কবি নবনীতা দেব সেন-এর কবিতা
www.milansagar.com
*

.             *************************   
.                                                                                            
সূচিতে...   




মিলনসাগর
*
জ্যাজ শুনতে ভালোবাসো, বলো, একটু কফি কিংবা চা----
সব কুঁড়ি মোর ফুটে ওঠে তোমার হাসির ইশারাতে |

কবোষ্ণ গাল্ ফ স্ট্রিমে নৌকো যায় কাশফুলদ্বীপে
ঘরে আসে টেন্ বির স্মৃতিহীন নক্ষত্রের ঢেউ
রাইনের ওয়াইনারি, টিরোলের গ্রামীন আকাশ
গরে সোজা ঢুকে পড়ে ‘এল্ কামিনো রেআল’  সড়ক
সতেরো মাইল স্বর্গ, নিসর্গীয় সিনিক ড্রাইভ্
ঝোড়োহাওয়া বিলি কাটে সাইপ্রাসের ডাইনি কালো চুলে
শ’য়ে শ’য়ে শীলমাছ প্রেমোন্মাদে ঘেউ ঘেউ ডাকে
আদিম অনন্ত শূন্যে ঝাঁপ খায় আলুথালু নায়েগ্রা প্রপাত
প্রত্যেক আটঘন্টা বাদে মেঝে ফুঁড়ে সমুথ্বিত হয়
দুর্নিবার গন্ধক ফোয়ারা, মুহূর্তেই তিনশো ফুট, ফুটন্ত, ধূমল-----

নিজেই নিজের কাঁধে হাত রাখি, বলি  :
বুঝি কালান্তরে যাবে, ছাড়পত্র চাই  ?

.          *************************   
.                                                                                            
সূচিতে...   




মিলনসাগর
*
সব ধুলো খেলা ফেলে দিয়ে
‘দাও, ভালোবাসা দাও’---- বুভুক্ষু চীৎকার ক’রে
ডুকরে কেঁদে দু’হাত বাড়ায়----

সেই শুনে সঙ্গী সাথী পথবাসী কুকুর, কাকেরা
কাড়াকাড়ি খেলা বন্ধ ক’রে
আঁস্তাকুড়ে দু’মিনিট স্থির হ’য়ে থাকে ||

.          *************************   
.                                                                                            
সূচিতে...   




মিলনসাগর
*
কষ,  বেয়ে লাল রক্ত, লালা --- সেই ভাবতেই পৌঁছে গেলুম
---- কোথায় ? না ঠিক তাজমহলের মাঝমহলে !
কিংবা ধরুণ দিলওয়ারার মন্দিরটার গর্ভগৃহে !
কবিমশাই, আপনি যেন মর্মরফুল, সহস্রদল, মার্বেলে ঠিক
আপনি-ফোটা শ্বেতকমলের মতন নরম, কী সাবলীল,
পাথর কুঁদে মর্মরে ফুল ফুটিয়ে তোলা নৈসর্গিক
ক্লেশহীনতায়, সহজ তো নয় |  সহজ তো নন
আপনি,মশাই !  শক্ত অমন সহজ হওয়া |

আপনি যখন সামনে আসেন ঠিক মনে হয়
এই পৃথিবী  পৃথিবী নয় বনজঙ্গল, অন্যগ্রহ----
এই আমি আর এই আমি নই, বনমানুষী,
উদোম, লোমশ, উকুনভরা, হিংস্র, এবং
দাঁত মাজি না |
আপনি থাকেন রেশমী হাসির সূক্ষ্ম জালের অন্তরালে
দূর বিদেশী, গ্রহান্তরে যোজন যোজন দূর থেকে তাই
তাকিয়ে থাকা নির্নিমেষে, নয়ন ভরে, জংলী চারার
যেমন সন্ধ্যাতারার দিকে ধন্য হাসি |

