কবি পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গান
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শিল্পী - হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও অন্যান্য,
ছবি - হংস মিথুন

সূর্যের মতো শাশ্বত হোক পৃথিবীর ইতিহাস
সাগরের মত নির্মল হোক জীবনের বিশ্বাস !
.                মিলন অভয় বাণী
.           পথের পাথেয় মানি
দু’চোখে নামুক নতুন দিনের নির্মেঘ নীলাকাশ !
আগুনের মত কখনো দারুণ
.                                  দীপ্ত দহন দানে
যা আছে বেদনা পুড়ে হোক সোনা
.                                  গহন গভীর প্রাণে ;
.           আলোর বন্যাধারা
.           ভাঙুক অন্ধ কারা
মুক্ত হাওয়ায় হৃদয় নিল যে বুক ভরা নিশ্বাস  !!

.          *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর -  হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শিল্পী - হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়
ছবি - হংস মিথুন

আজ, কৃষ্ণচূড়ার আবীর নিয়ে আকাশ খেলে হোলি
.           কেউ জানে না সে কোন কথা
.                মন কে আমি বলি  !
.      মনের কথা মন যদি কয় মনে মনে
সেই, কথার মায়া জড়ায় কেন নয়ন কোণে
আহা, কিছু শুনি কিছু ভাবি নতুন পথে চলি !
এই সুর-বলাকা মেলে পাখা আপন অনুরাগে
কেন  সে মানেনা সুদূর তাকে ডাক দিয়েছে আগে ;
.       কত যে ডাক ডেকেই চলে পায়না সাড়া
.        দেখা পেয়েও কত দেখা দিশাহারা
তবু        নদীর চোখে সাগর আঁকে  
.                  সাধের জলাঞ্জলি !!

.   
              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - রবীন চট্টোপাধ্যায়, শিল্পী - ইলা বসু

গান ফুরানো জলসাঘরে
.                   অমন করে আর থেকো না
নিভলে রঙিন ঝাড়লন্ঠন
.                   নেভার পরে আর দেখোনা !
.         যত্নে-শেখা অভিনয়ে
.         যে-মন গেছে কথা কয়ে
.         তার কাঁচা রঙ পাকা করে
.                 প্রাণের ছবি আর এঁকোনা !
বাসি মালা ফেলে দিও
.                 কন্ঠ তোমার আরাম পাবে
রাতের নেশা দিনের আলোয়
.                 কাটবে কত সহজ ভাবে ;
পায়ে বেঁধো বাজবে নূপুর
বাঁধলে বুকে পাবে না সুর
দাও গো বিদায় নাও গো বিদায়
.                 নতুন নামে আর ডেকোনা  !!

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - রতু মুখোপাধ্যায়, শিল্পী - নির্ম্মলা মিশ্র

উদাস উদাস দুপুরে ঝরা পাতার নূপুরে
.    ডাহুক ডাকা মাঠ পেরিয়ে একলা যেয়োনা |
কাউকে কিছু না বলে বাতাস ভরে আঁচলে
.    পঙ্খী হয়ে ও সোনা বৌ, উড়তে চেয়োনা !
সোনা বৌ, গাঁয়ের সীমা ছাড়ালে
.    বিজন পথের আড়ালে
.    ওই পাঁজরের পিঞ্জরে মন ফিরবেনা আর হারালে
ডাগর কালো নয়নে  অমন বিনা কারণে
.    নয়নতারা ফুল ফুটিয়ে স্বপ্ন তুমি ছেয়োনা !
সোনা বৌ, ঘরের আগল খুলোনা
.             বাঁশীর ডাকে ভুলোনা
.    ময়ূর-মুখী হাতের বালায় রিনিক্ ঝিনিক্ তুলোনা
ও বাবে গুনগুনিয়ে   যেওনা কিছু শুনিয়ে
.    শুনতে পাবে রসিক ডাকাত ওভাবে গান গেয়োনা  ||

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - মান্না দে

দরদী গো---
.              কী চেয়েছি আর কী যে পেলাম
সাধের প্রদীপ জ্বালাতে গিয়ে
.              নিজেই আমি পুড়ে গেলাম !
সুক নামে শুকপাখীটায় ধরতে গিয়ে
কিনেছি সোনার খাঁচা
.               যা কিছু সব বিকিয়ে
.          সোনার শিকল কেটে দিয়ে হায়
.          সে-পাখী আমার যায় উড়ে যায়
ভাবিনি সেই সে-আশার         এই পরিণাম !
.     ভুল কী সে না-জেনে যাই মাশুল দিয়ে
হিসাবের শূন্য আমার
.               মেলেনি সব হারিয়ে ;
.            ললাট-লিখন লিখে বিধাতা
.            নাম কিনেছেন ভাগ্যদাতা
রাখি সেই দাতার পায়ে        হাজার প্রণাম  !!

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর ও  শিল্পী - মান্না দে

এইতো সেদিন তুমি  আমারে বোঝালে
.         আমার অবুঝ বেদনা
দুটি হাত ধরে আমি      তোমায় বলেছি
.         এ শুধু আমার তুমি কেঁদোনা  ||
তোমার প্রেমের কাছে চিরঋণী করে
আরো কী চেয়েছো দিতে এ-হৃদয় ভ’রে
কণাটুকু তার আমি শুধিতে পারিনি
.         ব্যথা দিয়ে তাই আর বেঁধোনা  ||
অনেক হারাতে হোলো জীবনে তোমার
.         সেই অপরাধে আমি অপরাধী
.         এবার একলা আমি কাঁদি ;
বিদায় নেবার আগে শুধু বলে যাই
তোমার ক্ষমার মাঝে পাই যেন ঠাঁই
স্বরলিপি ভুল করা শেষের এ-গান
.         স্মৃতির বীণায় আর সেধোনা ||

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শিল্পী- রুমা গুহঠাকুরতা, ছবি - বাঘিনী

শুধু পথ চেয়ে থাকা রঙে রঙে ছবি আঁকা
.          কবে তুমি আসবে বলে !
মনে মনে কাছে ডাকা     দুয়ারখানি খুলে রাখা
.          কবে তুমি আসবে বলে !
তোমারি কারণে সাজি        এতো যে সাজে
তবুও হৃদয় কাঁপে              এ- কোন লাজে
সে-লাজ দ্বিগুণ হয়      যদি না আসো
.           মালা মোর জ্বালা হয়ে জ্বলে !
আমি              স্বপ্ন কাজল চোখে আঁকি
.           সে কাজল কলঙ্ক হয়ে যায়
আহা          যদি না আমার দুটি আঁখি
.                      ওই আঁখি পল্লবে মেশে হায় ;
সাধের প্রদীপ আমি             জ্বালায়ে রাখি
সে-আলোয় পথ পানে           চেয়ে থাকি
সে-আলো আগুন হয়           যদি না আসো
.                 নেভেনা সে নয়ন জলে  !!

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর-  হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শিল্পী- মান্না দে, ছবি- বাঘিনী

ও কোকিলা, তোরে শুধাইরে
.         সবারই তো ঘর রয়েছে
কেনরে তোর বাসা কোথাও নাইরে ?
.         বনে বনে দেখিস যখন পরের বাসা ও পাখী,
একটি বারো পরাণটা তোর উদাস হয়ে যায় নাকি
কখনো কি মন বলে না
.          এমনি বাসা একটি আমি চাইরে ?
ভালোবাসা দেখলি শুধু
.          ভালোবাসা বুঝলি না
বুকের মাঝে হারায় যে-মন
.          সে-মনটারে খুঁজলিনা ;
কী সাধ আজো গোপন আছে
.          দিব্যি করে বলনা আমায় ভাইরে !!

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর-  গোপেন মল্লিক, শিল্পী- মান্না দে ও সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়
ছবি - জীবন মৃত্যু

কোনো কথা না বলে
গান গাওয়ার ছলে
এই যে সুরের সাথী জুটলো  তাতে ক্ষতি কী হলো ?
বিনা আমন্ত্রণে আজ চোখের কোণে
ওই যে অবুঝ হাসি ফুটলো তাতে   ক্ষতি কী হলো  ?
আকাশে যে মেঘ ছিল এতো দিন
সে কেন আজ হলো স্বপ্ন রঙিন
আজ তারই বুকে কোন মধুর সুখে
সাতরঙা রামধনু উঠলো তাতে ক্ষতি কী হলো ?
এতো বাঁধন নিল নয়ন দেখে যায় তবু যদি স্বপ্ন
.           তাতে দোষী কে বলো ?
কেউ কি জানে কোন সে দিনে আসবে কখন শুভলগ্ন ?
হার মেনে যদি মেলে রত্ন মালা
জয় করে চাইনা এ-কাঁটার জ্বালা
কিছু পাওয়ার আগে     মধু অনুরাগে
এই যে মানের বাধা টুটলো   তাতে ক্ষতি কী হলো ?

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - রাজেন সরকার, শিল্পী - শ্যামল মিত্র
ছবি - বালুচরী

আমি   তোমার কাছেই ফিরে আসবো
.        তোমায় আবার ভালোবাসবো
.                তুমি কি ডাকবে মোরে
.                চেনা সে নামটি ধ’রে?
.        জীবনের এই পথ আঁকাবাঁকা হয় হোক
.                হোক্ না সে বন্ধুর
ঠিকানা লিখে যাক্        ওই দুটি কালো চোখ
.                এই প্রিয় বন্ধুর
চেনা সে নামটটি ধরে        তুমি কি ডাকবে মোরে?
.        তুমি দিলে সে-কথা        
 পাখী নিয়ে গায়
.        আকাশের নীল স্বপ্নে        আলো হ’য়ে যায় ;
.        পৃথিবীর যত সুখ        
   যত কিছু ভালো তার
.                সব নিয়ে চলে যাই ;
.        দুজনার দুটি মন       
    চিরতরে একাকার
.                এই শুধু বলে যাই!
চেনা সে-নামটটি ধরে        তুমি কি ডাকবে মোরে??

.                 *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর