দাশু রায়ের পাঁচালী
যে কোন কবিতার উপর ক্লিক করলেই সেই কবিতাটি আপনার সামনে চলে আসবে।
কবিগান
১।        রাধামোহন দাস বনাম দাশরথি রায়      
২।        
দাশরথি রায় সম্পর্কে কবিগানে পুরুষোত্তম দাসের আঘাত    

পাঁচালী
.                বিধবা বিবাহ প্রসঙ্গে  
৩।        দাশরথি রায়ের আত্ম পরিচয়    
৪।        
বিধবা-বিবাহ আইন উপলক্ষে ঘোর আন্দোলন     
৫।        
ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগরকে দোষ দেওয়া মিথ্যা---ইহা ঈশ্বরের কার্য্য  
৬।        
বিধবা-বিবাহের কথায় শান্তিপুরের এক রমনীর ভারী আনন্দ   
৭।        
হিন্দু নারীর পক্ষে বৈধব্য রোগ        
৮।        
নেড়া-নেড়ীর ও বিবাহে কত সুখ       
৯।        
বিধাতার বিচার             
১০।       
হিন্দু বিধবার বিবাহ অসম্ভব     
১১।       
বিধবা বিবাহ-কথায় এক বাহাত্তুরে বুড়ীর পরিতাপ   
.                শ্রীরাম চন্দ্রের বিবাহ থেকে  
১২।       
শ্রীরামচন্দ্র-কর্ত্তৃক হরধনুর্ভঙ্গ   
.
               দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণ থেকে
১৩।       
দ্রৌপদীর বস্ত্র হরণে দুঃশাসনের প্রচেষ্টা এবং দ্রৌপদীর শ্রীকৃষ্ণ-স্তব
১৪।       দুঃশাসন কর্ত্তৃক দ্রৌপদীর বস্ত্র আকর্ষণ   
.
               প্রহ্লাদ-চরিত্র থেকে
১৫।        
হিরণ্যকশিপু বধ    
.
               কর্ত্তা-ভজা থেকে           
১৬।       
কর্ত্তা-ভজার বিবরণ   
১৭।       
জগতের কর্ত্তা হরি         
     
   
*
কবিগান

রাধামোহন দাস বনাম দাশরথি রায় ---

রাধামোহন দাস বৈরাগী র চাপান ---

"মার গানের গুরু কল্পতরু
.                                হরুর তুল্য গণি |
হাঁরে পাগল হয়েছিস? ছাগল মধ্যে
.                        আসরে নামবেন তিনি?
আজ মোষ কাটবো বলে আমি
.                        খাঁড়ায় দিলাম বালি |
আসরে এসে দেখি দেশো
.                        পুড়-কুমড়ার জালি ||"


উতোরে দাশরথি উঠে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, "মহাশয়রা গোল করিবেন না, ছড়ার উত্তর শ্রবণ করুন ;"---

"তিন পোনের জন্য খেটে পুরো কল্পতরু |
.                তিন কড়া যার মূল্য তার তুল্য করিস হরু!
তুই ওকে সিংহ দেখিস, আমি দেখি গরু ||
.                পুরোর নিজের মুরদ তিন কড়া,
শিষ্য দিয়ে বলান ছড়া,
.                যেমন কানা একজন ঠেঙ্গাধরা,
.                                        সঙ্গে সঙ্গে হাঁটে |
.                বড় কর্ম মহাশয়, ঢাকীর একজন ঢাক বয়,
.                                লাঙ্গলের যেমন জোতালে যায় মাঠে ||
বুনো কুলিতে হাউজ গাঁজে,
.                তার একজন তামাক সাজে,
.                                                শুনে লজ্জা পাই!"   ---ইত্যাদি


.                        ****************                                                            
উপরে  
.                                                           
দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     
দাশরথি রায়ের আত্ম পরিচয়

তুল্য দিতে অপ্রমাণ           মান্ধাতার তুল্য মান
শ্রীমান নিবাসী বর্ধমান |
ভূপতি ভূপের চূড়া              গ্রাম নাম বাঁধমুড়া
উক্ত ভূপের অধিকার স্থান ||
কুলীনগণ বসতি               গ্রামের গৌরব অতি
অল্পপথে ত্রিপথ গামিনী |
তথায় করেন ধাম              দেবীপ্রসাদ শর্মা নাম
দ্রিজরাজ নানা শাস্ত্রজ্ঞানী ||
অহং দীন অতনয়            পিলায় মাতুলালয়
পরশে বাড়ী পরশি ভাগীরথী |
লিখিল পাঁচালীগ্রন্থ                 পাঁচালীর পঞ্চকাণ্ড
সখা চিন্তা যোগে দাশরথি ||


.                                               ****************                                       
উপরে
.                                                              দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
কবিগান

কোনো এক কবিগানের আসরে কবিয়াল পুরুশোত্তম দাস, দাশরথি রায়ের  পিতৃ ও মাতৃকূল তুলে
আঘাত করেন |  ১৩২১ বঙ্গাব্দের আর্য্যাবর্তের ভাদ্র সংখ্যায় "দাশরথি রায়" প্রবন্ধে রমানাথ
মুখোপাধ্যায় লিখেছেন যে (এই আসরের পর) "অক্ষয়া এবং দাশরথি দুজনেই গঙ্গাস্নান করে যে যার
বাড়ী ফিরে গিয়েছিলেন" | এর পরই দাশরথি রায় অক্ষয়ার কবিগানের দল ছেড়ে নিজের পাঁচালীগানের
দল শুরু করেন |

"উনি কুলীনের গরব করেন নিত্যি,
.                                শুনে গলে যায় পিত্তী,
মামা যার চক্রবর্ত্তী পিতা যার রায় |
.                        তিনি আবার দিয়ে বেড়ান নৈকষ্যের দায় ||
.        কার মাসতুতো ভাই দৈবজ্ঞ,
.                                পিসতুতো ভাই ভাট |
কন্যা বিয়ে করে পণে মারেন মালসাট ||"


.                        ****************                                                            
উপরে  
.                                                           
দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

