কবি আশিস দলপতি-র কবিতা
যে কোন কবিতার উপর ক্লিক করলেই সেই কবিতাটি আপনার সামনে চলে আসবে।   www.milansagar.com
১|       লাইফ হেল  
২|      
রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম   
৩|      
সক্রেটিস ও কবি জয়          
৪|       
বিকৃত মুখ    
৫|       
আজ আমি হার্মাদ  
৬|       
চা বাগানের রক্ত   
৭|       
ঝলসানো খেত           
৮|       
বোমারু বালক     
৯|       
কোনটা স্বাধীনতা     
১০|      
শাসকের চিতা     
১১|      
লাল কেউটের ছোবল               
১২|     
পরম্পরা  
১৩|     
ঘুম নেই  
১৪|      
জননী ইটভাটা                
১৫|      
রক্তমাখা ধান          
১৬|      
অবাক হব না            
১৭|      
ফুটপাথ         
 
[ একটি অনুরোধ - এই সাইট থেকে আপনার ব্লগ্ বা সাইটে, আমাদের কোন লেখা, কবিতা বা
তার অংশবিশেষ নিলে, আমাদের মূল পাতা
http://www.milansagar.com/index.html এ দয়া
করে একটি ফিরতি লিঙ্ক দেবেন আপনার ব্লগ্  বা সাইট থেকে, ধন্যবাদ ! ]
বিভিন্ন পত্র পত্রিকা থেকে কবির কয়েকটি কবিতা এখানে
আমদের সংগ্রহে তুলে রেখেছি |
লাইফ হেল          
আশিস দলপতি

মনে হয় 'শব্দে' রা
মেঘেদের সাথী হয়
ঋতুদের মত ঘুরে ফিরে আসে |
কখনও বা বুমেরাং হয় | বিধি বাম হলে |
নন্দীগ্রামের 'লাইফ হেল'
করতে গিয়ে হয়ে গেল
বিনয় - বিমান - বুদ্ধ - লক্ষণের
তথা সিপিএমের 'লাইফ হেল' |
মনে রেখো ---
বানতলা - মরিচঝাঁপি - কেশপুর -
পাঁশকুরা - নানুর - সিঙ্গুর নয় |
মনে হয় শব্ দ'রা
মেঘের সাথী হয় |
বামফ্রন্ট এখন গলাটা বাঁচা |
দুম্বার মত অনেক চর্বি জমেছে গলায় |
তিরিশ বছর ধরে |
দেখতে পাচ্ছিস - ফাঁসির দড়ি ঝুলছে
ময়দানের ওই প্রবীণ ডালে |
ময়দানের বৃদ্ধ গাছগুলো পর্যন্ত আজ যেন
আফ্রিকার জঙ্গলের সেই এক একটা
মানুষ খেকো গাছ হয়ে উঠেছে |
হিটলারি উদ্ধত তর্জনী দেখেছিল ওরা
লক্ষজনের পাশে দাঁড়িয়ে |
'কার কত ক্ষমতা আছে দেখে নেব |'
শাবক খরগোশ যে কুঁয়োয় ফেলে
মেরেছিল সিংহ মহারাজকে
মনে পড়ে গল্পটা - কবি সাহিত্যিক বুদ্ধবাবু?
মাত্র পাঁচ পাণ্ডব মেরেছিল শত কৌরবকে
আর আজ ---
তিরিশ তৃণমূল মারল - দুশো তিরিশ বামফ্রন্টকে
ওই কুরুক্ষেত্রে সখা ছিল শ্রীকৃষ্ণ |
এই নন্দীগ্রামেও সখা আছে  | সি বি আই |
কার 'লাইফ হেল' হল
বড় জানতে ইচ্ছে করে
নন্দীগ্রামের নাকি ---
বিনয় - বিমান - বুদ্ধ -
B3 - এর |
শব্দেরা মেঘের সাথী হয় |
ঋতুদের মতো ঘুরে ফিরে আসে |
কখনও বা বুমেরাং হয়ে |
B3 সাবধান | B3 সাবধান | B3 সাবধান |

