রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
বল বাঁট্যা নিব ঘোড়া ঘুড়ির উপর |
তার কথা কহিব তেমার বরাবর ||       
আমি যদি হারিব কানড়া বিদ্যমানে |
বিভা করি এখনি যাইব নিকেতনে ||
কানড়া হারিলে বিভা করিব রাজন |
তোমার সমুখে দড় করি এই পণ ||
এত শুনি ভবানী ভাবেন মনে মন |
হেনবেলা আইল নারদ তপোধন ||
মামী বলি মহামুনি তাঁরে প্রণমিল |
প্রসন্ন বদনে দেবী আশিস করিল ||
ভবানী বলেন বাপু হরিভক্তি হগু |
সর্বকাল বিষ্ণুর চরণে মতি রগু ||
আশীর্বাদ করি দেবী বলে ধীরে ধীরে |
কানড়ার বিভা দিয়া চল্যা যাহ ঘরে ||
প্রাণনাথ ডাক দিয়া আনিবে তুরিত |
বিভা দিবে কানড়ার তুমি পুরোহিত ||
বিমানে চড়িয়া মুনি করিল গমন |
কৈলাসে শিবের কাছে দিল দরশন ||
প্রণাম করিয়া বলে শিবের নিয়ড় |
শুভ কর বিভা দিতে সিমুল্যার গড় ||
কানড়া করিব বিভা ময়নার রায় |
তুমি শুভ করিলে অরিষ্ট দূরে যায় ||
বিনয় বচন মামী বলিল বিস্তর |
লাউসেনের বিভা হৈলে মামী আইসে ঘর ||
এত শুনি শঙ্কর সিমুল্যায় দরশন |
পার্বতী সমুখে শিব রহিলা তখন ||
প্রণাম করিয়া দেবী বলে জোড়কর |
লাউসেন কানড়া বিভা দিবে প্রাণেশ্বর ||
বলযুদ্ধে কানড়া কুমারী যেন জিনে |
তবে বিভা কানড়া করিব লাউসেনে ||
শঙ্কর বলেন গৌরী শুন মন দিয়া |
লাউসেনের তত্ত্ব বলি বিরলে বসিয়া ||
ত্রিভুবনে কেবা আছে লাউসেনে জিনে |
তবে যদি এক দন্ড ছাড়ে নিরঞ্জনে ||
কদাচিত কানড়ার বিভা দিতে পারি |
তোমারে সেবিল যদি কানড়া কুমারী ||
নারদ পাঠায়্যা দেহ ধর্মের সাক্ষাত |
একদন্ড তেজিবেন ময়নার নাথ ||
এত শুনি ভবানী নারদ পানে চান |
তুমি চল আপনি ধর্মের বিদ্যমান ||
মহাকাব্য আপনি করিবে উচ্চারণ |
লাউসেনে কানড়া করিবে সমর্পণ ||
এত শুনি নারদ করিল দন্ডবত |
চলিল বৈকুন্ঠ মুখে মূর্তিমান রথ ||
মনোগতি ধর্মের সাক্ষাতে দেখা দিল |
সমুখে নারদ মুনি বলিতে লাগিল ||
পূর্ণপূজা আপনি পাইবে বারমতি |
কলিযুগ কারণে জীবের হৈল গতি ||
ঈশ্বরী পাঠায়্যা দিল এহার কারণ |
এক দন্ড লাউসেন ছাড়িবে নিরঞ্জন ||
তবে তার বিভা হয় সিমুল্যার গড়ে |
পাঠাইয়া দিল শিব তোমার নিয়ড়ে ||
নিবেদিল বিশেষ নারদ তপোধন |
এক দন্ড লাউসেনে ছাড়িল নিরঞ্জন ||
অকালে হরিল যেন অর্জুন শকতি |
পরিণাম পরিপূর্ণ পূজার পদ্ধতি ||
পুনর্বার নারদ সিমুল্যা দরশন |
জোড়হাতে দেবীর চরণে নিবেদন ||
হাসিতে হাসিতে বলে হেমন্তের ঝি |
বল বাঁট লাউসেন বিলম্বে কাজ কি ||