বিধবা-বিবাহ আইন উপলক্ষে ঘোর আন্দোলন

বিধবার বিবাহ-কথা
.            কলির প্রধান কলিকাতা,---
.       নগরে উঠিছে এই রব |
কাটাকাটি হচ্ছে বাণ ক্রমে দেখছি বলবান
.       হবার কথা হয়ে উঠছে সব || ১
ক্ষীরপাই নগরে ধাম,       ধন্যগন্য গুণধাম,
.        ঈশ্বর বিদ্যাসাগর নামক |
তিনি কর্ত্তা বাঙ্গালীর,
.            তাতে আবার কোম্পানীর,---
.        হিন্দু-কলেজের অধ্যাপক || ২
বিবাহ দিতে ত্বরায়,      হাকিমের হয়েছে রায়,
.       আগে কেউ টের পায় নি সেটা |
তারা ক’রলে অর্ডার,      জেতে করে অর্ডার,
.         চটুকে বুদ্ধি আটকে রাখিবে কেটা ? ৩
হাকিমের এই বুদ্ধি,        ধর্ম্ম-বৃদ্ধি প্রজা-বৃদ্ধি,
   এ বিবাহ সিদ্ধি হ’লে পরে |
বিধবা করে গর্ভ-পাত,      অমঙ্গল উৎপাত,
.         এতে রাজার রাজ্য হ’তে পারে? ৪
হিন্দু ধর্ম্মে যারা রত,       প্রমাণ দিয়ে নানা মত,
.       হবে না ব’লে করিতেছেন উক্ত ||
ইহাদের যে উত্তর,          টিকিবে নাকো উত্তর,
.         ঊত্তীর্ণ হওয়া অতি শক্ত || ৫


.                 ****************                                                
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগরকে দোষ দেওয়া মিথ্যা---
ইহা ঈশ্বরের কার্য্য

তোমরা এই ঈশ্বরের দোষ ঘটাবে কিরূপে?
রাখিতে ঈশ্বরের মত, হইয়ে ঈশ্বরের দূত,
এসেছেন ঈশ্বর বিদ্যাসাগর-রূপে ||
রাজ আজ্ঞায় দূতে আসি, কাটে মুন্ডু দিয়ে অসি,
রশি দিয়ে ফেলে অন্ধকূপে,---
তা ব’লে দূতে কখন দূষী হয় সেই পাপে ?
কি আর ভাব সকলেতে,
.             হবে যেতে জেতে হতে,
জাত-অভিমান সাগরে দাও সঁপে ;---
এক ধর্ম্ম প্রায় আগত, ভারত আদি পুবাণমত,
ভারতে চলিবে না কোনরূপে ;---
যখন করেছে এ ভারত অধিকার
.                  কলি-ভূপে || (ক)



.                 ****************                                                
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

বিধবা-বিবাহের কথায় শান্তিপুরের এক
রমনীর ভারী আনন্দ
(এই কবিতায় কবি ঈশ্বর গুপ্ত কে খোঁচা মেরে লিখেছেন)

উঠেছে কথা রটেছে দেশে,
.            কারু ইহাতে বড় দ্বেষ,
.        কারু, ইহা তো সন্দেশ বিশেষ |
কেউ বলেছেন হউক হউক,
.            কেউ বলিছেন নিষেধ রউক,
.      কেউ বলিছেন,---হয় না কেন বেশ! ৬
বাল্যকালে মরেছেন পতি,
.            বিধবা নারী যত যুবতী,
.       তাদের গাটা শিউরে উঠেছে শুনে |
শুধাচ্ছে কথা ফিরে ফিরে,
.            সিন্নি মেনে সত্যপীরে,
.       সত্য হবে একথা যে দিন || ৭
একথাতে যার মতি,       যে করিবে অনুমতি,
.      সবংশে সে জন সুখে থাকুক |
প্রতিবাদী যে এ কথায়,    বজ্র পরুক তার মাথায়,
.        সে কুবংশ নির্ব্বংশ হউক || ৮

ফিরে বিবাহ দিবার,        বিপদ-শান্তি বিধবার,
.          শান্তি রে যে দিন রটিল |
যত বিধবা যুবতীরে,       স্নান করে সব গঙ্গাতীরে,
.         এক যুবতী কহিতে লাগিল || ৯
দিদি গো ! শুন শুন বাণী,
.               বড় দুঃখ দিলেন ভবানী,
.        দশ বৎসরে হয়েছিল বিয়ে |
একাদশে মরেছে পতি,
.                       একাদশীতে হয়েছি ব্রতী,
.               বিশে বিশে চল্লিশ গেল ব’য়ে || ১০
যত মূর্খ লোকে দুঃখ দিলে
.                     অবলার প্রাণ বধিলে,
সূক্ষ্ম বিচার কেউ তো করে নাই  |
যাজন করিতে ধর্ম্ম-পথ,     চলবে পরাশরের মত,
.        আজি যে আমরা শুনিতে পেলাম তাই || ১১
গুণের মুনি পরাশর,         যার কথাতে বিচ্ছেদ-শব,
.              ভুগিতে হয় না প্রাণেশ্বর ম’লে |
দিদি গো! এই কলিতে,      যে ধর্ম্মে হয় চলিতে,
  ব্যবস্থা দিয়াছেন তিনি ব’লে || ১২
নষ্ট, ক্লীব কিম্বা মৃত,      অথবা পতি পতিত,
.        উদাসীন--- এই পঞ্চ যদি |
বচন আছে মুনির,        হইয়াছেন যে রমণীর,---
.        পুন বিবাহ করিতে তার বিধি || ১৩
বলেছেন এসব পরাশর,
.            আগে ইহা শুনিলে পর,
.      পরের  তরে এত সই পরাণে ?
অধ্যয়ণ করেছে যারা,     এ সব তত্ত্ব জানে তারা,
.      পোড়া কপালেরা পোড়ালে জেনে শুনে || ১৪

.               ***************************

বিধবা করিতে দিদি ! আছে বিধবাদের বিধি
মরুক দেশের পোড়া-কপালে, সকলে,
কথা ছাপিয়ে রাখে হ’য়ে বাদী ||
আমাদিগকে দিতে নাগর,
এলেন,গুণের সাগর বিদ্যাসাগর,
বিধবা পার করতে তরির
.            গুণ ধরছেন গুণনিধি ||
কতকগুলো অধার্ম্মিকে, বিপক্ষ বিধবার দিকে,
জুটেছে কলিকাতায়, এই কথায়,---
তারা বিপক্ষ হয় হয়ে বাদী ||
ঈশ্বর গুপ্ত অল্পেয়ে,
.        নারীর রোগ চেনে না বৈদ্য হয়ে,---
হাতুরে বৈদ্যেতে যেন
.      বিষ দিয়ে দেয় প্রাণে বধি || (খ)


.                 ****************                                                
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

