রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গল কাব্য
কবি রূপরাম চক্রবর্তীর ধর্মমঙ্গলের পরিচিতির পাতায় . . .
রূপরামের ধর্মমঙ্গল কাব্যের সূচি
দুই করে দিল শঙ্খ শ্রীরাম লক্ষ্মণ  |
আগে কড়ে রাঙ্গা রুলি রবির কিরণ  ||
শঙ্খের উপরে বাজুবন্ধ চারি ছড়া |
নাপা করিতে চাহে দিয়া হাতানাড়া ||
নানা অলঙ্কার অঙ্গে করে ঝলমলি  |
বেণুরায়ের কন্যা রঞ্জা পরিল কাঁচলি  ||
নানাবর্ণ অবতার কাঁচলি-লিখন |
লিখিয়াছে সমুখে কালারি নিধুবন ||
চারি দিকে লিখন গোপিনীগণ নাচে |
রাধা চন্দ্রাবলী লেখা শ্রীকৃষ্ণের কাছে ||
তরুলতা বিস্তর শোভিত কুঞ্জবনে |
দানখন্ড লেখা আছে তাহার দক্ষিণে ||
সারি সারি যোগিনী মথুরাপুরে যায় |
দানের কারণে হরি আপনি রহায়  ||
কানাঞী বলেন দান দেহ গোপের ঝি |
কোথা লয়্যা যাও তুমি ঘোল দুগ্ধ ঘি ||
দান দিয়া যে কিছুর বস্য গিয়া নায় |
এত বলি দুই ভান্ড দুদ্ধ কাড়ি খায় ||
যতেক নবনী ছিল মুয়ে নিল ঢালে |
এ সব লিখন যত কাঁচলির চালে ||
তার সেইখানে লেখা পারিজাত-হরণ |
ইন্দ্রের সহিত কৃষ্ণের যবে [ হৈল ] রণ  ||
কাঁচলি উপরে লেখা নানা অবতার |
কালিয়-দমন লেখা জগতের সার ||
তার সেইখানে লেখা আছে পক্ষগণ |
সারস কোকিল কাক খঞ্জনী খঞ্জন  ||
চটকা চটকী ফিঙ্গা ডাহুক টেঠ্যারি |
কৃষ্ণবর্ণ রাউস লিখন সারি সারি ||
ধাওক ধাওকি চিল রঘু কালমুখী  |
আড়াই বুড়ি ডিম কোলে ফুকরে ডাহুকী ||
সরল করল কাক মণিময় ভাষা |
দলপিপি কাম্য ডাকে নলবনে বাসা ||
ধুনা ভারুই উড়িতে ব্যালিশ নাদ পুরে |
ধানহুলি ধানের উপরে খেলা করে ||
বাদুড় তপস্যা করে ঊর্দ্ধ দুই পায়া |
মউর পেখম ধরে পেয়্যা মেঘ-রায়া ||
পায়রা ঘুঘু লিখা আছে বুড়ি ছয় |
রায়মনি শালকী ভারথ-কথা কয় ||
এমন কাঁচলিখানি হাসিয়া পরিল |
রঞ্জাবতী বলে ভাল বেশ হয়্যা গেল ||
বাছিয়া বসন পরে নাম গুয়াগুটি |
বাইশ গজ বসন বাঁ হাতে লয় মুঠি ||
নাসের উপরে বেশ তায় দিল চুয়া |
নাপান করিয়া খাইল গোটা দশ গুয়া ||
চরণে নূপুর দিল অঙ্গে সুধাকর |
শয়ন করিতে রামা যায় বাসঘর ||
চরণে চরণে যান রঞ্জা চন্দ্রমুখী  |
পাছু গোড়াইল দাসী কল্যাণী-মানিকী  ||
পানের বাটা জলের ঝারি দু-জনের করে |
উতরিল রঞ্জবতী শয়নমন্দিরে ||
তবে যদি বাসঘরে দিল দরশন |
দূরে হৈতে স্বামী দেখে যেন নারায়ণ ||
নিদ্রা যান বুড়া রাজা আপনার মনে |
পালঙ্কে হেলান দিয়া বৈসে সেইখানে ||
সন্নিধানে বসিয়া স্বামীর পানে চায়  |
নূপুরের সাড়া দেই শুন্যা নাঞী যায় ||
শিয়রে বসিয়া রামা চিন্তেন তখন |
কিবা জানি মায়া দেবনিদ্রায় অচেতন ||
কদাচিৎ নাঞী পায় সোয়ামীর সাড়া |
নেড়ে চেড়ে দেখে যেন ছয় মাসের মড়া ||
সুন্দরী শিয়রে বসি করে অনুমান |
শীতল চন্দন চূয়া ছিল সন্নিধান ||