ঘোড়া ঘুড়ির উপরে চড়িল দুইজন |
লাউসেনে কোলে করি বৈসে ত্রিলোচন ||
কানড়া করিয়া কোলে বসিলা ভবানী |
দুজনে বিভাগ বল করে টানাটানি ||
দুহাতে লাউসেন টানে প্রাণপণ করি |
কানড়া করিয়া কোলে আছেন ঈশ্বরী ||
সুমেরু পর্বত যেন নাড়া নাহি যায় |
পরাজয় পাইল গুরু ময়নার রায় ||
মহীলতা সদৃশ হইল মহীপতি |
নাড়িতে নারিল দড় কানড়া রাউতি ||
হেঁটমুখে লাউসেন দক্ষিণ হস্ত দিল |
কানড়া কুমারী কন্যা দুহাতে ধরিল ||
প্রাণপণে টানে কন্যা কানড়া কুমারী |
ঘুড়ির উপর লবে ময়না অধিকারী ||
লাউসেন তুলিয়া পাছু দিল শূলপাণি |
কানড়া বলিয়া সুখে টানেন ভবানী ||
আনন্দে ভাসিল রামা মকরন্দ বোলে |
লাউসেন পড়িল আসি কানড়ার কোলে ||
জয় জয় ঘোর শব্দ হৈল আচম্বিতে |
বিভা দিল ভবানী নারদ পুরোহিত ||
ঘুড়ির উপর বরে নাড়িল ছামনি |
জয় জয় জয়দূর্গা দিলেন আপনি ||
শুভক্ষণে শঙ্কর করেন কন্যাদান |
কুশহস্তে বেদবাণী নারদ পড়ান ||
শঙ্কর মাধব দিলা মনুহর নীলা |
অরুন্ধতী সঙরণে বান্ধিল গাঁঠেলা ||
ভবানী যৌতুক দিল মাণিক অঙ্গুরী |
হাথে হাথে সঁপি দিল কানড়া সুন্দরী ||
কানড়ার দোষ রায় মনে নাই নিবে |
অলঙ্কার পরিপূর্ণ কানড়ারে দিবে ||
অপূর্ব বসন রায় দিবে পরিধান |
বেদপাঠে আশিস করিল বিদ্যমান ||
বর কন্যা বৈসে গিয়া বিনোদ বাসরে |
ঈশ্বরীর মায়া হৈল সিমুল্যা ভিতরে ||
আচম্বিতে সিমুল্যায় সুধা বরিষণ |
অভিষেক করে যেন দেঘব়্যা ব্রাহ্মণ ||
হাথি ঘোড়া সংগ্রাম করিয়া যত মৈল |
সর্বলোক সিমুলের প্রাণদান পাইল ||
জোড়া শিঙ্গাসারে কালু বলে ধর ধর |
লাউসেন যাত্রা করে ময়না নগর ||
নব লক্ষ সৈন্য গেল গোউড় ভুবনে |
পার্বতী শঙ্কর গেল কৈলাস সদনে ||
কানড়া সংহতি লাউসেন গেল ঘর |
দিবানিশি পাইল গিয়া ময়না নগর ||
কানড়া সঁপিল পুন কলিঙ্গার ঘরে |
রূপরাম গীত গান বাঁকুড়ার বরে ||
এইখানে থাকে গীত সভে বল হরি |
রথভরে ধর্মরাজ চল স্বর্গপুরী ||
ব্রাহ্মণ সকলে ধর্ম করিবে কল্যাণ |
আশাপূর্ণ আপনি করিবে ভগবান ||
কালিদাসে ধর্মরাজ রাখিবে কল্যাণে |
এই বর মাগি আমি তোমা বিদ্যমানে ||

.      ******************      

|| কানড়াবিভা পালা সমাপ্ত ||

.                                                              এই পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
কানড়াবিভা পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
কানড়াবিভা পালা
পৃষ্ঠা -