রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
ভাগিনা বড়াই করে ভূতুলের পারা |
সঙ্গদোষে পড়্যা গেছে উত্কলের ধারা ||
লক্ষ টাকায় বিলাত বসিয়া খায় ঘরে |
গন্ডার কাটিতে আজি হেঁটমাথা করে ||
আজি কেন জামাজোড়া নাহি লয় গায় |
পানফুল নাহি নিল গড়গড়ি যায় ||
চাকর এমনি চাই এই কর্ম করে |
মনে হৈলে এখনি বান্ধিব বন্দীঘরে ||
কুলীন বলাও বেটা কুভাজন মতি |
বাজীকর খায় যেন বজ্রের সঙ্গতি ||
তাজনি করিয়া বলে সভা বিদ্যমানে |
ভদ্রকালী পূজিব ভাগিনা বলিদানে ||
ভাল হৈল রঞ্জাবতী আঁটকুড়ি ছিল |
লাউসেন হইতে বড় কলঙ্ক রহিল ||
এ ছার লোহার গন্ডার নারিল হানিতে |
রাজ্য লুট্যা খায় ঘরে বচন বলিতে ||
এত শুনি লাউসেন দরবারে পান দিল |
হানিতে লোহার গন্ডার আপনি চলিল ||
ধর্ম-সঙরণে নিল দেবীর আতর |
আছিল ধুমসী দাসী বলে জোড়কর ||
জাম্ববতী মনে যেন যশোদার ধন |
তোমা প্রতি সেই ভাব কানড়ার মন ||
রামের চরণে যেন জানকীর মতি |
ঊষার অন্তরে যেন গোবিন্দের নাতি ||
বরমাল্য বর্তমান বসন অঙ্গুরী |
তোমারে পাঠায়্যা দিল কানড়া সুন্দরী ||
দলবল দেখি যত রাজার বড়াঞি |
একজন পন্ডিত এহার মধ্যে নাঞি ||
হাথে সূতা বান্ধে রাজা পাগলের বোলে |
শঙ্কা নাঞি সমুদ্র লঙ্ঘিতে চায় শোলে ||
কিবা বর্ণ যতেক রামের গুণ ভাষে |
শিবের ধনুক সে ভাঙ্গিল অনায়াসে ||
রাধাচক্র অর্জুন বিন্ধিল এক শরে |
তার কীর্তি বর্তমান হস্তিনানগরে ||
জয়দূর্গা দিয়াছে লোহার গন্ডার |
একে চোট বিনে যেন না হয় দোসর ||
এত বলি গন্ডারে খড়ির রেখ দিল |
এখানে কাটিবে গন্ডার নিশ্চয় কহিল ||
বড় ছোট চৌদিগ দান্ডাল্য চারিপানে |
সভে বলে লাউসেন লোহার গন্ডার হানে ||
জয়দূর্গা অস্ত্র বীর নিল ডানি করে |
ভবানী বসিল সেই খড়্গের উপরে ||
লাউসেন উপলক্ষ কাটে সর্বজয়া |
সর্বকাল মনে আছে কানড়াকে দয়া ||
বীরদাপে গন্ডার হানে রঞ্জার কুঙর |
এক চোটে দুইখান সভার ভিতর ||
দুখান হইয়া ভূমে যায় গড়াগড়ি |
লাউসেনের বরণ দিল কানড়ার চেড়ী ||
আগে দিল চন্দন পশ্চাত দিল মালা |
ব্রাহ্মণের হাথে দিল বরণের ডালা ||
দরবারে রাউত বীর বর হৈল বলি |
প্রীতিভাব দেখিতে বিপক্ষ হৈল কালি ||
সভামধ্যে যদিস্যাত পাইল বরণ |
হেঁটমুখে রহিল সকল ভূঞাগণ ||
অনুকল্প মনে কার মুখে নাঞি রা |
কেহবা হেদিতে ভাষে কার কাঁপে গা ||
কেহ কানাকানি করে ঈঙ্গিত আকার |
তসরের রেণু হইল রাজার দরবার ||
পাছু ছিল মহাপাত্র আগুয়ান হয় |
ভাগিনাকে গর্জিয়া দরবারে কিছু কয় ||
বরমাল্য দরবারে পরিলি কোন লাজে |
কোন কর্ম করিলি আস্যাছ কোন্ কাজে ||
কানড়া করিতে বিভা রাজার গমন |
কাহার বচনে তুঞি পরিলি বরণ ||
মাস্বা তোর ভূপতি কানড়া তোর মাসী |
মালা পর সভামধ্যে ত্রাস নাহি বাসি ||
ধিক যাকু লাউসেন তোমার জীবন |
আমার ভাগিনা হয়্যা করিলি এমন ||
এত বলি বরমাল্য গলা হৈতে নিল |
মহাপাত্র আপনি রাজার গলে দিল ||
জোড়হাথে বলিল রাজার দরবার |
দ্বিজ রূপরাম গান ধর্ম সখা যার ||

পাত্র বলে তখন রাজার বরাবর |
লাউসেনের কার্য দেখ দরবার ভিতর ||
কাটা গন্ডার হানিয়া পরিল বরমালা |
এত অহঙ্কার ধরে লাউসেন বালা ||
চাকর কুক্কুর বেটা এতদূর মতি |
হেন ছার চাকরে তোমার নাঞি গতি ||       
কোন কর্ম করিব এমন ছলা করে |
কুম্ভেতে ভাসিয়া গেল সমুদ্রের নীরে ||
রাজা পাত্র হানিয়াছি লোহার গন্ডার |
বরমাল্য পরে বেটা রাজার দরবার ||    
তবে যদি এই গন্ডার করে চারিখান |
বীরপনা বুঝিব সভার বিদ্যমান ||
মাতুল গঞ্জিল যদি বলে লাউসেন |
গন্ডার উপরে গন্ডার তুল্যা কেহ দেন ||
নিবেদিল এই কথা রঞ্জার কুঙর |
দুহাতে ধরিল দড় গৌড়ের পাতর ||
গন্ডার উপরে গন্ডার তুলিবারে চায় |
সুমেরু পর্বত যেন নাড়া নাঞি যায় ||
গোবর্ধন গিরি হৈল কিবা হিমাল |
তুলিতে নারিল পাত্র মানে পরাজয় ||
ডোমের নন্দন কালু কিছু নাই বলে |
বাঁ হাতে গন্ডার তোলে ধনুকের হুলে ||
গন্ডার উপরে গন্ডার রাখে মহাবীর |
মনে হৈল বিন্ধিব ধনুকে জুড়ি তীর ||
রাম রাম বলিয়া ধনুকে জুড়ে শর |
প্রজাপতি পবন কাঁপিল পুরন্দর ||
ধনুকে পাটন জুড়ি বলে মার মার |
লোহার গন্ডারখানি হয়্যা গেল ফার ||
ধন্য ধন্য কালুকে বলিল সর্বজন |
দ্বিগুণ গন্ডার সে হানিল তখন ||
চারিখান হয়্যা গন্ডা যায় গড়াগড়ি |
শকট উপরে তুলে কানড়ার চেড়ী ||
প্রণাম করিয়া কহে লাউসেনের পায় |
কানড়ার দাসী আজি মাগিল বিদায় ||

.      ******************      

.                                                 
কানড়াবিভা পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                      
পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
কানড়াবিভা পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
কানড়াবিভা পালা
পৃষ্ঠা -