রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
গড়াগড়ি যায় মুন্ড হনুমান ধরে |
বৈকুন্ঠের পথে বীর পায় ভর করে |
বামদিগে কৈলাস সমুখে সুরধুনী ||
ধয়্যাছে বৈকুন্ঠপানে প্রসন্ন সরণি ||
দুহাতে ধব়্যাছে মুন্ড অনেক যতনে |
বৈকুন্ঠে রাখিল মুন্ড কৃষ্ণের চরণে ||
মুক্ত হৈল ইছাই জগতে জয় জয় |
সমরে গোয়ালা বীর পড়িল নিশ্চয় ||
রণ জিন্যা বসিল দুর্লভ সদাগর |
জোড়াশিঙ্গাসারে কালু বলে ধরধর  ||
ঢেকুর হইল জয় বলে সর্বজন |
পুনরপি ঢেকুর ভবানী দরশন  ||
কান্দেন করুণামই ভক্ত করি কোলে |
পুত্র মৈলে জননী ব্যাকুল যেন বুলে ||
নাএক পাইয়া ধর্ম করিবে কল্যাণ |
অনাদ্যমঙ্গল দ্বিজ রূপরাম গান ||
আপনার মাথা খায়্যা নারদে তাড়িল |
ইছা যেন বরপুত্র রণে হারাইল ||
আশি মহিষ কাটিতে শতেক ছাগল |
রুধিরে অবনী যেন সাক্ষাত কমল ||
ইছাইর মুন্ড যদি এইবার পাই |
ব্রহ্মার উপরে রাজা করিব ইছাই ||
কাটা কন্ধ শ্যামরূপা কোলেতে করিয়া |
আপন দেউল মাঝে রাখে লুকাইয়া ||
কাটা মুন্ড খুঁজে ঢেকুরের সাত গড় |
লোটায় কুন্তল ভার অঙ্গের কাপড় ||
নয়ান যুগল হৈল আষাঢ় শ্রাবণ |
খুঁজিল অজয়া নদী দুকুল কানন ||
কাশী কাঞ্চি খুঁজিল গোকুল হরিদ্বার |
লঙ্কায় খুঁজিল মুন্ড সমুদ্রের পার ||
সপ্ত সিন্ধু নেহারিল অবতার হৈয়া |
চালিল সৈন্ধব বালি চালনি লইয়া ||
তথাপি না পাল্য মুন্ড গনেশজননী |
হস্তিনা বিরাট বুলে পশ্চিম ধরণী ||
কোথা গেলে ইছা বাপু চক্ষে নাহি দেখি |
আছাড় খাইয়া পড়ে তুলে পদ্মা সখী ||
আর কোন দেশে ইছাইর মুন্ড পাব |
গয়া গঙ্গা খুঁজিলাঙ আর কোথা যাব ||
মোহ নাহি আমার কার্তিক গজাননে |
বরপুত্র ইছাই সদাই পড়ে মনে ||
ধর্মের মায়া মো কহনে নাঞি যায় |
রূপরাম ফকির আসরে গীত গায় ||