.        **************    
.                                                                   
উপরে
.                                অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত      

এই কবিতাটি 'জাগো বাংলা' পত্রিকাতে ২০ এপ্রিল ২০০৭ এ প্রকাশিত হয়েছিল |

মিলনসাগর
*
রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম          
আশিস দলপতি

রক্তে শুধু আজ ভেজে নি নন্দীগ্রাম
ভিজেছিল সেই কবে ব্রিটিশ যুগ হতে |
উনিশ মাস স্বাধীন ছিল |
স্বাধীনতার আগে |
নন্দীগ্রামের আর একাংশ দারগাপুড়ার দেশ |
আর একবার ভিজেছিল সাতের দশকে |
শহিদ হতে বড় ভালোবাসে নন্দীগ্রাম |
বিপ্লবীদের আখড়া | গোপন ডেরা
বিপ্লবীদের মুক্তাঞ্চল |
এখনও কান পাতলে শুনতে পাবে
মাতঙ্গিনী-ক্ষুদিরাম-বীরেন্দ্র শাসমলের পদধ্বনি |
বিপ্লবীদের রক্ত এদের শিরায় ধমনীতে |
যত নারী দেখছেন --- সবাই মাতঙ্গিনী |
যত পুরষ দেখছেন --- সবাই ক্ষুদিরাম |
সরকারি হিসাবে
শহিদ হল আটজন এই সেদিন |
আবারও হল চোদ্দোই মার্চে চোদ্দোজন |
আবারও হবে ---
সূর্যোদয়ের আগে, কিংবা সূর্যোদয়ের পরে |
শহিদ হতে বড় ভালোবাসে নন্দীগ্রাম |
ভিজেছিল সেই কবে ব্রিটিশ যুগ হতে |
উনিশ মাস স্বাধীন ছিল, স্বাধীনতার আগে |
অন্যায়ের প্রতিবাদ-মুক্তির সাধ আপন-অধিকারের
স্বাধীনতার মুক্ত বিহঙ্গ |
নন্দীগ্রামের আকাশে ডানা মেলে |
মুক্তির সাধ খোঁজে ক্ষত ডানায় ভর দিয়ে |

.        **************   
.                                                                  
উপরে  
.                                
অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত    

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
সক্রেটিস ও কবি জয়          
আশিস দলপতি

