু ভিক্ষা মাগি ডোম তের ঘর ||
অশ্ব আগে ধাইতে এমন বীর নাই |
দ্বিগুণ লবণ হৈতে বিশাল বড়াই ||
লাউসেনের বাক্য যদি শুনিল রাজন |
হাথে হাথে কালুরে করিল সমর্পণ ||
বলিতে কহিতে হৈল রমতি বিদায় |
অনাদ্য মঙ্গল দ্বিজ রূপরাম গায় ||

রমতি নগর পুন পাইল লাউসেন |
তের ডোম কালুকে ইনাম কিছু দেন ||
বিরলে কর্পূর সঙ্গে করেন যুগতি |
পঞ্চাশ মোহর দিল সভাকার প্রতি ||
বেপার করিল সভে রমতির হাটে |
বিপদ সম্পদ সুখ লিখন লল্লাটে ||
হেত্যার কিনিল সভে বস্ত্র যথোচিত |
পরিবার সঙ্গে চলে ময়না তুরিত ||
ডুমনী সকল পরে পদ্মপুরী ভুনি |
আপনি ডুমনী লখ্যা হেত্যারের ধনী ||
শাখা সুখা গোড়াইল শূকরের পাল |
কর্পূর বলেন দাদা হইল জঞ্জাল ||
ধর্মের শাসন মহী ময়নানগর |
জাতি-অনুসারে ডোম নিলেক শূকর ||
এই সব কদাচার নারিব দেখিতে |
আপনি কালুকে বল আকার ইঙ্গিতে ||
কর্পূরের কথা শুনি লাউসেন কয় |
কালুসিংহ রণজিতা শুন রণজয় ||
মষি গোরু দিব সভে শূকর বদলে |
ইথে আর নাহি কাজ লাউসেন বলে ||
এত বলি লাউসেন ঘোড়ায় রাউত |
তের দলুই সাজিল সাক্ষাত যমদূত ||
সাতবার মিরাসে করিল দন্ডবত |
ধাইল ঘোড়ার আগে দক্ষিণের পথ ||
কালচিতি ধাবড় ধাইল বাঘরায় |
শাখা সুকা বীর কালু অশ্ব আগে ধায় ||

.      ******************      

.                                                   
কাঙুরযাত্রা পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                      
পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
কাঙুরযাত্রা পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
কাঙুরযাত্রা পালা
পৃষ্ঠা -