ইছাইর শোকে দেবী হইয়া ব্যাকুল |
জবার সামান হৈল লোচন রাতুল ||
বলিতে না পারে কেহ প্রবোধ বচন |
পদ্মাবতী হেনকালে করে নিবেদন ||
কিমর্থে তোমার মনে ইছাইর শোক |
তোমার সেবক সেই পাল্য স্বর্গলোক ||
আপনি বুঝিতে নার আপনার মায়া |
সবংশে রাবণ মৈল দূর হৈল দয়া ||
পদ্মার বচন শুনি পাইল ঢেকুর |
বিমলিন কুন্তল বসন কর্ণপুর ||
ভবানী বলেন পদ্মা শুন মোর বাণী |
ইছাইর অগ্নিকার্য করিব আপনি ||
এত বলি দরশন পূরট দেউলে |
কাটা কন্ধ অভয়া আপনি নিল কোলে ||
অজয় নদীর কুল পাল্য মহামায়া |
ভাগ্যবতী অজয়া পাইল পদছায়া ||
নির্মাণ করিল চিতা আগোর চন্দনে |
চাঁপা নাগেশ্বর কেয়া মল্লিকা রঙ্গনে ||
চন্দনের গড়্যা দিল চন্দনের কাঠ |
কস্তুরী কুসুমমাল আর বস্ত্রপাট ||
বেদপাঠে ইছাইরে করাইল স্নান |
গঙ্গাজল তুলসী কিংসুক অভিধান ||
চিতামধ্যে ইছাইরে রাখিল আপনি |
আজ্যর সহিত করে বেদমন্ত্রধ্বনি ||
মহাবাক্য উচ্চারিল হেমন্তের সুতা |
যদুকুল-জননী আপনি বহ্নিদাতা ||
নাড়িয়া ঝাড়িয়া দেবী পোড়াল্য ইছাই |
সাগরে পেলিতে অস্থি রাখিল তথাই ||
তের পিন্ড দিল তার সুসিত তর্পণ |
মনে হয় গয়াতে করিব সপিন্ডন ||
পুনরপি স্নান করে অজয়ার জলে |
কান্দিয়া দিলেন দেখা অজয়া দেউলে ||
ইছাই ঘোষের ঘর দেখি নারায়ণী |
আছাড় খাইয়া মহী পড়িল ঐমনি ||
কপাট কাঞ্চন ঢাল ইছাইর ঘর |
ছায়নি মউর পাখা হাঁড়িয়া চামর ||
ইছাই বিহনে শূন্য হৈল এই দেশ |
কেন পুত্র নাঞি মৈল কার্তিক গনেশ ||
কান্দিতে কান্দিতে দেবী চারিপানে চান |
লাউসেন সর্ব্বজয়া দেখিবারে পান ||
নয়নে দেখিল যদি ময়নার রাজা |
লাউসেন হানিতে দেবী হৈল দশভূজা ||
মোর বাক্য ব্যর্থ হৈল না যায় প্রত্যয় |
এবার এহার রক্ত খাইব নিশ্চয় ||
এত বলি লাউসেনে হানিবারে যান |
পাতাল ভুবন কাঁপে সূর্য মঘবান ||
এত বলি বাসুলি ধরিল খান্ডা ঢাল |
অবিলম্বে হানিতে ময়নার মহীপাল ||
হান হান হাঁকুনি ঝাঁকুনি অসিবর |
আগু হৈল লাউসেন জুড়ি দুই কর ||
যেই খড়্গ রাজা আখড়া মন্দিরে |
সেই অসি দিলেন ঈশ্বরী বরাবরে ||
খড়্গ দিয়া বলিল ময়নার নৃপমণি |
পূর্বকালে এই অস্ত্র দিয়াছ আপনি ||
এই অস্ত্রে হানিয়া আমার রক্ত খাও |
দেবতা সমাজে যেন মনে প্রীত পাও ||
এই অস্ত্র আখড়া মন্দিরে তুমি দিলে |
পরিণামে হাথে হাথে কানড়া সঁপিলে ||
এত শুনি আনন্দে কহিলা হৈমবতী |
আমার জামাতা তুমি কানড়ার পতি ||
ময়নার লাউসেন জানিল মরমে |
মাথায় বসন দিল জামাতা ভরমে ||
কানড়া আমার কন্যা তোরে দিল দান |
ময়না বারতা বল তাহার কল্যাণ ||
সত্যবতী কানড়া সাক্ষাত ঊষাবলি |
সমরে সাজন্ত দিল কাঞ্চনের থালি ||

.  ******************     

.                                                 
ছাইবধ পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                      
পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
ছাইবধ পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
ইছাইবধ পালা
পৃষ্ঠা -