হিন্দু নারীর পক্ষে বৈধব্য রোগ

এ দেশে লয়ে জন্ম সই!          যে জ্বালা জন্ম সই,
.                আছি যে ক'রে জানাই |
জেশ ত দিদি! আছে সকল,
.                নারীর মধ্যে যেমন গোল,
.                এ দেশে যেমন বিধি---
.                এমন বিধি আর কোন দেশে নাই || ১৫
আছে রাজ্য উত্কল,
.                                পতি ম'লে প্রাণ বিকল,---
.                হয় না --- এমন প্রায় উপায় আছে |
সদয় আছেন দিগম্বর,
.                        বর ম'লে বর পায় দেবর,
.                দেবীর বর সকল দেশেই আছে || ১৬
ইংলণ্ড দেশে সজনী!           হদ্দ সুখ পদ্মযোনি,---
.                দিয়াছেন রমণীর প্রতি |
যত দিন থাকে কান্ত,            ঐ কান্তে ঐকান্ত
.                ক'রে কাল কাটায় যুবতী || ১৭
রোগে কিম্বা সমরে,              যদি সেই পতি মরে,
.                পুত্র যদি থাকেন পৃথিবীতে |
মরি! কি আশ্চর্য্য পুত্র,           পুত্র খুঁজে লগ্নপত্র,---
.                ক'রে যায় জননীরে বিয়ে দিতে || ১৮
ভারতবর্ষ এই দেশে,
.                        আমরা যেন বিধির দ্বেষে,---
.                পড়েছি সই! অন্য জেতে নয় ত এত |
হত প্রাণে হত মানে!---
.                        অন্য জেতে এত কি মানে?
.                এত গোল মোগল মানে না ত || ১৯
কি ছার রোগ শূল কাস
.                        তাতে আছে ত অবকাশ,
.                কাসে কেবল নাশে জানি পরাণী |
এই যে মরণান্ত ভোগ,            বৈধব্য যেমন রোগ,
.                এমন রোগ কোন রোগ লো ধনি! ২০
দিদি লো! এ যেমন অসাধ্য রোগ,
.                        তেমনি কিন্তু চিকিত্সক,
.                শচী-গর্ভে জন্মেছে এক ছেলে |
নামটি তার গৌরহরি,
.                        বিধবার রোগে ধন্বন্তরী,
.                কত লোকের জ্বর ছাড়িয়ে দিলে || ২১



.                 ****************                                                
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

নেড়া-নেড়ীর ও বিবাহে কত সুখ   
(বৈষ্ণব-বৈষ্ণবী)


আ মরি! কি দয়াময় গৌরাঙ্গ |
নাগর ম'লে এদের,---বয় না নেড়ীদের,---
অমনি জোটে নেড়া,
.                কমল ছাড়া হয় না কভু ভৃঙ্গ ||
আমাদের সব অভাগারা,
.                        কালী কালী বলে এরা,
গৌরকে সর্বদা করে ব্যাঙ্গ |
নইলে পেতে ফাঁদ,              ধরিতাম নদের চাঁদ,
ঘরে হ'তে পদ বড়াইতাম, জুড়াইতাম অঙ্গ ||
নাথ যেদিন অদর্শন, জ্বেলে বিচ্ছেদ-হুতাশন,
.                বসন ভূষণ গেল সঙ্গ ||
কি সুখে রয়েছি বাসে,
.                        বাসে কি আর ভালবাসে,
.        উপবাসে জ্ব'লে গেল অঙ্গ,---
এমন পথে ছাই,            আমরা দিতে চাই,
আমি সদা মনে করি, করে ধরিতে করঙ্গ || (গ)


.                 ****************                                                
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

বিধাতার বিচার   


যা হোক এখন সে কথাটা,
.                        রটছে যদি হয় আঁটা,
.                নগর মাঝে এখনি নাগর খুঁজে |
পতিত জমির দেই পাটা,
.                        বেড়ে উঠে বুকের পাটা,
দিয়ে শত্রুর বুকের পাটা, নাচি গাঁয়ের মাঝে || ২২
পূজা করি গুরুর পাটা,        দিয়ে ধূতি এক পাটা,
.                গুরুকে এখনি বরণ করি লো দিদি!
কালির যদি হয় কৃপাটা,
.                        কালীকে দিব কাল পাঁটা,
.                বিচ্ছেদের ঘা-টা শুকায় যদি || ২৩
সত্যপীরকে দিব বাটা,
.                        সাধ পূর্ণ --- সাধু-সেবাটা,---
.                ক'রে ঘটা করি নিকেতনে |
পাছে কোন বদ লোকটা,
.                        দেয় ইহাতে বাধাটা,---
.                ঐ ভয়টা সদা হতেছে মনে || ২৪
অবিচার বিধাতার,              দেহে নাই ধর্ম তার,
.                নারী পুরুষ দুই তাঁর সৃষ্টি |
বিধাতা পুরুষদিগকে,
.                        দেখেছে কি সোণার চখে,
.                রমণীদিগে কেবল বিষদৃষ্টি || ২৫
এত বিধির পক্ষপাত!
.                        রমণীর পক্ষে পক্ষাঘাত,
.                পুরুষের সঙ্গে গলাগলি ভারি |
দুখ পেয়ে দুখ নাই বলা,
.                        তাতেই আমাদের নাম অবলা,
.                কিছু ক'রতে নারি, তাই তো নারী || ২৬
গর্ভে হলে ছেলে প্রবেশ,        রমণীর দুখের শেষ,
.                পুরুষের কোনো ক্লেশ নাই |
বিধি আছেন পুরুষের বশে,
.                        ব'সে বাপ হ'য়ে বসে,
.                সেই ছেলেদের বাপের দোহাই || ২৭
পরশুরাম বাপের কথা,---
.                        শুনে মায়ের কাটে মাথা!
.                নারীর বলিব কি আর মাথা!
বাপ থাকিতে বর্ত্তমান,         গয়ায় গিয়ে পিণ্ডদান,---
.                মায়ের নাই, এত বাদী বিধাতা || ২৮
বিধাতা তো নারীর পক্ষ,        সকল পক্ষ বিপক্ষ,
.                সকল সহ্য করিতাম লো দিদি!
এইটি যদি করতো ভব্য,        নামটি থুতো বৈধব্য,
.                সমান সমান ঐটে হতো যদি || ২৯

.                       **********************

পুরুষের য'বার মরে, ত'বার বিয়ে সই!
সে সুখী আমরা কেন নই!
কি দোষে একহাটে চোর মায়ে-ঝিয়ে হই ||
নারীর পতি কষ্ট পেলে, ঘরে এসে কষ্ট হ'লে,
সে যে কষ্ট, --- যে কষ্ট দেয় প্রাণে,---
সে কষ্ট সখী লো! কৃষ্ণ জানে!
মজিলে পর পুরুষেতে,
.                        কলঙ্কিনী আমরা তাতে,
পুরুষ নিলে পরস্ত্রীকে, এত বাদ কই? (ঘ)


.                 ****************   

.                                                                              
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

