কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ – ছিলেন স্বাধীনতা উত্তর পশ্চিমবঙ্গের কারাগারে পুলিশের গুলিতে মৃত
প্রথম বামপন্থী কবি।

তিনি জন্মগ্রহণ করেন পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার মগরা থানার অন্তর্গত জয়পুর গ্রামে, এক অতি দরিদ্র
পরিবারে, ৭ই ডিসেম্বর ১৯৪৮ তারিখে। তারিখটি আমরা বাংলা ক্যালেণ্ডারের ২৩শে অগ্রহায়ণ ১৩৫৫
তারিখ থেকে রূপান্তরিত করেছি। তাই গ্রেগরিয়ান ক্যালেণ্ডার মতে যদি না মিলে থাকে তাহলে আমাদের
জানাবেন, এই অনুরোধ রইলো পাঠকের কাছে। পিতা অনিলচন্দ্র ঘোষ এবং মাতা উমালক্ষ্মী দেবী।

শৈশবে দ্রোণাচার্য নাকি ছিলেন খুব শান্ত প্রকৃতির। রক্ত দেখলেই নাকি ভয়ে লুকিয়ে পড়তেন। ছোট্ট বয়স
থেকেই তিনি দেখতে পান গ্রাম বাংলার গরীব মানুষের উপর জমিদার ও জোতদারের শোষণ। অত্যন্ত
মেধাবী এই ছাত্রটি মুখ গুঁজে পড়ে থাকতেন শোষণের জাঁতাকলে নিপীড়িত মানুষের কথা নিয়ে লেখা কবিতা
আর উপন্যাসের মধ্যে। সেই সময় থেকেই লিখতে শুরু করেছিলেন শাসন ও শোষণমুক্তির কবিতা। তার
কিছু “দেশ” ও “বসুমতী”-র মতো পত্রিকায় পাঠাতেনও।

কবি যখন ক্লাস সেভেন এইটে পড়েন, তখন তিনি কোলার ও শিয়ালডাঙার কয়েকজন কমিউনিস্ট বিপ্লবীর
সংস্পর্শে আসেন। তখন থেকেই পরিবর্তিত হতে শুরু করে তাঁর ভাবনা ও লেখার ধরণ। শুরু হয় দরিদ্র
গরীব মানুষের কথা লেখার পালা। সেই সময়ে স্বেচ্ছায় তিনি গ্রামের কমিউনিস্টদের দেওয়া চিরকুট এখান
থেকে ওখানে পাচার করার কাজ করে দিতেন। এই সব কাজে এত মন দিয়ে ফেলার ফলে তিনি ক্লাস নাইনে
ফেল করেন। বাবার প্রহার খাওয়ার পর বাড়ী ছাড়েন। পরে ক্ষুধার্ত অবস্থায় রেল স্টেশনে পড়ে থাকতে
দেখে এক পরিচিত ব্যক্তি তাঁকে বাড়ীতে পৌঁছে দিয়ে যান। এরপর পড়াশুনায় মনোনিবেশ করেন এবং ভাল
ফল করতে থাকেন।

তাঁর রাজনৈতিক কার্যকলাপের জন্য ধীরে ধীরে তিনি হয়ে ওঠেন জোতদার আর জমিদারদের চোখের বালি।
এই সময়ে জয়পুরের পাশের গ্রামের এক অত্যাচারী জোতদার খুন হয়ে গেলে, পুলিশ সন্দেহবশত
দ্রোণাচার্যকে গ্রেপ্তার ক'রে, মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়। চুঁচুড়া জেলে তাঁর উপরে চালানো হয় অকথ্য
অত্যাচার। ফলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। চিকিত্সার জন্য তাঁকে ভর্তি করা হয় চুঁচুড়া ইমামবাড়া সদর
হাসপাতালে। তাঁর ঘরের সামনে রাখা হয় পুলিশ প্রহরা। একদিন প্রাতঃকৃত্য করতে গিয়ে জানালা ভেঙে
দোতলা টপকে তিনি পালিয়ে গিয়ে আত্মগোপন করলেন। এভাবে বছর খানেক চলার পরে আবার ধরা
পড়লেন পুলিশের জালে। এবার তাঁর মৃত্যু হয় পুলিশের কাসটডিতেই। সরকারী তরফে বলা হয় যে জেল
পালানোর সময়ে পুলিশের গুলিতে তাঁর মৃত্যু হয়েছিল। কিন্তু আমরা জানি যে বিভিন্ন সময়ে, বহুবার,
এদেশের বহু গণতান্ত্রিক সরকার, বিরোধিদের এইভাবেই স্তব্ধ করে এসেছে। পরবর্তি কালে
বামপন্থীরা ক্ষমতা দখল করলেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। এই মৃত্যুর পর
কবি সনৎ দাশগুপ্ত লিখেছিলেন
“রক্তমাখা দ্রোণফুল পড়ে আছে ঘাতকের থাবার তলায়” কবিতাটি। কবিতাটি পড়তে কবি সনৎ দাশগুপ্তর
পাতায় যেতে
এখানে ক্লিক করুন।  

