দীর্ণ ইচ্ছা কেটে গিয়ে অবিভক্ত সাগরের স্রোত
নতুন সমাজ গড়ে রক্তিম সকালে
ছিঁড়ে ফ্যালে দারিদ্রের ঘুম |

এই বেলা তবে হোক চিরকাল তুমুল বয়সে
অটুট নিরবচ্ছিন্ন চিরকাল বুকে
যে কমরেড জেগে থাকে তাঁর
অমর অমোঘ স্মৃতি শ্রেণীর আলোয় ||

.          ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষের কবিতা
*
তাই এটাও আজ স্পষ্ট
ভালোবাসা আর বিপ্লব, বিপ্লব আর ভালোবাসা---
কেউ পরস্পর বিচ্ছিন্ন নয় |
বিপ্লবের জন্যই ভালোবাসা
আর
ভালোবাসার জন্যই বিপ্লব |

.       ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
খুলে দেবে তার ভাঁড়ার |

.       ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
আমি নতুন মানুষ | নির্জনতা নয় আর, সংগ্রামী জীবন
আমার চেতনাময়, আমার বয়স
উজ্জ্বল রোদের স্বপ্নে ঘেরা |

বিকেলের ক্রমশ বিলীন রোদে তোমাকেই মনে পড়ে, তুমি
আমার কমরেড হ’লে, সমস্ত জীবন
শোষণ ছেঁড়ার জন্য লড়ায়ের মাঠে
সমর্পিত হয়ে আছে, অন্য কিছু নয় ||

.          ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
শোষকের প্রতি শাসকের প্রতি ---- সেই কাজে এক প্রাণ
শপফে কঠিন হলো তাই দিন |   জ্বলছে লাল নিশান |

অমর আলোর সঙ্গীত ভাসে আজ প্রতি ঘরে ঘরে
শোষণ ছেঁড়ার মুক্তির গান গাইছে সমস্বরে ;
বাঁচবার আলো পৌঁছে দিচ্ছে গ্রামের পর সে গ্রামে
বুকের রক্তে রাঙানো নিশানে মুক্তির দিন নামে ||

.               ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
শোষণ ছেঁড়ার যুদ্ধের দিকে মন
এরই মাঝে তুমি আমাকে ডেকেছো সুরে
তবু কেন যাবো একা ওই দূরে দূরে ||

.          ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
ক্রমান্বয়ে হৃদয়ের ঘর |

ফেলে দিই অচল বয়স.
ফেলে দিই পুরোনো দর্পণ ----
প্রথম মুক্তির দিন ভাসে
মোহহীন আকাশে-বাতাশে ||

.          ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
এখন সময় নেই পান করি অসহায় চরিত্রের মদ;
তীক্ষ্ণ বুলেটের মুখে বস্তুত এখন প্রয়োজন
শ্রেণীশত্রুনিধনের কঠিন কঠোর এক দৃঢ় সংগঠন |

.              ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কবিতা সব কবিতা
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
[ এসময়ের কবিতা নামক পত্রিকার প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সংকলনে প্রকাশিত ]

কবিতা সব কবিতা
আঙ্গুলে বাঁকানো, ঘি,
রাতের তারায় দিনের ফসল
উপমা জাগায় প্রাণ ;
বাড়তি-পড়তি বাকি সবই
শুধুই নিছক গান ||

.    ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
আমি যে সব কবিতা ভুলে গেলাম
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
[ এসময়ের কবিতা নামক পত্রিকার প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সংকলনে প্রকাশিত ]

আমি যে সব কবিতা ভুলে গেলাম
সেগুলি লেখা ছিল মনেতে
আমি সব রূপক ভুলে গেলাম---
যেগুলো ভেবেছিলাম
.          তোমার কাছে যেতে যেতে |

.    ******************     
.                                                                              
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
মাঠের ভেতর দিয়ে বিকেলের স্বাদু রোদে হেঁটে এলে তাকে
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
০৪ / ০৪ / ১৯৬৯
[ এ সময়ের কবিতা – প্রথম বর্ষ , দ্বিতীয় সঙ্কলন, ১৯৮৩ ]

মাঠের ভেতর দিয়ে বিকেলের
কৃষ্ণার উদ্দেশে কয়েকটি ছত্র
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
১৫ / ০৪ / ১৯৬৯, বেদেডাঙ্গা
[ সমীক্ষা – ষষ্ঠ বর্ষ, প্রথম সঙ্কলন , মে ১৯৮৩ ]

অনেকক্ষণ তোমার কাছে বসেছিলাম
রক্তের ভিতর বিক্ষোভ
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
১৫  ০৪  ১৯৬৯ , বেদেডাঙ্গা
[ সমীক্ষা-ষষ্ঠ বর্ষ, প্রথম  সঙ্কলন, মে ১৯৮৩ ]

রক্তের ভিতর বিক্ষোভ
গ্রামের মিছিল : ১লা মে
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
০২ / ০৫ / ১৯৬৯

স্লোগানে স্লোগানে ক্রুদ্ধ মিছিল উদ্বেল হলো গ্রামে
বহুদিন হলো চ’লে তো এসেছি দূরে
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
৩০ /০৫/ ১৯৬৯
      
বস্তুত এখন প্রয়োজন
কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ
[ অনুষ্টুপ – সপ্তদশ বর্ষ, বর্ষা সংখ্যা, ১৩৯০ ]

সেই হিংস্র চতুরতা ভেঙে দিয়ে চরম নির্দেশে