হিন্দু বিধবার বিবাহ অসম্ভব   

গ্রামে হলো সমাচার,
.                        নারী পুরুষের সমান বিচার,
.                বিধিমত হলো এতদিনে |
শুনি এক ধনি কহিছে,
.                        ছি ছি জ্বালা দিস নে মিছে!
.                রাজ্যশুদ্ধ হাসালি এত দিনে || ৩০
পাপের ভোগ পঞ্চ দেশ,        বিধির দ্বেষ বড় দ্বেষ,
.                ভারতবর্ষ নামটি লোকে কয় |
যে দেশে পাপ করে নরে,
.                        পাপের ভোগ করিবার করে,
.                সেই দেশে আসি জন্ম লয় || ৩১
ওলো ধনি! পাপের ভোগ,
.                        যেমন ভুগালি তেমনি ভোগ,---
.                স্বামীর সঙ্গে রস ভোগ, আর মিছে কর সাধ!
তোরা আবার সুখে রবি,        পশ্চিমে উঠিবে রবি,
.                মনে মিছে করিসনে আহ্লাদ || ৩২
হাতের তেলোয় উঠিবে লোম,
.                        কুহু-নিশিতে উঠোবে সেম,
.                বাঘ ডাকিবে কুহূ কুহূ রবে |
শিমূল ফুলে হবে মধু,           বসিবে কমলিনীর বঁধূ,
.                হিজড়ের গর্ভেতে পুত্র হবে || ৩৩
আসার কথা কখন টেকে?
.                        তার সাক্ষী দেছে লোকে,
.                অকস্মাৎ লেজ ল'য়ে আকাশে!
উঠে একটা নক্ষত্র,            নাম তার ধূমক্ষেত্র,
.                কিছুদিন বই আপনি পড়ে খ'সে || ৩৪
কেন তোরা করিস তুল,
.                        তাল গাছে হবে তেঁতুল,
.                কোন বাতুলে এ কথা রটায় লো?
যদি হাকিমের হ'তে আজ্ঞে,
.                        তবে ধনি তোদের ভাগ্যে,
.                জাতি-কূল বাঁচান হতো দায় লো! ৩৫
কালে ইংরাজরা সিদ্ধপুত্র,
যজ্ঞকাষ্ঠ পরিবর্ত্ত,          করতে তাদের হয় না মত,
.                শুনেছি তব ভাল লোকের মুখে |
সকল পরিবর্ত্ত হবে,        মেয়ে পুরুষ এক হয়ে রবে,
.                সকলেতে থাকবে মনের সুখে || ৩৬
কথা হবে না হবার নয়,      লাভে থেকে এই হয়,
.                পতির শোকটা পুরাণ পড়েছিল |
বাধালে বিচ্ছেদ যাগ,          চিইয়ে দিলে ঘুমান বাঘ,
.                পোড়ার-মুখোদের হ'তে এই হলো || ৩৭


.                 ****************   

.                                                                              
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

বিধবা বিবাহ-কথায় এক বাহাত্তুরে বুড়ীর পরিতাপ   

এই রূপে যুবতী সব,          করিছে নানা উত্সব,
.                প্রবীণ এক বিধবা সেইখানে |
যুবতী ক'রে রসিকতা,
.                        হেসে হেসে বলিছে কথা,
.                ঠাকুরুণদিদি! শুনেছ কি কানে? || ৩৮
প্রবীণ বলে, শুনেছি ভাই!
.                        ছার কথায় আর কাজ নাই,
.                বেল পাকিলে কাকের কিবা সুখ?
নাক মুখ চক্ষু বুক, বজায় আছে তাদের সুখ,
এসে, ভ্রমর তোদের যৌবন-কমলে বসুক || ৩৯
আমার, বয়স প্রায় বাহাত্তর,
.                        মনের মতন পাত্তর,
.                আর তো কেউ জুটিবে না লো ঘরে |
যদি বল সম্পর্ক,---             দেখিয়ে করি ত সখ্য,
.                কালো কুকুর মাড় ভক্ষণ করে || ৪০
সমানে সমানে ঘর,            খোঁড়া মেয়ের কানা বর |
সমানে সমানে গাধার পিঠে ধোবার ভার || ৪১
.                        উননমুখো দেবতার,
.                        ধুতের পাঁস নৈবেদেয যেমন |
.                        সমান সমান ঘটে যত,
.                        পেতনীর সঙ্গে জোটে ভুত,
.                মেষে মেষে মিশে ভাল জান || ৪২

.                    *******************

নবীন নাগর আর কে ধনি!
.                        চালাবে মোদের তরণী |
নই যুবতী নই তরুণী, দু'দিন বই ত বৈতরণী ||
বয়স প্রায় ঘনাল আশী,
ওলো নাতিনি! এবার ফিরে আসি,
নাই বুকে জোর, নাই---সে নজর,---
জোর ক'রে হই কার ঘরণী! (ঙ)


.                 ****************   

.                                                                              
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

শ্রীরামচন্দ্র কর্তৃক হরধনুভঙ্গ   

হেথা, সীতারে কাতর দেখে একান্ত,
.                                অনন্ত ভূবনের কান্ত,
.                অন্তর্যামী জানিয়ে বিবরণ |
ভঞ্জনার্থে হর-ধনু,                  উঠিয়ে নীল-কমলতনু,
.                বামহস্তে করিলেন ধারণ || ১৮৩
শিশু যেন তৃণ তুলে,               তেমনি রাম ধনু তুলে,
.                অবহেলে সকলেতে দেখি |
বলে সবে কিমাশ্চর্য্য!             ধন্য ধন্য ধন্য বীর্য্য!
.                এমন আর না শুনি, না দেখি! ১৮৪
চমত্কার মনে গণে,
.                        হেথা তেত্রিশকোটি দেবগণে,
সবাহনে আসি গগনে,           থাকেন অন্তরীক্ষে |
হেথা শুনে জানকীর,          দেখে রুপ কমলাঁখির,
করে ধ'রে সব সখীর,              দেখান পদ্মচক্ষে || ১৮৫
হেথায় ভূবন জন জনক,     শুক-আদির সুখজনক,
ধনু ধারণ করেছেন জনক          দেখিয়ে আনন্দ!
লক্ষণে কন নীলবরণ,         কর ভাই ! ধরা ধারণ,
জানত বিশেষ বিবরণ,          ঘটে পাছে বিবন্ধ || ১৮৬
অমনি পেয়ে শ্রীপতির অনুমতি,
.                                লক্ষণ ধরেন বসুমতী,
হেরে রাম সুস্থমতি,                ধনুতে দেন গুণ |
হেরে সীতার মনে সুখ অনন্ত,
.                        হেথা পাতালে কাঁপে অনন্ত,
.                ভাঙ্গেন ধনু যার অনন্ত গুণ || ১৮৭
ধনু ভাঙ্গতে করে মিড় মিড়,
.                                রাখ হে রাখ হে মৃড়!
পরিত্রাহি শুনে মৃড়, নাড়িয়াছেন মাথা |
দেখে হেসে কন পার্ব্বতী,        অকস্মাৎ পশু পতি,
.        ব'সে বসে নাড়িছে কেন মাথা || ১৮৮
শিবা কন করি যোড়পাণি,
.                কিছু নয় কন শূলপাণি,
.        সিদ্ধির ঝোঁকে মাথা ন'ড়ে উঠিছে |
কাতর দেখে সর্ব্বমঙ্গলায়,         শিব কন মিথিলায়,
ছিল ধনুক জনকালয়,     সেই আমায় ডাকিছে || ১৮৯
গুরু আমার ভাঙ্গছেন, ধনু!
.                           ধনু ডাকে তাই পুনঃ পুনঃ,
মাথা নেড়ে তাই বলিলাম, ধনু!
.                                আমার কর্ম্ম নয় |
হয়েছেন রাম অবতার,          নাহি তোর নিস্তার,
.        স্বয়ং লক্ষ্মী সীতার, বিবাহ আজ হয় || ১৯০
হেথা ধনু ভাঙ্গেন ত্রিলোকের সার,
.                                স্তব্ধ হয় ত্রিসংসার,
রাজগণ আপনাকে অসার,       ভাবে মনে মনে |
দেখে স্তব্ধ যত মহীপাল,           কাঁপিতেছে দিক্পাল
.        ভাঙ্গিয়া ধনু ফেলেন ধরাসনে || ১৯১
দেখি সীতে উল্লসিতে,         আনন্দিতে যত ঋষিতে,
.        দেবগণ হরষিতে, জয়ধ্বনি করে!
আনন্দ মন অনেকের,         কি আনন্দ জনকের,
.        ত্রিভূবন জনকের ধন্যবাদ করে || ১৯২
উঠি জনক ভূপতি,     কোলে লয়ে রঘুপতি,
বলে আমার সীতাপতি,       তুমি হলে অদ্য |
ভেবছিলাম হবে বিফল,     ছিল কিঞ্চিৎ পূণ্যফল,
করলে রাম জনক সফল,
.                        আমার পণ হ'লো সিদ্ধ || ১৯৩
কর বাছা সীতা-বিবাহ,       রাম কন-অদ্য বিবাহ,---
.                নির্ব্বাহ হয় হল কেমনে?
বিবাহ করা কেমন কথা?
.                পিতা মাতা রইলেন কোথা?
লোকে যেমন বলে কথা,   বিয়ে হোগলা বনে || ১৯৪
শুনে হেসে কন জনক,          এ বড় সুখজনক,
আছে ভবে তোমার জনক,
.                                বিশ্বাস নয় এ কথা |
যদি আছেন তাঁরা, কোন দেশে,
.                দূত গিয়ে দেশ বিদেশে,
কত জন আছেন কোন দেশে,
.                বল কোথা কোথা? ১৯৫
হেসে কন নিরঞ্জন,             আমাদের পিতা একজন,
আপনার পিতা ছিলেন ক'জন,
.                                চিত্রগুপ্ত হয় বেঠিক,
.        বলুন দেখি ক'রে ঠিক সভাজনের কাছে? ১৯৬
এ প্রকার শুনে রহস্য,         সভশুদ্ধ করে হাস্য,
কেউ রাম-রূপ করি দৃশ্য,       করে সফল নয়নে |
ত্রিভূবনে উত্সব,                শত্রুপক্ষ যেন শব,
ধন্যবাদ দে জনকে সব,          কহিলেন মুনিগণে || ১৯৭

.                     *****************

কিবা পূণ্য ধর হে তুমি,        ধন্য এ মহীমণ্ডলে |
গোলক শূণ্য ক'রে আছেন,
.                        ত্রিলোকে মান্যে কন্যে ছলে ||
জামাতা পেলে হে,
.                        যাঁরে যোগী করে আরাধন,---
মহাযোগী জ্ঞান-নেত্র মুদে হৃদে দেখেন যে ধন,
.        পদ্মযোনি বাধ্য আছেন যে পদ-কমলে || (থ)


.                      ****************   

.                                                                              
উপরে
.                                        দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

দ্রৌপদীর বস্ত্র হরণে দুঃশাসনের প্রচেষ্টা এবং দ্রৌপদীর শ্রীকৃষ্ণ-স্তব   

দ্রৌপদীর শুনে বচন,            ঝর ঝর ঝুরে লোচন,
.                বচন বদনে নাহি সরে |
কুবচন কহে কর্ণ,                দ্রৌপদীর স্বর্ণ-বর্ণ,
.           বিবর্ণ হইল বাক্যশরে || ২১৮
দুঃশাসন দুরাচার,               না করি চিত্তে বিচার,
.          বল করি দ্রৌপদী প্রতি বলে |
আর মুখ চাও কার,              দাসীত্ব ক'র স্বীকার,
.            অন্তঃপুর মধ্যে যাও চ'লে || ২১৯
পট্ট-বস্ত্র রত্নহার,                    গলে করো ব্যবহার,
.             ও সব কাহার তা জান না?
অবিলম্বে শুন শুন,                   দেহ হৈতে ভূষণ,
.           দেহ খসাইয়া মুক্তা সোনা || ২২০
বলে, মান হরিবারে,                 যার বস্ত্র ধরিবারে,
.                বিপদ গণিয়া গুণবতী |
ঘন ডাকিছেন অন্তরে,             অনন্ত গুণসাগরে,
.        কোথা হে গোবিন্দ! গোলকপতি!  ২২১
করুণার কল্পতরু,                    কৃপাসিন্ধু কৃপা কুরু!
.                কর দৃষ্টি করুণানয়নে |
দুষ্টমতি দুঃশাসন,                    হরে মান পীতবসন,
.           ধরে বসন সভা বিদ্যমানে ||  ২২২
দয়াময়! এ নির্দ্দয়,               লয় যে মান হরি! --- হরি |

হরি ক'রে সার, ঘুচলো পসার,
.                                এই হলো হরি হরি ||  ২২৩
বিপদে যদি, গুণজলধি!
.                                না রাখ অনুপায় পায় |
দিব অনলে, অথবা জলে, হরি হে!
.                                জীবন যায় যা'য় ||  ২২৪
রাজকুমারী, রাজার নারী,
.                                কত কটু দুর্ব্বলে বলে |
ওহে শ্রীপতি! এ দুর্গতি,
.                                কি অধর্ম-ফলে ফলে?  ২২৫
বাজিয়ে বাদ্য, ক'রে গদ্য,
.                                করছে হে কৌরব রব |
আর সহে না, এ যন্ত্রণা,
.                                কত হে কেশব! সব ||  ২২৬
কৃপা-নিধান! কর বিধান,
.                                হরে মান পামর মোর |
শ্রীচরণের দাসীকে মনে,
.                                ভেবেছো পরাত্পর পর!  ২২৭
একি বিড়ম্বনা, বিবসনা,
.                                করতে দুষ্টমতির মতি |
মনাগুণে দগ্ধ দেহ, দেহ শীঘ্রগতি গতি ||  ২২৮

.                      ****************

ওহে দয়াময়! বড় দুঃসময়, ---
.                                লজ্জা মান হরে হে বিপক্ষ,---
কোথা সঙ্কটের ঔষধি, নিদান-কালের নিধি,
নীলবরণ! লজ্জা-নিবারণ!
আসি দ্রুপদ-কন্যা দাসীর বিপদ রক্ষ ||
এইযে অতি মূঢ়মতি দুঃশাসন,
.                          কে করে শাসন, বড়ই দুঃশাসন,
দাসের দাসীর করে কেশ আকর্ষণ,
হে গোবিন্দ! তোমার এ কেমন সখ্য?
পাণ্বেরই সখা বলে হে ত্রৈলোক্য,
.                        তবাশ্রিতে বিপদ হরে লক্ষ লক্ষ,
লক্ষ রাজ মাঝে অর্জ্জুন বেন্ধে লক্ষ্য,
সে কোবল তোমার চরণ উপলক্ষ || (ঢ)

.                      ****************

কাঁদতে কাঁদতে ঐকান্তে,  দ্রৌপদী ডাকেন শ্রীকান্তে,
.              নিরাকার-রূপে আগমন করি |
হৃদয়ে বসি বিশ্বরূপ, কহিছেন স্বপ্নরূপ,
.        কি রূপে মান রাখিব হে সুন্দরী!   ২২৯
সতি! কিছু আছে হে মনে,---     দরিদ্র কিম্বা ব্রাহ্মণে,
.            কখন বস্ত্র দান দিয়াছ তুমি?
সুখ দুঃখ জয় পরাজয়,           কেবল কর্ম অনুযায়,
.        কর্ম্মই কর্ত্তা,--- কর্ত্তা নই হে আমি ||  ২৩০
কম্ম হ'তেই ছত্র দণ্ড,              কর্ম্ম হতেই প্রাণ-দণ্ড,
.              কর্ম্ম পণ্ড কেবল কর্ম্মগুণে |
কর্ম্মই হন কর্ণধার,                 কর্ম্মই কর্ত্তা ডুবাবার,
.        সাধু প্রণাম করেন সদা কর্ম্মের চরণে ||  ২৩১
কিছু ভগ্নবস্ত্র বিতরণ,        ক'রে থাক--- থাকে স্মরণ,
.             বল আমাকে তবে করি বল |
এসেন যদি ব্রহ্মা হবে,           কার সাধ্য বস্ত্র হরে?
.             ওহে ধনি! দেখাই কর্ম্ম-ফল ||  ২৩২
সতী কন, --- হে চিন্তামণি! কারে কি দিব কূল-রমণী?
.             স্বামীগণে দেন নাই স্ত্রীধন |
প্রাণ সঁপে ঐ পাদপদ্মে,           সদা ভরসা হৃত্পদ্মে,
.             বিপদ-সম্পদে কৃষ্ণধন ||  ২৩৩
কেবল একটা কথা হ'লো স্মরণ,
.                                একদিন হে দীনতারণ!
.                বালিকাকালে জননীরে বাসে |
দুখিনী এক দ্বিজকন্যে,         কিঞ্চিৎ ভগ্ন বস্ত্র জন্যে,
.           প্রার্থনা করেন মোর পাশে ||  ২৩৪
ওহে করুণানিধান!            ছিল যে বস্ত্র পরিধান,
.             অঞ্চলের ভাগ কিঞ্চিৎ চিরে!
তাই কি দিবার যোগ্য হরি?
.                          রোদন দেখি --- রোদন করি,
.              দিলাম দুঃখিনী রমণীরে ||  ২৩৫
তখন, পেয়ে কিঞ্চিৎ উপলক্ষ্,    সেই কথা করিয়া লক্ষ্য,
.        "আর কি ভয়!" --- কহেন দয়াময় |
বংশে প্রবেশ করেছে শনি,       তোমায় করতে বিবসনী,
.             দুরাশা করেছে দুরাশয় ||  ২৩৬
অপরূপ দেখাবার তরে,         বাস ক'রে তব অন্তরে,
.             অনন্ত বাস ল'য়ে থাকলাম সতী!
দেখি,---দুষ্ট দুঃশাসন,         কত পারে লইতে বসন,
.        ক'দিন হরে, কত ধরে শকতি ||  ২৩৭

.                      ****************

তোমায় লজ্জা দিবে, কার মরণের দিবে,
আমার প্রাণের বন্ধু তোমার স্বামী |
তোমার বাসনা পুরাতে, বাস পরাইতে,
গোলোকের বাস হ'তে এলাম আমি ||
আমাকে অপ্রীতি, আমার ভক্ত প্রতি,
দ্বেষ করে,  যে নরক-পন্থাগামী ;---
ধনি! ইষ্ট পূর্ণ হবে, কষ্ট কি সম্ভব?
যারা ভবে কৃষ্ণপ্রেমের প্রেমী ||  (ণ)

.                      ****************   

.                                                                                     
উপরে
.                                               দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

দুঃশাসন কর্ত্তৃক দ্রৌপদীর বস্ত্র-আকর্ষণ   

সভা মধ্যে দুঃশাসন,             করে বস্ত্র আকর্ষণ,
.              যত চায় করিতে মান হত |
যিনি ভবে অদ্বিতীয়,         অমনি বস্ত্র ল'য়ে দ্বিতীয়,
.           সতীর অঙ্গে পরাইছেন দ্রুত ||  ২৩৮
দিতেছেন পীতবাস,                   চিত্র বিচিত্র বাস,
.             যা দেখে নাই সুর নর সমস্ত |
সভামধ্যে শোভাকর,            দেখে লাগে চমত্কার,
.                পর্ব্বত প্রমাণ হইল বস্ত্র ||  ২৩৯
ভ্রান্ত জীবের আকিঞ্চন,              করে করে সিঞ্চন,
.                 প্রার্থনা যেমন সিন্ধু জল!
টানে বস্ত্র ক্রমাগত,                  সপ্তদিন হয় গত,
.              আর পারে না হইল দুর্ব্বল ||  ২৪০

.                      ****************   

.                                                                                     
উপরে
.                                               দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

