এন্টনি ফিরিঙ্গির কবিগান
যে কোন কবিতার উপর ক্লিক করলেই সেই কবিতাটি আপনার সামনে চলে আসবে।
১।    আগমনী (জয়া যোগেন্দ্র-জায়া, মহামায়া মহিমা অসীম তোমার)   
২।    
সখীসংবাদ (ফিরে এস হে রাধার মান দেখে মান করে)   

৩।    
এন্টনি ফিরিঙ্গি বনাম ঠাকুর সিংহ     
৪।    
এন্টনি ফিরিঙ্গি বনাম রাম বসু       
৫।     
এন্টনি ফিরিঙ্গি বনাম ভোলা ময়রা ১   
৬।     
এন্টনি ফিরিঙ্গি বনাম ভোলা ময়রা ২      


[ একটি অনুরোধ - এই সাইট থেকে আপনার ব্লগ্ বা সাইটে, আমাদের কোন লেখা, তথ্য, কবিতা
বা তার অংশবিশেষ নিলে, আমাদের মূল পাতা
http://www.milansagar.com/index.html এ দয়া
করে একটি ফিরতি লিঙ্ক দেবেন আপনার ব্লগ্  বা সাইট থেকে, ধন্যবাদ ! ]
আগমনী (জয়া যোগেন্দ্র-জায়া, মহামায়া মহিমা অসীম তোমার)   
(উত্স - শ্রী কমলকুমার গঙ্গোপাধ্যায়, শাক্ত-পদ সাহিত্য ও শাক্ত-পদাবলী চয়ন)

জয়া যোগেন্দ্র-জায়া, মহামায়া মহিমা অসীম তোমার |
একবার দুর্গা দুর্গা দুর্গা বোলে যে ডাকে মা তোমায়,
তুমি করো তায় ভবসিন্ধু পার |
মা, তাই শুনে এই ভবের কূলে,
দুর্গা দুর্গা দুর্গা বোলে এই বিপদ কালে
ডাকি, দুর্গা কোথায় মা, দুর্গা কোথায় মা ;
তবু সন্তানের মুখ চাহিলে না মা,
আমায় দয়া কোরলে না মা,
পাষাণে প্রাণ বাঁধলি উমা, মায়ের ধর্ম এই কি মা ?
অতি কুমতি কুপুত্র বোলে,
আপনিও কুমাতা হোলে --- আমার কপালে !
তোমার জন্ম যেমনি পাষাণ-কুলে,
ধর্ম তেমনি রেখেছো |
দয়াময়ী, আজ আমায় দয়া কোরবে কি না,
কোন্ কালে বা কারে তুমি দয়া কোরেছো !
জানি তোমার চরণ সাধন করি
ব্রহ্মা হ'লেন ব্রহ্মচারী---দণ্ডধারী ;
দেখ, সকল ফেলে, ক্ষীরোদ-জলে ভাসলেন শ্রীহরি |
আবার শূণ্য কোরে সোনার কাশী, ওগো শ্য়ামা সর্বনাশী,
শিবকে কোরে শ্মশানবাসী, সন্ন্যাসী তায় সাজিয়েছো |
নাম কেবল করুণাময়ী, করুণাশূণ্য হয়েছো |
মা ! তুমি দক্ষ-রাজকুমারী, দক্ষযজ্ঞে গমন করি,
যজ্ঞেশ্বরী যজ্ঞ হেরি নয়নে ;
শিব-বিহনে, শিব-অপমানে,
          মা সেই অপমানে,
এমন সাধের যজ্ঞে ভংগ দিলি, দক্ষ রাজায় নিদয় হ'লি---
আপনি মলি, তারেও মেলি,
পিতার দুঃখ ভাবলি নে |
তখন যার অপমান শুনে কানে,
প্রাণ ত্যেজেছো বিষাদমনে---দক্ষ-ভবনে,
আবার আপনি উমা কঠিন প্রাণে
তার বুকে পা দিয়েছো |
তুমি তার', তার', না তার' না তার',
আপন গুণে তোরবো ;
দুর্গা-নাম-তরী, মস্তকেতে করি,
যতন করিয়ে রাখবো |
আমার অন্তে শমন এলে, অজপা ফুরালে,
দুর্গা দুর্গা ব'লে ডাকবো |
মা, অসাধ্য তোমার সাধন, কোরলে সাধন,
কেবল তা'র নিধন হোতে হয় |
এবার একতারা বোলে যে ডেকেছে, সেই ডুবেছে,
তারা তোমার ধারা তো মায়ের ধারা নয় |
মা, রাবণ রাজা অন্তিম-কালে, রঘুনাথের রণস্থলে,
দুর্গা বোলে ডেকেছিল বদনে ;
তবু তা'র পানে ফিরে চাইলি নে, তা'র দুঃখ ভাবলি নে,
তা'রে ধ্বংশ কোরে ভগবতী, নিদয় হ'লি ভক্তের প্রতি,
শেষকালে তা'র বংশে বাতি দিতেও কারে রাখলি নে |
আগে ছিল না তা'র কোনো শংকা,
বাজাতো জয় কালীর ডংকা---অতি তেজ ডংকা,
আবার ছল কোরে ত'র সোনার লংকা
        দগ্ধ কোরে এসেছো |
        দয়াময়ী মা গো,
কোনকালে বা কা'রে তুমি দয়া কোরেছো ;


.                      ************************                                       
সূচিতে ফেরত


মিলনসাগর
সখীসংবাদ (ফিরে এস হে রাধার মান দেখে মান করে)    
কারও কারও মতে এটি ঠাকুরদাস চক্রবর্তীর রচনা

ফিরে এস হে রাধার মান দেখে মান করে
শ্যাম আজ যেও না |
তুচ্ছ নারীর মান ক'দিন রবে,
তোমার রাই তোমার হবে,
শ্যাম হে কেবল কথাই রবে,
রাগের ভরেতে ব্রজাঙ্গনার প্রাণ বধো না |
চল হে নিকুঞ্জে মান যাবে না |
শ্যাম তুমি হে রসিক মণি,
জানি তোমায় চিন্তামণি,
গুণমণি বলি শ্যাম তোমায় তুচ্ছতায়, শ্যাম হে,
থাক বঁধু ধৈর্য ধরে পাবে তোমার শ্রীরাধারে,
কালবরণ না দেখে রাই অমনি মূর্চ্ছা যায় |
এতই চিন্তা কেন, গুণমণি শ্যাম,
নিরোদ-বরণ নীরদ-বরণ,
মানের দায়ে বংশীবদন আর কেঁদো না ||
শ্রীমতী মানের দায়ে বিদায় তুমি বল্লে এখন ||
রাধার মান দেখে তোমার প্রাণ কাতরা অধীরা হে
দুঃখে দহে জীবন ||


.                      ************************                                       
সূচিতে ফেরত


মিলনসাগর