এমনি আপনি সভ্যভব্য, হায় রে পাঠক ! কী ভবিতব্য
বাক্য বলবে সাধ্য কী তার, শূন্যকলস-বাদ্য-বিচার ?
তুচ্ছ পাঠক আত্মহারা, উদ্যত সম্ ভ্রমেই সারা ! দীনাতিদীন !
মাপ করবেন, কবি মশাই ! অভয় দেন তো বকুনি দেই ?
---- কাজ কী এমন সুসভ্যতায় ? অমানুষিক অভদ্রতায় ?
যার তেজে নিষ্প্রদীপ কালো স্বার্থবিহীন নেহাৎ ভালোও,
খাস নিরামিষ ভালোবাসাও ? কবিমশাই,
এবার একটু অসভ্য হোন | এবার একটু অসহ্য হোন |
একটু একটু মনুষ্য হোন ? আর কতদিন ঘিয়ের প্রদীপ
উদ্ভাসিত ননীর মতন পাথর পুষ্প ? পরাগবিহীন ?
অপাপবিদ্ধ পরমশুদ্ধ বীজাণুহীন ?  আর কতকাল
শুভ্র রুমাল নাকমুখে ব্যান্ ডেজের আড়াল ? জৈন মুনিন্  ?
তার চেয়ে হোন তাম্রবরণ, এবার বরং
বাঘের ছালটা আপনি পরুন, এই মুগুরটি
আপনি ধরুন | কবিমশাই, এবার একটু,
গুহায়-টুহায় ঢুকলে হয় না ?  একটু একটু,
অসভ্যতায় খুব কি ক্ষতি ? সংস্কৃতির ?
একটু না হয় নষ্ট সময় শব্দবিহীন অসৌজন্য-----
অরণ্যানীর অন্ধকারেই কাটতো অপার,
কাটতো বন্য --- কবিমশাই, তাকিয়ে দেখুন,
নেহাৎ তুচ্ছ তৃণের গুচ্ছ, অধীন পাঠক------
ইহার জন্য  ?

.          *************************   
.                                                                                            
সূচিতে...   




মিলনসাগর
*
কার সঙ্গে যোগ ?  রত্নাকর,
কী তোমার অর্জিত সঞ্চয় ?
চিনে নাও সাদা আর কালো
অংশভাগ কেউ নেই
এই সারাত্সার |

এবারে নির্ভার পায়ে, ঋষিপুত্র,
মূলে ফিরে এসো, ধ্যানে বসো,
ওই দ্যাখো মরা ডাল-----
ঐকান্তিক পুনরুচ্চারণে
ও-ই হবে অভিরাম  |

গৃঢ় মনোযোগে,
দৃশ্য থেকে স্পষ্ট মুছে দেবে
প্রচন্ড সাষ্টাঙ্গ প্রেমে, একদিন
তোমাকে, বল্মীক | তুমি আর ক্রিয়াকর্ম
জানতেও পাবে না |

তুমি শুধু শ্রুত হবে, অন্তঃশীল প্রাণধ্বনিনাদে
দেবতার উত্সুক শ্রবণে ঠাঁই পাবে |
অশরীরী সুর |

রত্নাকর, কিসের সংসার ?

.          *************************   
.                                                                                            
সূচিতে...   




মিলনসাগর
কে বলে তোমার মতো
“যারে ভালোবাসো তারে
তাই শান্তি নেই |” ---- এ
বিচূর্ণ বিদীর্ণ করে অন্তরা
না-হয় ঝরায় রক্ত, টুকরো
না-হয় সটান্ ছিঁড়ে ফালি
না-হয় গুঁড়োয় অস্থি শূ
তা বলে কি বিনা যুদ্ধে

এত সাধা রাধা-অঙ্গ কে
এত দুঃসাহস কার ? তো
আমার সংসারে বাঁধা চি
প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জন্ম
‘ তোমার আনন্দ কাড়ে
এখন তাকেই ডেকে হেঁকে
নৌকো ডুবু-ডুবু হলো, সু
অন্তত দেখুক ওরা কার
উন্মথিত  
নবনীতা দেব সেন
ছাড়পত্র  
নবনীতা দেব সেন
  
বালভাষিতম্  / শ্রাবণ ১৩৮৫  
নবনীতা দেব সেন
     
মাত্সর্য সঙ্গীত  
নবনীতা দেব সেন
   
বল্মীক  
নবনীতা দেব সেন
   
মকরে কুমিরে
একই মুদ্রা / এপিঠ / ওপিঠ
করে দেবে নিরন্তর
নিঃস্বতা
সব গ্রন্থি
রত্নাকর
কার মন ?