হিরণ্যকশিপু বধ   

প্রহ্লাদে ডাকিয়া দৈত্য
.                        কহেন বাছা! কহ সত্য,
.        কে তোরে সঙ্কটে করে মুক্ত?
সে কোথায় আছে রে পুত্র!
.                                তাহার নিবাস কুত্র?
.        তুই কিরূপে হ'লি তার ভক্ত?  ১৬৫
প্রহ্লাদ কন জনক!                এ বড় সুখজনক,
.             সুধাইলে সুধামাখা তত্ত্ব |
আছেন কৃষ্ণ সর্ব্বঘটে,    সৃষ্টি স্থিতি লয় ঘটে,---
.             তাঁহার ইচ্ছায় জান সত্য ||  ১৬৬
কেহ নয় তাঁর দূরস্থ,      ব্রহ্মাণ্ড তাঁর উদরস্থ,
.             অন্ত নাই অনন্ত তাঁর নাম |
তাঁর কৃত্য অপরূপ,        জীবের জীবাত্মা-রূপ,
.             নিরাকার নির্গুণ গুণ-ধাম ||  ১৬৭
ব্যাপ্ত তিনি ত্রিভূবনে,       নগর পর্ব্বত বনে,
.             অন্তরীক্ষে কিবা জলে স্থলে |
শ্রবণে কর শ্রবণ,              নয়নে কর নিরিক্ষণ,
.             বদনে বাণী বল তাঁরি বলে ||  ১৬৮
শুনে রাজা রাগে মত্ত,          প্রহ্লাদে সুধান তত্ত্ব,
.             হাতে খরশাণ খড়গ ধরি |
দুরাত্মা! বল দেখি হাঁরে!
.                        এই স্ফটিক স্তম্ভ মাঝারে,
.               আছেন কি না আছেন তোর হরি?  ১৬৯
প্রহ্লাদ কন বচন,          আমার পদ্মলোচন,
.                স্তম্ভেতে অবশ্য আছেন তিনি |
ব'লে বাক্য অসংলগ্ন,      শিশুর সাহস ভগ্ন,
.                উদ্বিগ্ন হইল অমনি ||  ১৭০
কাতরে প্রহ্লাদ কয়,         কোথা হে করুণাময়!
.                করুণানয়নে দাসে দেখ |
হ'লে সঙ্কট পদে পদে,       স্থান দিয়াছ অভয় পদে,
.                এইবার বিপদে প্রাণ রাখ ||  ১৭১

.                      ****************

.        কোথা হে নবীন নীরদ-অঙ্গ |
.        একবার স্তম্ভে অবিলম্বে,
.        দেখা দিয়ে দাসের ভয় ভাঙ্গ হে ত্রিভঙ্গ!
.        বুঝি মরি একান্ত, ওহে কমলাকান্ত!
.        আজি পিতা সনে হইল প্রসঙ্গ ;---
.        যদ্যপি বচন খণ্ডে, তবে ত জীবন দণ্ডে,
.        হরি! হের করুণা অপাঙ্গ ||
আর না সহে, দুঃখ নাশ হে, ---
কোথা দনুজ-ভয় নিবারি! দনুজবৈরঙ্গ!  (ঞ)

.                      ****************

স্তম্ভেতে আছেন রিপু,         শুনি হিরণ্যকশিপু,
.              খড়গ দিয়ে ফেলেন ছেদিয়া |
হরি হরিতে ভূভার,            শ্রীনৃসিংহ অবতার,
.             বাহির হলেন স্তম্ভ দিয়া ||  ১৭২
নবরূপে অর্দ্ধশরীর,      অর্দ্ধ দেহ কেশরীর,
.             ভয়ঙ্কর মূর্ত্তি ভগবান |
চরণ ধরণীতলে,                 শির গগনমণ্ডলে
.             ভয়েতে ভূবন কম্পমান ||  ১৭৩
দৈত্যপতির উপর,           ব্রহ্মার আছিল বর,
.           মৃত্যু নাই রাত্রি-দিবা-ভাগে |
আকাশে না যাবে কায়,
.                        না হবে মৃত্যু মৃত্তিকায়,
.        না যাবে জীবন অস্ত্রযোগে ||  ১৭৪
রাখিতে ব্রহ্মার ধর্ম্ম            সায়ংকালে স্বয়ং ব্রহ্ম,
.            উরুদেশে রাখি দৈত্যশ্বরে |
নখেতে করি বিদীর্ণ,            করিলেন ছিন্ন-ভিন্ন,
.                পুষ্পবৃষ্টি দেবগণ করে ||  ১৭৫
দনুজে করি সংহার,           নাড়ী সব ল'য়ে তার,
.                প্রভু করিলেন হার গলে |
হরিষে হরির নৃত্য,            না হয়, নৃত্য নিবৃত্ত,
.                পদ-ভরে ধরাতল টলে ||  ১৭৬
সশঙ্কিত সুররমণী,            ঘন ঘন ভীষণ ধ্বনি,
.                ত্রাসে গর্ভবতী গর্ভনাশে |
বুঝি হয় সৃষ্টি হরণ!           কে করে রূপ সম্বরণ?
.             সাধ্য কে যায় নৃসিংহের পাশে?  ১৭৭
যুক্তি করি সুরজ্যেষ্ঠ,          প্রহ্লাদে গণিয়া শ্রেষ্ঠ,
.             তারে গিয়ে কহেন অতি দ্রুত |
এ রূপ সম্বরণ জন্য            তোমা ভিন্ন নাহি অন্য,
.               তুমি ধন্য পূণ্যবতী-সুত ||  ১৭৮
দেববাক্য-শ্রুতিমাত্র,               শ্রীনাথের প্রিয়পাত্র,
.                রাজপুত্র ভক্ত-চূড়ামণি |
করিতে রূপ সম্বরণ,             চরণে লইতে শরণ,
.                চলেন চিন্তিয়া চিন্তামণি ||  ১৭৯
বদনে অবিশ্রাম নাম,          পদে পদে করি প্রণাম,
.                কহেন দন্তে তৃণ, চক্ষে ধার |
ওহে করুণা-কল্পতরু!           হে গোবিন্দ! কৃপাঙ্কুর,
.        জন্ম-দোষী জনক আমার ||  ১৮০

.                      ****************

.        চরণাম্বুজ বিতর দীনে |
.        নাথ! নাই গতি তোমা বিনে ||
.        ওহে বিশ্বরূপ! সম্বর হে ভীতাত্ম,
.                হ'য়ে পিতার হিতার্থ,---
.        ডাকি তোমায়, কৃতার্থ কর পদ প্রদানে ||
.        নর-করীন্দ্র-নাশক-রূপধারি! নরাকার্ণবহারি!
.        সম্বর শরীর, সঘনে কাঁপে সুরাসুর,
.        শঙ্কিত সবে রূপ দরশনে ||  (ট)

.                      ****************   

.                                                                                     
উপরে
.                                               দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