দ্রোণাচার্যর, কবিতা ছিল নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের মতো। কিছু কবিতা প্রকাশিত হয়েছিল "সমীক্ষা", "অনুষ্টুপ",
"পূর্বদেশ", "অলিন্দ, "এসময়ের কবিতা" প্রভৃতি পত্রিকায় এবং এগুলিরই দু-একটি স্থান পায় বিভিন্ন সংকলন
গ্রন্থে। কবি একক সম্পাদনায় প্রকাশ করেন “সুন্দর” এবং যুগ্ম সম্পাদনায় প্রকাশ করেন “নক্ষত্র” নামের
সাহিত্য পত্রিকাদুটিও।

১৯৮৪ সালে রতন শিকদার, ভোলানাথ দেবনাথ ও সুব্রত পালের যুগ্ম সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়েছিল “শহিদ
দ্রোণাচার্য ঘোষের কবিতা”, ইউনাইটেড কালচারাল সার্কল এর “শহীদ দ্রোণাচার্য ঘোষ পুস্তক প্রকাশন
উপসমিতি”, নবদ্বীপ, নদীয়া থেকে। এই গ্রন্থে দ্রোণাচার্যর ১৮টি কবিতা ছিল। আসানসোল থেকে প্রকাশিত
“এসময়ের কবিতা” পত্রিকার প্রথম বর্ষের দ্বিতীয় সঙ্কলনে “শহীদ দ্রোণাচার্য ঘোষের অপ্রকাশিত রচনা”
শিরোনামে প্রকাশিত হয় চারটি কবিতা। ১৯৯৮ সালের "এবং জলার্ক" পত্রিকার  জানুয়ারি-মার্চ সংখ্যায়
প্রকাশিত হয় “দ্রোণাচার্য ঘোষের এগারোটি কবিতা” শিরোনামে। এরপর "এবং জলার্ক" পত্রিকার তরফ
থেকেই ১৯৯৮ সালেই প্রকাশিত হয় কাব্যগ্রন্থ “দ্রোণাচার্য ঘোষ: কবিতাগুচ্ছ” অন্তত ষাটটি কবিতা নিয়ে। এই
সব কবিতা এবং দ্রোণাচার্য ঘোষের দিনলিপি নিয়ে ২০১৩ সালে উবুদশ প্রকাশনী থেকে, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের
সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় “গ্রন্থিত-অগ্রন্থিত কবিতা ও দিনলিপি দ্রোণাচার্য ঘোষ”।

আমরা এঁদের সবার কাছে কৃতজ্ঞ কবি দ্রোণাচার্য ঘোষের কবিতা আমাদের কাছে পৌঁছে দেবার জন্য।
আমরা মিলসাগরে এঁদের থেকেই কবি দ্রোণাচার্যর কিছু কবিতা তুলে আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে
পারলে আমাদের এই প্রয়াসকে সার্থক মনে করবো।

আমরা
মিলনসাগরে  কবি দ্রোণাচার্য ঘোষের কিছু কবিতা তুলে আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে পারলে
আমাদের এই প্রচেষ্টাকে সার্থক মনে করবো।


কবি দ্রোণাচার্য ঘোষের মূল পাতায় যেতে এখানে ক্লিক করুন


উত্স - পার্থ চট্টোপাধ্যায়, কবি দ্রোণাচার্য ঘোষ: সাতের দশকের বাংলা কবিতার প্রথম শহিদ,
.        পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সম্পাদনায়, “গ্রন্থিত-অগ্রন্থিত কবিতা ও দিনলিপি দ্রোণাচার্য ঘোষ” ২০১৩,
.        প্রকাশক উবুদশ, শ্রীগোপাল মল্লিক লেন, কলকাতা ৭০০০১২।


আমাদের ই-মেল -
srimilansengupta@yahoo.co.in     


এই পাতা প্রকাশ - ১৪.৬.২০১৪
...