পরিপূর্ণ গুলে দেই রাজার গায় |
দ্বিগুণ বাড়িল নিদ্রা গড়াগড়ি যায় ||
শীতল চন্দন তাহে যুবতীর হাত |
বড় ঘুমে পাগল হইল ক্ষিতিনাথ ||
মনে করে সুন্দরী এমন কেন হল্য |
হেন বুঝি বাসঘরে বুড়া রাজা মৈল ||
এত মনে চিন্তা করি স্বামীরে চিয়ান |
গা তোলো গা তোলো গোসাঞী খাও গুয়াপান ||
খাইয়া লাজের মাথা হাথে ধরি তুলে |
আকাশের পাথর পড়িলে যেন গলে ||
ঘন ঘন কঙ্কণ ঝঙ্কারে ডানি কানে |
সঘনে নূপুর সাড়া দেই ঘনে ঘনে ||
কামে হয়্যা কাতর কঠি চক্ষে চায় |
অসম্ভব মনে করে কি হবে উপায় ||
পবন-পয়ান নিশি পোহাইয়া যায় |
মিছা হৈল যে বোল বলিল ধর্ম্মরায় ||
প্রভাত হৈলে নিশা পুত্র নাকি হব |
কল্যাণী মানিকী বলে কি বুদ্ধি করিব ||
কর্ম্মসিদ্ধি নাঞী হয় উপলক্ষ বিনে |
মিছা দুঃখ পাইল গিয়া চাঁপাই ভুবনে ||
ব্যথা পাইয়া কান্দে রামা হইয়া আকুল |
আছিল লভ্যের আশা হারাইল মূল ||
এত শুনি কল্যাণী মানিকী কিছু কয় |
শুন ঠাকুরাণী সত্য বলিল নির্ভয় ||
ঘুমে হয় কাতর এসব হইল ভাটি |
পানের বোটা ছিড়ে স্বামার কানে দেও কাটি ||
পরিহাস বচন বলিল দুই দাসী  |
ধর্ম্মরাজ মনে করে রঞ্জা ত রূপসী ||
রুড়া স্বামী কোলে করি ধর্ম্ম মনে করে |
দ্বিজ রূপরাম গান বাঁকুড়া রায়ের বরে ||




.                                             
লাউসেন-জন্ম পালার পরের পৃষ্ঠায় . . .  
.                                                                 
এই পাতার উপরে . . .     


মিলনসাগর
১    বন্দনা  পালা     
.          
গনেশ বন্দনা    
.          
ধর্ম্ম বন্দনা    
.          
ঠাকুরাণী বন্দনা     
.          
চৈতন্য বন্দনা    
.          
সরস্বতী বন্দনা     
.          
বিপ্র বন্দনা      
.          
দিগ্ বন্দনা    
২   
আত্মকাহিনী    
৩   
স্থাপনা পালা    
৪    
আদ্য ঢেকু পালা    
.           
গজেন্দ্র মোক্ষণ    
৫    
রঞ্জার বিবাহপালা     
৬   
লুইচন্দ্র পালা     
৭   
শালেভর পালা    
৮   
লাউসেনের জন্মপালা      
.            
পরিশিষ্ট, জন্মপালা      
৯   
লাউসেন চুরিপালা    
১০
আখড়া পালা     
১১
ফলানির্মাণ পালা     
১২
মল্লবধ পালা      
১৩
বাঘজন্মপালা     
১৪
বাঘবধ পালা      
১৫
জামতি পালা      
১৬
গোলাহাটপালা      
১৭
হস্তিবধপালা      
১৮
কাঙুরযাত্রাপালা      
১৯
কলিঙ্গাবিভাপালা     
২০
লৌহগন্ডারপালা       
২১
কানড়াবিভাপালা      
২২
অনুমৃতাপালা     
২৩
ইছাইবধপালা     
২৪
অঘোরবাদলপালা     
২৫
জাগরণপালা     
২৬
স্বর্গারোহণপালা     
রূপরামের ধর্ম্মমঙ্গল
||   লাউসেন-জন্ম পালা ||
পৃষ্ঠা                     
লাউসেন-জন্ম পালার আগের পৃষ্ঠায় . . .