কর্ত্তা-ভজার বিবরণ   

.     শ্রবণে সুশ্রাব্য অতি রসজ্ঞ পাঁচালী |
.     প্রণিধান কর কিছু কাব্য কথা বলি || ১
.     নূতন উঠেছে কর্ত্তা-ভজা,
          শুন কিঞ্চৎ তার মজা,
.                সকল হ’তে শ্রবণে বড় মিষ্ট |
.বাল-বৃদ্ধ যুবা-রমনী, নিষেধ মানে না যায় অমনি,
   অন্ধকারে পথ না হয় দৃষ্ট ||২
ইহার ঘোষপাড়াতে পূর্ব্বসূত্র,
.               গোপাল ঘোষের ভ্রাতুষ্পুত্র,
.       সেই উহাদের কর্ত্তার প্রধান |
চারি জন তার আছে চেলা,
.             মদন, সুবল, গোপাল, ভোলা,
.         তারা এখন বড় মান্যমান ||৩
সেই, চারিজন, চারি আখড়াধারী,
.               মন্ত্রণা দিয়ে পুরুষ নারী,
.        ভুলায়ে আনে, বুলায়ে মাথায় হাত |
.ওদের ভোজের ভেল্কী এমনি,
.              সেজে চলেন ঘরের গিন্নী,
.       সিন্নি দিয়ে করেন প্রণিপাত ||৪
কি নীচ কি যোত্র,     সকলেতে হয়ে একত্র,
ঐক্য ক’রে এক পাত্র, শপথ ক’রে বলে |
আর যাবনা কোন পথে, সবে রব এক পথে,
    যা করেন কর্ত্তা কপালে ||৫

.                      ****************

.         হায় ! নূতন উঠেছে কর্তাভজা রে!
.               বড় মজা রে, বড় মজা রে ;---
.   সব কুলবতী যাচ্ছে আপন
.                   ধর্ম্মে দিয়ে ধ্বজা রে!
.   মরি কি মানব লীলা,হরে জ্ঞান তাই হেরিলে,
.            ধর্ম্ম দিয়ে চ’লেছে সং সাজা রে ;---
.      হলে শুক্রবার, ধায় সব অনির্বার,
.    সব রাঁড়ী গুলোর বা’ড় বেড়েছে,
.                এই আজব ধর্ম্ম-বাজারে ||(ক)

.                      ****************


.        যদি কেউ সাধ কর ভাই!
.        কর্ত্তা ভজার দলে যেতে |
.        হবে, যেতে যেতে ছত্রিশ জেতে,
.        জেতে আর হবে না যেতে ||
.  যেতে আর হবে না স্বর্গে,
.              স্বর্গের সুখ এই সংসর্গে,
.  ভুগবে এই উপসর্গে,
.              হতে হবে আধঃপেতে ||(খ)
 
.                      ****************   

.                                                                                     
উপরে
.                                               দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর
*
পাঁচালী     

জগতের কর্ত্তা হরি   

দেখে শুনে বলতে নাই অসম্ভব কথা |
জেনে শুনে যেতে নাই শত্রু আছে যথা ||২৪
মানুষে কি করতে পারে ভগবানের কার্য্য?
রাখালে কি রাখতে পারে সসাগরা রাজ্য?২৫
এমন মান্যকে আছে যে হরি হতে পূজ্য ?
এমন ধের্য্য কার আছে যে ধরা হতে ধৈর্য্য ?২৬
এত শক্তি কার আছে যে ধরে বসুন্ধরা ?
এত সাধ্য কার আছে গণে গগনের তারা ?২৭
এত তৃষ্ণা কার আছে যে সমুদ্র করে পান ?
দেহ ধারনে হয় না দুঃখ এত কে পুণ্যবান ?২৮
এত ভোজ্য কার আছে দামোদরের ক্ষুদা হরে ?
এত দর্প কার আছে যে কালের হাতে তরে ?২৯
এমন দ্রব্য কি আছে যে সুধা হতে মিষ্ট ?
এমন দৃষ্টি কার আছে, হয় শত যোজন দৃষ্ট ?৩০
এমন অস্ত্র কার আছে যে বজ্র করে নাশ ?
এমন বীর কে আছে যে বধে হরিদাস ?৩১
দ্রুতগামী কে এমন যে মনের অগ্রে চলে ?
এমন ফল কে আছে যে বৃক্ষ নইলে ফলে ?৩২
এত বুদ্ধি কার ---করে ব্রহ্ম নিরূপণ ?
কার এত ক্ষমতা খন্ডে কপালের লিখন ?৩৩
কে এমন বৈদ্য  আছে মৃতকে বাঁচায় ?
এমন কে মনুষ্য আছে কর্ত্তা হতে চায় ?৩৪
অসম্ভব কি হয় রে বোকা ?
.              চাঁদের তুল্য জোনাকি পোকা,
.        বাসুকি নাকের ন্যায় হয় কি ঢোঁড়া ?
তুল্য হয় কি গরুড়ে কাকে ?
         মেঘের গর্জন ঢাকে কি ঢাকে ?
.       ঘোড়ার সঙ্গে তুল্য হয় কি ভেড়া ?৩৫
সাধুর কাছে যেমন চোর,
.               হাতীর কাছে বনশূকর,
.         পদ্মফুলের কাছে কি শিমুল ফুল ?
শুকের কাছে কি শকুনির শোভা ?
.           সাগরের কাছে কি সার ডোবা ?
.        গজমতির কাছে কি শোভে কুল ?৩৬
তুল্য হয় না কাঁচ আর হীরে ,
.               গুবরে পোকা সত্যপীরে,
.          সত্য ক’রে বলিলে সত্য হয় না!
অমৃতের তুল্য হয় না বিষ,
.                 জগৎ কর্ত্তা জগদীশ,---
তাঁর কাছে আর কর্ত্তা শোভা পায় না ||৩৭
তবে সে কর্ত্তা কেমন কর্ত্তা শুন বলি ভাই |
সকল ঘরে কর্ত্তা আছে, কর্ত্তা ছাড়া নাই ||৩৮
.                   সে কেমন?---
যেমন, ঢেঁকীশালে কুকুর কর্ত্তা, বনের কর্ত্তা পশু
শ্মশানেতে ভূত কর্ত্তা,   চোরের কর্ত্তা যাশু ||৩৯
গোরস্থানে মামদো কর্ত্তা,  ভাগারের কর্ত্তা দানা
ছাতনীতলায় পেত্নী কর্ত্তা
.                         শেওড়াতলায় গোনা ||৪০
মাঠে ঘাটে  রাখাল কর্ত্তা,  আঁতুরের কর্ত্তা দাই |
যেমন, ভেড়ার গোয়ালে বাছুর কর্ত্তা,
.                           এ কর্ত্তাও তাই! ৪১

.                      ****************

  জগতের কর্ত্তা হরি আর কে কর্ত্তা আছে ভবে
  ভজ তাঁর পদাম্বুজে ভজ রে কেশবে সবে ||
.             যখন আসিবে শমন,
.             ধরিবে কেশে করিবে দমন,
.             বিনা সেই রাধারমন,
.             শমন দমন কে করিবে!
.             নিতাই চৈতন্য গোরা,
.             কেন ভজলি নে তোরা,
.             শালগ্রাম ফেলে নোড়া,
.          পূজিলে তোদের কি ফল হবে? (ঘ)

.                      ****************   

.                                                                                     
উপরে
.                                               দাশু রায়ের মূল পরিচিতির পাতায় চলুন  


মিলনসাগর