রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
উলঙ্গ হইয়া কান্দে সূর্পণখা রাঁড়ী   |
প্রাণপণ ধরিয়া রাখিল খুদ-হাঁড়ি  ||
ধর্ম্ম বলে বর দিয়া অকার্য্য করিল  |
পুনরপি তাহারে আপনি ধন দিল  ||
সম্পদ বাড়িল পুন ধর্ম্মের কৃপায়  |
সাত ভায়্যা বর দিয়া দর্ম্ম ঠাকুর যায় ||
চাঁপাই দক্ষিণ দিকে দিল দরশন  |
ঝলমল রথখান নির্ম্মল রতন  ||
রূপরাম গীত গান অনাদ্যকিঙ্কর |
কলমে বসিয়া খেলা করে মায়াধর  ||

মনোহরে বর দিয়া ধর্ম্মের পয়ান |
চাঁপায়্যার সমুখে রহিল রথখান  ||
আপনি কিঙ্কিণী বাজে কনকরচিত |
সারি সারি সেখানে দেবতা উপনীত ||
শঙ্কর বৈরাগী আইল বৃষে আরোহণ |
গরুড়ে চাপিয়া তথা আইলা নারায়ণ ||
সহস্রলোচন দেখা দিলা ঐরাবতে |
অসুর আইলা তথা অম্বরের পথে ||
তবে আইল পবন বরুণ হুতাশন |
রবি উপনীত তথা সহস্রকিরণ||
বিদ্যাধরী সুন্দরী যতেক বিদ্যাধর |
অনাদ্য-সমুখে যত বসিল অমর  ||
এইরূপে বসিলেন সব দেবগণ  |
রাণী রঞ্জাবতী দেখি বলিলা বচন  ||
আপনি বিধাতা বলে শঙ্কর-সমুখে |
পুত্র-হেতু সুন্দরী মব়্যাছে এই দুঃখে  ||
পাঁচ মুখে বাখানে আপনি বিশ্বপতি |
পাঁচ মুখে বাখানিল ধন্য রঞ্জাবতী ||
এই সব কামনা ইত্যাদি নাহি জানে |
কেবা এই তপস্যা করিল কোন খানে ||
সাবিত্রী ইন্দ্রাণী দেবী করে হায় হায় |
বংশ হেতু কেবা কোথা এত দুঃখ পায়  ||
অরুন্ধতী কন্যা বলে অসম্ভব দেখি  |
কোন কার্যে অকালে মরিলা চন্দ্রমুখী  ||
উর্ব্বশী কমলা বলে বুকে মারি ঘা  |
পুত্রের কারণে মরে অভাগিনী মা ||
আনে বলে এই সব অনাদ্যের মায়া  |
নিদারুণ ধর্ম্মের তখন হৈল দয়া  ||
বর দিতে আপনি চলিলা নিরঞ্জন  |
পায়ে ধরি উল্লুক করেন নিবেদন ||
দেবতা হইয়া দেখা দিবে কত জনে |
অঘোর বাদল কর চাঁপাএর বনে ||
আজ্ঞা কর আপুনি দেবতা-কারিকরে |
ঘর গড়্যা রাখে যেন পদ্ধতি উপরে ||
এ সব তোমার মায়া এহা নাঞী মনে |
বিশ্বকর্ম্মা বলি ধর্ম্ম করিল স্মরণে ||
বিশ্বকর্ম্মা বলি ধর্ম্ম স্মরণ করিল  |
অমরা নগরে বিশাই অন্তরে জানিল  ||
ধাত্তাধাই বিশাই চরণে করি ভর  |
বচন বলিতে পাইল চম্পক নগর  ||
এস বাছা বিশ্বকর্ম্মা নেহ ফুল পান  |
ইতিমধ্যে মায়াঘর করহ নির্ম্মাণ  ||
অর্দ্ধপথে আপনি গড়িবে মায়াঘর  |
তথা গিয়া থাকিব সন্নাসী হরিহর  ||
এত শুনি বিশ্বকর্ম্মা নিল ফুল পান  |
রচিল বিচিত্র ঘর পুরটসন্ধান ||
ইন্দ্ররাজ বলি ধর্ম্ম স্মরণ করিল |
আসিয়া ত ইন্দ্র দরশন করিল ||
পান নেহ শুন ইন্দ্র আমার বচন |
এ মায়া-বাদল কর চম্পক-ভুবন  ||
অনুমতি পাইল যদি দেবতার রায় |
জলধর সহিত চম্পক দেশে যায় ||
বার নাঞী বাতাস নাঞী ঘন আইসে জল  |
আচম্বিতে মায়াতীর্থে এ মায়া-বাদল  ||
হুড় হুড় দুর দুর ডাকে চমত্কার |
ঘন জল বরিষে বজ্রের পারা ধার  ||
কুল কুল শব্দ গগনে বিপরীত |
পর্ব্বত কাঁপিল ঝড়ে অবনী-সহিত ||
বড় বড় গাছ তোলে মাটী হৈতে গোড়া |
শাল তাল তঁতুল সকল হৈল মুড়া ||
একা নদী হৈল সাত সহস্র সাঁতার |
তরঙ্গে তরঙ্গে গুরু সুমেরু সোসার ||
বিপর্য্যয় বন্যা আইল বন হইল নদী  |
এ সব ধর্ম্মের খেলা নাঞী জানে বিধি  ||
ধর্ম্মের গাজনে তবে দেখা দিল জল  |
ঝড়ে শীতে কম্পমান ভকিতা সকল  ||
মায়া-ঘরে লুকাইল পরাণে বিকল |
চতুর্দ্দিগে চায়্যা দেখে পরিপূর্ণ জল ||
দ্বিজবর ভঙ্গ দিলা সেতাই পন্ডিত  |
সিংহাসন জলে ভাসে ধর্ম্মের সহিত  ||
ভাসিল গণেশ-ঘট পন্ডিতের পুঁথি |
সাগর দাখিল হৈল গাম্ভারের পাটি ||
কল্যাণী মানিকী দাসী থাকে দুই পাশে |
শাল-কাঁটা সহিত সুন্দরী জলে ভাসে ||
তবে বর দিতে প্রভু করিলা গমন |
দ্বিজ রূপরাম গান দৈমন্তী-নন্দন ||

.  ******************     


|| শালেভর পালা সমাপ্ত ||

.                                                                    পাতার উপরে . . .   


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
|| শালে-ভর পালা ||
পৃষ্ঠা               
শালেভর পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .