কবি পরেশ ধরের কবিতা
যে কোন কবিতার উপর ক্লিক করলেই সেই কবিতাটি আপনার সামনে চলে আসবে।  www.milansagar.com
*
দুর্ভিক্ষের পাঁচালী     
পরেশ ধর

                  
.                               ( ১ )

ও       ভাই, নিন্দুকেরা রামরাজত্বের নিন্দে করে,
তারা,  রটায় দেশে মানুষ নাকি  দুর্ভিক্ষে মরে  |

.                       লোকে যদি খেতে না পায়
.                        দেশের এত চাল কোথা যায় ?
আহা,  বিদেশ  থেকে আমদানী হয় প্রতি বছরে |
.                        চারিদিকে নাই নাই রব
.                        ওটা শুধু মিথ্যে গুজব
আহা   তাই না শুনে পেটে তোমার ক্ষুধা বিচারে |

.                        আমি বলছি অভাব ত নাই
.                        বলো তোমার চাল কত চাই ?
আহা,   দেড় টাকা সের দাম দিলে চাল উঠ্ বে ঘরে |
.                        কিনতে যদি না পারো ভাই
.                        আমর কোন দোষ তবে নাই
আহা,   আলো করা কালো বাজার খোলা সহরে |

.                        খিদে পাওয়া নয় কিছু আর
.                        ওটা একটা মনের বিকার
আহা,   সেই বিকারে কাঁদছে লোকে ভাতের তরে |
.                        চাল ময়দা যদি না পাও
.                        আরো কত ভোজ আছে----- খাও,
আহা,   লাঠি গুলি বুলেট খেলে পেট তো ভরে |

.                        রাম রাজত্বে খাদ্যাভাবে
.                        কভু না কেউ মারা যাবে
আহা,   হেথা শুধু পূর্ব জন্মের পাপেতে মরে |
.                        গ্রামে গ্রামে মরলো যারা
.                        মরার আগে সবাই তারা
আহা,   ঘাস পাতা খেয়েছে ভাই উদর ভ’রে |



.                             ( ২ )

শোন শোন অভাজন শোন কথা শোন
ত্যাগ বিনা কোন জাতি বাঁচে না কখনো |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


ঈর্ষা যদি থাকে মনের পর ভাগ্য প্রতি
বর্জন করিও তাহা সযতনে অতি |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


ইহকালে যেইজন ভোগেতে কাটায়
জেনো তার পরকাল রসাতলে যায় |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


সর্বপূর্ণ্য সার যদি দুর্ভিক্ষেতে মরো
বৈকুন্ঠ ধামেতে গিয়ে সুখে বাস করো |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


মন্ত্রীগুলি বোকারাম বুদ্ধি কিছু নাই
ওদের মাথায কাঁঠাল ভেঙে পুণ্যি করা চাই
.                                আহা মধুর বচন শোন |


আমরা অনশনে থেকে জীবন বিলাব
ওদের তরে যত পারি মাহিনা বাড়াব |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


আগে ছিল বার মন্ত্রী সংখ্যা বড় কম
হাজার কাজে কেমন করে পাবে তারা দম ?
.                                আহা মধুর বচন শোন |



মন্ত্রী উপমন্ত্রী এবার তিরিশ জনা আছে,
ষোলজনা উপমন্ত্রী চোদ্দ মন্ত্রীর পাছে  |
.                                আহা মধুর বচন শোন |
রাম রাজত্বে হনুমানের দেখ রে ভাই তেজ
যত হনু তার চেয়ে বেশী তাদের লেজ |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


মাইনের চেয়ে জিনিষপত্রের দাম অনেক বেশী
ট্রামে বাসে সিটের চেয়ে লোকের ঘেঁষাঘেঁষি |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশী চাকরীর চেয়ে ছাঁটাই
কাজের চেয়ে কথার বহর অনেক বেশী ভাই  |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


পুরষ্কারের চেয়ে বেশী চোরা ঘুষের জোর
চোরের চেয়ে পুলিশ বেশী কলার চেয়ে থোড়
.                                আহা মধুর বচন শোন |


ঘি’এর চেয়ে চর্বি বেশী সুজির চেয়ে খুদ
চিনির চেয়ে বালি বেশী দেনার চেয়ে সুদ |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


                 তেলের চেয়ে অনেক বেশী শিয়াল কাঁটার রস
কলার চেয়ে বেশী রে ভাই কলাগাছের কস্  |
.                                আহা মধুর বচন শোন |



                 চালের চেয়ে কাঁকর বেশী মধুর চেয়ে গুড়
আটার মধ্যে তেঁতুল বিচির গুঁড়ো যে ভরপুর |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


ভেজাল-ভরা রামরাজ্যে ভেজাল নাহি খাবো
দুর্ভিক্ষে ম’রে আমরা স্বর্গে চলে যাবো |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


তাইতো বলি মন্ত্রীরা যে সবাই বড় ভালো
মোদের ভাল চেয়ে দেশে দুর্ভিক্ষ ছড়ালো |
.                                আহা মধুর বচন শোন |


চোরা কারবার যত আছে বন্ধ করবে তারা
আমরা সবাই ম’রে গেলে ভেজাল কিন্ বে কারা ?
.                                আহা মধুর বচন শোন |


এমনি করে চোরা কারবার বন্ধ হ’য়ে যাবে
দেশে তখন সস্তা দরে সকল জিনিষ পাবে |
,                                আহা মধুর বচন শোন |


শ্মশানভূমি হবে যে দেশ কোন ক্রেতা নাই
চোরাকারবারীরা তখন জব্দ হবে ভাই |
.                                আহা মধুর বচন শোন |



চোরা কারবারীদের বন্ধু মন্ত্রীরা ত নয়
এই কথাটি প্রমাণ আমি ক’রেছি নিশ্চয় |
.                                আহা মধুর বচন শোন |




.                            ( ৩ )

ভাইরে ভাই, সিংহাসনে বস্ লো শকুন মহারাজ
.                        দু হাতে মরণ ছড়ায় এই দেশে |
জমি নিল, ধান নিল, বাস্তু ভিটা নেয় শেষে |


জমিদার চুপে চুপে গোলায় রাখে সোনালী ধান,
.                        এদিকে পেটের জ্বালায় মরে কিষাণ |
আঁধারে নৌকা ক’রে ধানের বোঝা চালান পাঠায়
.                        মুনাফার কালো টাকার কালো নেশায় |
রাখে না খবর কোথায় কার আঁখিজল যায় ভেসে |


মায়েরা দু’চার টাকায় বিক্রি করে পেটের ছেলে,
.                        কেহবা হতাশ হ’য়ে পালায় ফেলে |
ঘরে তে বাসন কোসন ছিল য়ত সব-ই গেছে
.                        কত যে মা বোন তাদের সরম বেচে |
প্রাণে যা স্বপ্ন ছিল পুড়ে গেল নিঃশেষে |


যতদিন শকুন রাজা থাকবে জেনো সিংহাসনে,
.                        ততদিন মরণ বাঁধা এই জীবনে |
এসো আজ এক সাথে ভাই সবাই মিলে রুখে দাঁড়াই,
.                        শকুনি রাজাকে ঐ টেনে নামাই |
শপথের আগুন জ্বালাই নতুন দিনের উদ্দেশে |



.               ******************************************




যে সকল প্রতিষ্ঠান “দুর্ভিক্ষের পাঁচালী” গীতাভিনয় করেন :-

(১) গণনাট্য সংঘ, উত্তর কল্ কাতা গানের দল ( জোড়াবাগান ) |
প্রধানাংশে গীতাভিনয় করেন বিজয়া, অমর (নংকু ) ও কানু | ঢোল বাজান মদন মোহন |
(২) প্রগতিশীল সংস্কৃতি সংঘ (সালকিয়া ) , প্রধানাংশে গীতাভিনয় করেন কৃষ্ণা, ছায়া,বেলা,
পঞ্চানন, মোহিত, সুধাংশু প্রভৃতি | ঢোল বাজান ভোলা গাঙ্গুলী |
(৩) লোক সংস্কৃতি সংঘ | প্রধান অংশে গীতাভিনয় করেন অরুণ, বুদ্ধদেব, পান্নালাল প্রভৃতি |




.                   *************************          
.                                                                                     
পাতার উপরে   
.                                                                      
কবি পরেশ ধরের সূচিতে...     


মিলনসাগর