কবি সক্রেটিস, গ্রীক দার্শনিক সক্রেটিস
তুমি বোকা, ভীষণ বোকা
কেন পাপের স্রোতে ভাসিয়ে
রাখলে না শরীর চিত্সাঁতারে ডুবসাঁতারে |
খামোখা বিপরিতে লগি মেরে টানতে গেলে দাঁড় |
পড়লে তো শাসকের বিষনজরে
হলেনও শাসকের শিতার!
করতে হল পান মারণ-গরল |
বদলে যাওয়ার আগেই বদলে গেল চিত্রনাট্য
থমকে দাঁড়ালো ইতিহাস
.                         আরও কিছুকাল |
যদি ভাসতেন স্রোতের উজানে,
ডুবে থাকতেন আকণ্ঠ নীল বর্ণালীতে,
হাজার নীরার বুক থেকে কত সহজেই
.                         খুলে ফেলতেন অন্তর্বাস |
লম্বা লাল বারান্দায় বিড়ালতপস্বীর মতো
শব্দহীন পায়ে হাঁটতেন কলকাতার শেরিফ হয়ে |
কিংবা ডাল লেকের শিকারায় কত নাসরিনের
শীত পোষাকের ভেতর চালান
করে দিতেন কাশ্মিরি বরফ, বিনি পয়সায় |
বোকা সক্রেটিস, বোকা জয় ডুব দিলেন
কাশ্মিরি আপেল ছেড়ে কেন আলেয়া হ্রদে
রক্তকে রক্ত বলতে নেই জানতেন না বুঝি |
রক্ত নয়, লাল রং, এটা যে লাল যুগ |
কোন শলাকা বিঁধলো তোমার বিবেকে ?
"তাপসী মালিক", "ভরত মণ্ডলের মা" না কি
"মইদুলের আম্মি" ?
কি এমন দংশন জ্বালায় জ্বললেন যে
একেবারে লাল স্রোতের বিপরীতে
ঘুরিয়ে দিলেন নৌকার মুখ ?
জয় - মানে সক্রেটিস - মানে কবি জয় |
চরমমূল্য দিতে হবে জেনেও |
এমন কি বিষভর্তি সুন্দরী পানপাত্রে
দিতে হবে জীবনের শেষ চুমুক |
"দেশ" থেকে হতে হবে বিতাড়িত
অদৃশ্য অঙ্গুলিতে নিভে যাবে "আনন্দ" রশ্মি |
আর পাঁচটা গ্রীকের বালিবোড়া
আর পাঁচটা বাংলার জলঢোঁড়ার মতো
.                          কেন হলে না
দার্শনিক সক্রেটিস - মানে জয় - মানে কবি জয় |
ওই কাঁচে মোড়া ঠাণ্ডাঘরে
ওই বিরিয়ানি পিত্জা ওই লাল সুরা
ওই নীরাদের ছেড়ে ---
কেন, কেন নেমে এলেন
এই ধূলি ধূলায়, এই এঁটেল মাটিতে, এই মেঠোপথে
.                                               নন্দীগ্রামে |
কেন, কেন দাঁড়াতে এলেন
ঝলসানো আলের ওপর
রক্তমাখা ধানশিষের পাশে |
কিংবা জলভরা মেঘবালিকার কাছাকাছি |
যারা বৃষ্টিতে না ভিজে ভিজেছিল রক্তে,
যেখানে খুঁজে পাওয়া যায় না
ঝলসানো মেঠো রুটি - আর ঝলসানো মেঠো চাঁদের মানে |
তাই তুমি সক্রেটিস | তাই তুমি জয় - কবি জয় |
তাই তো কৃষ্ণকলি বলতে পারে অকপটে---
বেণীমাধব, বেণীমাধব আমি তোমার বাড়ি যাব ...
লাল স্রোতে ভাসে যারা ---
বরুণার বুকে কেবলই রক্তমাংসের গন্ধ পায় তারা |
.                                                 তাই তো
তাদের "কথা" কেউ রাখে না
এমন কি মনেও রাখে না জীবদ্দশায় ---
আজ মরলে কালই ডুবে যাবে সময়ের খরস্রোতে
সক্রেটিস ও কবি জয় |

.        **************   
.                                                                  
উপরে
.                                অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত    

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
বিকৃত মুখ          
আশিস দলপতি

কাঁটাতারের ওপার হতে দেখা যায়
স্বাধীন গণতন্ত্র দেশ ভারত |
কাঁটাতারের মধ্যে
ভগ্ন লাল দর্কণে
বিকৃত মুখ দেখে ভারতবর্ষ |

.        **************   
.                                                                  
উপরে
.                                অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত    

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
আজ আমি হার্মাদ          
আশিস দলপতি

ছেলেবেলায় গুলিতে ছুঁড়ে ভাঙতাম
পাখির বাসা
ঢিল ছুঁড়ে পাড়তাম বেল
বন্ধুরা আমায় নাম দিয়েছিল "অর্জুন"
ভোট এল, এল নেতারা
বেকার জীবনের সামনে
দোলাতে থাকল রঙিন স্বপ্নের
গোছা গোছা চাবি
ক্ষয়ে চাওয়া চটি, আধ খাওয়া বিড়ি
ছুটল চাবির পিছু পিছু |
যখন থমকে দাঁড়ালাম |
তখন আমি হার্মাদ হয়েই দাঁড়ালাম |
কৈশোরে হারিয়ে যাওয়া
.               "গুলিতে" ঢিল ফিরে এল
"বোমা", "বন্দুক" হয়ে বেকার জীবনে |
ভারতীয় সেনা হলে হয়তো শহীদ হতাম |
দু-চারটে শত্রু মেরে, কারগিল যুদ্ধে |
কিংবা
অলিম্পিক থেকে আনতাম অলিভ পাতা
মেজর রাঠোরের মতো |
তেরঙ্গা না দিয়ে ওরা ধরিয়ে দিল লাল ঝাণ্ডা
আজ আমি হার্মাদ
শুকরের মতো মুখটা বের করে ডুবে আছি
থুথু ভর্তি নালায়
পৃথিবীর সব থুথু ভর্তি মুখ আজ আমার দিকে |

.        **************   
.                                                                   
উপরে
.                                অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত     

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
চা বাগানের রক্ত          
আশিস দলপতি

জল, জমি জঙ্গল থেকে বহুদূরে
মাটির নেতার গিয়েছে সরে |
পুঁজিবাদের বিমানে চড়ে
দেশ-বিদেশ ঘুরে |
ঠাণ্ডা ঘরে বসে |
কৃষক মারার ছক কষে |

মনে কি পড়ে, শেষ কবে
মলিন ধূলো লেগেছিল পায়ে
ভেজামাটির সোঁদা গন্ধ লেগেছিল নাকে ?
এখন ---
ডিভানে সুখ নিদ্রা যাও "কাঠমানি" খেয়ে
ঘুম-ঘুম চোখে বিছানায় বসে
সবুজ চায়ে লম্বা-চুমুক |
এক চুমুকে উঠে আসে কি ---
বন্ধ চা বাগানের রক্ত |
একদিন যারা ছিল
.               আপনার অতি প্রিয় ভক্ত |

.        **************   
.                                                                   
উপরে
.                                অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                         
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
ঝলসানো খেত          
আশিস দলপতি

চার পাশে ধূ-ধূ ঝলসানো খেত
রংচটা চৈতালি ডালপালা |
বৈশাখী রোদ্দুর যত না পুড়ছে
তার চেয়ে ঢের বেশি পুড়ছে
শাসকের শাসানিতে | হার্মাদের হাতে |
কৃষকের ঘর আজ জতুগৃহ |
থোকা থোকা রক্তগোলায় পলাশ শিমুল
যদিও ফুটেছে ডালে |
তার চেয়ে ঢের বেশি রক্ত গড়িয়ে
যাচ্ছে মৃত নাড়ার গোড়ালি দিয়ে |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                               
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
বোমারু বালক          
আশিস দলপতি

খালি পেট পিঁপড়ের ডিম ভাজা
শালপাতা | ভাজা কইলাড়ি ঘন্ট
আমের আঁটি সেদ্ধও জোটেনা
অর্ধেক দিন |
নারকেল দড়ির মতো পেঁচানো পেট |
সেই পেট আজ বেশ মোটাসোটা |
দ্যাখায়, তবে খাবার খেয়ে নয়
বারুদে টাকা জ্যাকেট পড়েছে বলে |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                               
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
কোনটা স্বাধীনতা          
আশিস দলপতি

আমার সামনে পুলিশ লাঠি
আমার পিছনে বনপাটি
আমার ডাইনে নেতা পাটি
আমার বাঁয়ে শূণ্য থালা বাটি
আমার পায়ের তলায় বোমা-চাপা মাটি
আমার মাথার উপর শোষণের ছাতি
ফি ভোটে মিথ্যা প্রতিশ্রতি
ফি বছর অর্ধেক গামছার
তেরঙ্গার পত্পতানি
"উটাই কি স্বাধীনতা ---
উটা যদি না হয়
তবে, কোনটা স্বাধীনতা বটে" |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                              
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত     

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
শাসকের চিতা          
আশিস দলপতি

নতুন শতাব্দীর প্রথম দশক থেকে বলছি
নন্দীগ্রামের জমি পাহারাদারদের থেকে বলছি
ক্ষেতের আলের আড়ালে শুয়ে শুয়ে বলছি
মায়ের, বোনের, ভায়ের রক্তে-
ভেজা-জামা-গেঞ্জি-কাগড় হাতে
নিয়ে বলছি
কবরের নরম কাদামাটি শক্ত
মুঠোয় ভরে বলছি |
শহীদের খাতায় নাম লিখানো
শহীদ মিছিল থেকে বলছি |
রাত পাহারাদার - মেঠো অন্ধকার -
থেকে বলছি |
ভূমিরক্ষা বাহিনীর গভীর থেকে বলছি
শহীদ হওয়ার আগে যেন -
জ্বালাতে পারি শাসকের চিতা |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                      অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                               
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
লাল কেউটের ছোবল          
আশিস দলপতি

কাল কেউটে বা গোখরো নয়
চারদিক থেকে কুলার মতো ফণা
তুলে ছুটে আসছে লাল কেউটে
লাল কেউটের ছোবল থেকে বাঁচতে
বুনো বেজি বলে দিয়েছে আমায়
বনৌষধির নাম |
উপড়ে ফেলেছি সাঁকো
দিনযাপনের রাস্তা কেটে
রচনা করেছি শস্য সীমানা
যে সীমানায় কেবলই নবান্নের গন্ধ
জমাট বাঁধা মৌসুমি মেঘ
কার্তিক অগ্রহায়ণের ধানক্ষেত
সূর্যমুখি সরিষা ক্ষেত কড়াইশুঁটি
উপহার দেব আগামী শিশুকে |
তাঁকে যেন রেললাইনে বডি ফেলতে না হয়
.                              রেজওয়ানের মতো |
কিংবা বন্ধ কারখানার শ্রমিকের মতো |
কিংবা দড়ি নিয়ে গাছের ডালে
কাঁচা রাত্রি যেন রং মেখে আছড়ে না পড়ে হাইওয়ের পাশে
বারো চাকা, ষোলো চাকার তলে |
নুন-ভাতে আলু-ভাতে বেঁচে থাক গেঁয়ো জীবন |
তাই-তো
--- সিয়াচেন-দ্রাস-কারগিলের সীমান্ত
রচনা করে দাঁড়িয়ে আছি লাল কেউটের
সামনে |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                              
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
পরম্পরা          
আশিস দলপতি

ব্রিটিশ চলে গেছে
রেখে গেছে বিপ্লব শিশুর অন্তরে
স্বদেশী শোষক-শাসকের (ব্রিটিশ) উপর
বোমা মারার জন্য |
ভারত আর কবে হবে ভরতবর্ষ ?
সেই        ছিয়াত্তররে মন্বন্তর
এই         আমলাশোল চা-বাগান
সেই        জমিদার-জোতদার-বর্গাদার
এই         পার্টির নেতা ক্যাডার
সেই        লেঠেল পুলিশ
এই         ভৈরব হার্মাদ পুলিশ

চলছে চলবে বংশ পরম্পরা
তখন যা খাজনা
এখন তা জরিমানা মাসোহারা
সেই গ্রামছাড়া এই গ্রামছাড়া
সেই তেভাগা --- এই নন্দীগ্রাম, খাম্মাম |
চলছে চলবে --- বংশ পরম্পরা |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                              
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত     

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
ঘুম নেই          
আশিস দলপতি

উঠানে নেই চড়াইয়ের ফুরুৎ ফুরুৎ ওড়া,
বাঁশ ঝাড়ে ফেরেনা ক্লান্ত পাখি সাঁঝে
মৌচাক ফেলে চলে গেছে মৌমাছির দল
ফসলের সীমানায় ওড়েনাকো নিশাচর পাখি
শেয়ালের ডাক শোনা যায় না আলপথে |
বেগুন গাছের ডালে শূণ্য বাসা টুনা
টুনা-টুনি নিরুদ্দেশ |
খালের তলদেশে জল ছুঁয়ে দাঁড়ায় না মেছো বক |
প্রজাপতি ওড়ে না ফুলে ফুলে |
জোনাকি ভুলে গেছে আলো জ্বালাতে |
ব্ল্যাকবোর্ডে আঁকিবুকি করে না শৈশব
মেয়েবেলা থেকে হারিয়ে গেছে
এক্কা-দোক্কা-স্কিপিং দড়ি |
তুলসীতলায় জ্বলে না দীপ |
গোবর জলে ভেজে না গৃহস্থের উঠোন |
হাট বসে না আর হাট বারে |
ছাদনা তলায় বসে না আর বিয়ের আসর |
কৃষ্ণচূড়ার ডাল থেকে ফিরে যায় বসন্ত
বাতাসে ভাতের গন্ধ অনিয়মিত |
মাচায় বুড়ো হয়ে যায় চালকুমড়ো, পুঁইশাক
বীজধান কুঁড়ে কুঁড়ে খায় চাল পোকা
ঘন পোকার মতো |
ঘুম নেই কৃষাণীর চোখে |

