রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
তের দলুই উত্তরিল সঙ্গে পরিজন |
লাউসেন রোজ দিল শতেক কাহন ||
অতঃপর দেখে গিয়া জনক-জননী |
প্রণাম করিল শত লোটায়্যা অবনী ||
বাহু পসারিয়া রাণী পুত্র নিল কোলে |
শত শত চুম্ব দিল বদনকমলে ||
কর্পূর করিয়া কোলে কান্দে রঞ্জাবতী |
কেমনে আছেন তোর মাসী ভানুমতী ||
কেমনে ভেটিলে বাপু মাস্বা গৌড়েশ্বর |
কোন পথে গেলে রাজ্য গোউড় নগর ||
মাতুল সহিত কিবা হইল কথন |
মহারাজা ইনাম করিল কোন ধন ||
মায়ের বচন শুনি লাউসেন কয় |
তোমার আশিসে হৈল রণে বনে জয় ||
জালান্দার গড়ে ছিল বাঘ কামদল |
জয়দূর্গা আপনি তাহার পক্ষাবল ||
সম্ভাষ করিলু তারে জালান্দার গড়ে |
পাঁচদিন যুদ্ধ হৈল শার্দূল নিয়ড়ে ||
কাছাড়িয়া বাঘটা বধিলু মহীতলে |
কুম্ভীর করিল বধ তারাদীঘির জলে ||
তারপর পাইল জামতি নিকেতন |
মব়্যাছিল প্রাণ পাইল বারুই নন্দন ||
গোলাঘাটে বেউশ্যা সুরীক্ষা বাণেশ্বর |
নোটন কাটিলু তার নাক কান কর ||
অন্য লোক রাজা ভেটে দিয়া গুয়াপান |
আমি রাজা ভেটিলু বাঘের লেজকান ||
মল্ল ডোর দিলু আর নটীর নোটন |
মিছে ঢেসা দিল মামা বধিতে বারণ ||
নিধন করিলু মাণিকরাজ হাথি |
নিশ্চয় বলিল সভে কনকসেনের নাতি ||
জোড়া ঘোড়া দিল মাস্বা অপূর্ব ভূষণ |
ময়না ইনাম দিল সহস্ত লিখন ||
পাছু ছিল কর্পূর হইল আগুয়ান |
বলিবারে লাগিল মায়ের বিদ্যমান ||
সারাদিন লাউসেন জঞ্জালে পবন |
মহাজন সজ্জন মন্দিরে নাই রন ||
বিপদ হইলে পথে নাঞি পাই লাগ |
একুই চাপড়ে আমি মারিলাঙ বাঘ ||
বারুই বৌ দেখি দাদা ভুল্যাছিল গনে |
তার পাকে বন্দী হৈল বারুই-ভবনে ||
রাজাকে বলিয়া আমি করিলু উদ্ধার |
সারথি নিশ্চয় সেই দেব করতার ||
আমা হৈতে ঘোড়া পাইল অপরঞ্চ জোড়া |
ঘরে সভে দেখিল দাদার হাথ নাড়া ||
কর্পূরের বচনে পীযুষ বরিষণ |
আপনি অনাদ্য সেই প্রভু নিরঞ্জন ||
এত শুনি পরম আনন্দ রঞ্জাবতী |
আনন্দের সীমা নাই ময়না বসতি ||
ক্ষীরখন্ডে দুইভাই করিল ভোজন |
দ্বিজ রূপরাম গান সখা নিরঞ্জন ||

একমনে শুন সভে ধর্মের কথন |
যামিনী প্রভাত হৈল তরণি-কিরণ ||
লাউসেন বসিলেন দলজ বাহিরে |
তের দলুই আশ্বাসিল কালুসিংহ বীরে ||
নিবাস করিতে দিল দিব্য বাড়ী ঘর |
অধিকার দিল নিশি রাখিতে নগর ||
ইনাম পাইয়া তবে বৈসে সর্বজন |
বসিল ব্রাহ্মণ আদি ছত্তিশ বরণ ||
নিবসিল কুলীন পন্ডিত মহাকবি |
সমস্যা জিনিঞা কেহ ধব়্যাছে পদবী ||
রমতি ভাঙ্গিয়া বৈসে ময়না নগর |
বারতা পাইল তবে রাজা গৌড়েশ্বর ||
রাজা বলে মহাপাত্র শুন মন দিয়া |
রমতির প্রজা কেন যায় পালাইয়া ||
বার মাসে তের বার মেঘে বর্ষে জল |
তবে কেন প্রজা টুটে তার কথা বল ||
মিছে ঢেসা দিয়া কার নিলে পারা ধন |
অতেব পালায় প্রজা লইয়া জীবন ||
গৌউড়ের বিঘা প্রতি এক আনা কর |
পুত্রের দ্বিগুণ প্রজা গেল দেশান্তর ||
পাত্রের কারণে প্রজা পাইল পারা দুখ |
কাগজ হিসাব দিবে আমার সমুখ ||
আজি মহাপাত্র দিবে কাগজ হিসাব |
তোমা হৈতে সঞ্চার এই প্রীতিভাব ||
এতশুনি মহাপাত্র হেঁটমাথা করে |
এহার বৃত্তান্ত শুনি ঈশ্বরী সঙরে ||
এক আনা বিঘা প্রতি দিল গৌড়শ্বর |
ষোলো আনা পূর্ণ আমি সাধিলু সত্ত্বর ||

.      ******************      

.                                                   
কাঙুরযাত্রা পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                      
পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
কাঙুরযাত্রা পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
কাঙুরযাত্রা পালা
পৃষ্ঠা -