.        **************   
.                                                                        
উপরে
.                                     অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                               
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত    

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
জননী ইটভাটা          
আশিস দলপতি

কাঁচা ইট পাকা হয়
লাল মানিকের রূপে
ভ্যানরিক্সা লরির পিঠে গরুরগাড়িতে
চড়ে চলে যেতে বাবুদের স্বপ্ন বুনতে |
সেই লাল মানিক দিয়ে না রচিত হত,
রাজমিস্ত্রির কুড়নীর ছোঁয়ায় অমর স্থপতি
যার পাঁজরে কান পাতলেই শোনা যায়
ইতিহাসের ইতিকথা ---
বাইজির মুজরার কথা, নুপুরের কথা, ঝাড়বাতির কথা |
জমিদারি-বর্গাদারি-বাগানবাড়ি রংমহলের কথা |
কত আশ্রয়ের কথা, কত নিরাশ্রয়ের কথা |
কত রক্ত, কত উত্থান, কত পতনের কথা |
সেই ইটের আঁতুরঘর থেকে --- সেই জননী ইটভাটা |
আজ যেন কমরেডদের বাগানবাড়ি,
কিংবা গোপন বাঙ্কার --- তালিবানি --- কাশ্মিরি
জঙ্গি কিংবা ভৈরব হার্মাদ সুপারি কিলারের
নিরাপদ আশ্রয় |

কাঁচা ইট পাকা হয়
পাকা ইট লাল হয়
আরও লাল হয় নারীত্বের রক্ত মেখে |
সবুজ সনাতনী মাঠ থেকে তুলে আনে
কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে নন্দীগ্রামের মেয়ে-বৌদের
তারপর ধর্ষণ-গণধর্ষণ     কান্না আর গোঙানির শব্দ
হারিয়ে যায় গুলি-বোমার তীব্র শব্দে |
সংজ্ঞহীন দেহ জীবন্ত আগুনে পুড়ে ছাই হয় পাঁজার
.                                        গনগনে আগুনে ---
জেসিকা লালের মতো তন্দুরি ভাটি
তাপসী মালিকের মতো উনুন গর্তে
নন্দীগ্রামের মৃত ঈথারকন্যার হিম নিঃশ্বাস
দীর্ঘ চিমনির মুখ ছুঁয়ে যায় মেঘ |
পাঁজার প্রতিটি ইট আজ যেন
এক একটি বোমা
সেই বোমায় ঝলসে যায়
সবুজ খেত ... ধানশিষ
বোবা হয়ে যায় রাতজাগা পাখি
শুকিয়ে যায় নয়ানজুলির জল |
ইটভাটার পুকুরে ভাসে ছেঁড়া অন্তর্বাস |
এখানে ওখানে ছড়িয়ে পড়ে থাকে কত
কপালের টিপ, চুল, চুলের কাঁটা, ক্লিপ, নাকছাবি
কানের দুল, গলার চেন, পায়ের নূপুর
.                     কাঁচেক চুড়ির ভাঙা টুকরো
কত লাশ গুমখুনে ছাই হয়ে গেছে পাঁজার
.                                          আগুনে!
ইটভাটার পাঁজা তো নয় যেন
কেওড়াতলা নিমতলার শ্মশান |
জ্বলছে আর্তনাদ --- জ্বলছে লাল যুগ |
পুড়ছে ইট, পুড়ছে মানুষ, কোন ধোঁয়ায় কোন
মেঘ বলতে পারে না আকাশ |

.        **************   
.                                                                               
উপরে
.                                            অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                                      
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত     

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
রক্তমাখা ধান          
আশিস দলপতি

শস্য সীমানায় ঝরে পড়ে
.               মুঠো মুঠো রক্তমাখা ধান |
দক্ষ হার্মাদ এনেছ তুমি
.               শালুক ফুল - কলমি ফুল ঝরাবে বলে |
গুমখুনে মেঠো ইঁদুর শহীদ হয়
বুড়ো নিমপেঁচার পায়ে প্রণামী
.                হিসাবে দাও মেছো বকের কাটা মুণ্ডু |
ডানা ঝাপটিয়ে হুকুম করে লাল নিমপেঁচা |
তিন-ফসলি মাঠের মতো ম্যাইয়া-বেটি আছে
.                বোনাস হিসাবে, সব তোর |
গণিকালয়ের মতো তোমার ঘরে
.                কাঙালির মায়ের আনাগোনা বাড়ে |
শ্মশান গাঁয়ে বাড়ি করে পাঁচ কোটি
.                 খরচ করে |
ফি ভোটে ভাত ছড়াও
.                 অনাহারী মূর্খ কাক ধরবে বলে |

রাতারাতি সরকার বনে যাও
.                 নীল জলে ডুব দেওয়া শিয়ালের মতো
ধামশীষ জাদুঘরে পাঠিয়ে
.                 চিমনির মুখে জাহাজী ধোঁয়া উড়াও |
শস্য সীমানায় ঝরে পড়ে
.               মুঠো মুঠো রক্তমাখা ধান |
কাঁচা গেঁও রাত পিষে মরে ন্যানোর চাকার তলায় |

.        **************   
.                                                                               
উপরে
.                                            অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                                      
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত  

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা
নন্দীগ্রাম" কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
অবাক হব না          
আশিস দলপতি

শিল্পের নামে যে কৃষকের বন্ধ্যা হল জমি |
কাজের খোঁজে যে যুবকের ক্ষয়ে গেল চটি |
ঘর পেল না যে যুবতী, পেল না মাতৃত্বের স্বাদ |
বিনা ওষুধে শূণ্য হল যে মায়ের কোল |
কাজ হারিয়ে যে শ্রমিকের হাঁড়িতে নেই ভাত |
ঘুমিয়ে আছে বিপ্লবীরা সব হৃদয়ের অন্তরে |
যদি বোমা মারে ক্ষুদিরামের মতো |
যদি তুলে নেয় হাতে এ-কে-৪৭,
যদি পড়ে ধরা, ফাঁসিতে ঝুলে,
বেঁচে যাবে দেশটা ধ্বংসের আগে |
আমি অবাক হব না |

.        **************   
.                                                                               
উপরে
.                                            অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                                      
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত    

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*
ফুটপাথ          
আশিস দলপতি

৭৮৬ নং লাইটপোস্টের নীচে
নেমে এসেছে বেকার জীবন |
একদিকে মৃত্যুকোল |
বেঁচে থাকার ধ্বনিত রোল একদিকে |
মাঝখানে হাত বাড়ায়
মস্তান-পুলিশ-নেতা-নষ্ট রাজনীতি |
ফাঁকা উড়ালপুল | শপিংমল গগনচুম্বি
ইমারতী | বিদেশী প্ল্যাটিনামের
মাঝে ঝুলে |
তিলোত্তমার গলায়
"হকার" নামক সিটি গোল্ড |

.        **************   
.                                                                               
উপরে
.                                            অন্যান্য কবিদের সূচির পাতায় ফেরত    
.                                      
সিঙ্গুরের কবিতার মূল সুচির পাতায় ফেরত     

এই কবিতাটি "কলকাতা প্রকাশন" এর দ্বারা প্রকাশিত কবির "রক্তে ভেজা নন্দীগ্রাম"
কাব্যগ্রন্থ থেকে নেওয়া |

মিলনসাগর
*