কবি পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গান
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - রতু মুখোপাধ্যায়,
শিল্পী - মান্না দে

রিম ঝিম ঝিম বৃষ্টি মাটির কানে কানে
কী কথা নিয়ে পড়ে ঝরে ঝরে ;
আমার সারাদিন কি ভাবে কেটে যায়
শুধু তুমি, তুমি, তুমি করে ||
কী করে জুঁইফল জলের উচ্ছাস এভাবে বুকে তার সয়ে যায়,
আমার কানাকানি তোমার মন ছুঁয়ে কি করে জানাজানি হয়ে যায় |
হয় তো এরই  নাম প্রথম ভালোবাসা
কিছু জ্বালা সয় মালা পরে পরে ||
কী ভাবে এ বাতাস যখনই বয়ে যায়
অমনই মনে হয় কে যেন গান গায়  |
কি করে দুটি চোখ অচেনা এত রঙ
না-দেখা এত রূপ দেখে যায়,
যা ছিল স্বপ্নেতে মনের ভাবনাতে
সে ছবি অপলকে এঁকে যায়---
তবু আরও সাধ আরও কী কল্পনা
কাছে এসে এসে যায় সরে সরে ||

.          *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - মান্না দে

ললিতা গো, ওকে আজ চলে যেতে বল্ না |
ও ঘাটে জল আনিতে যাব না যাব না---
ও সখি, অন্য ঘাটে চল্ না ||
দিবালোকে সে আমায় নাম ধরে ডাকে ;
আমাকে সবাই দোষে, সে সাধু থাকে--
অসময় সময় কিছু কেন সে বোঝে না,
আমি কি তার হাতের খেলনা  ||
নিশিরাতে বাঁশি তার সিঁদকাঠি হয়ে
চুপি চুপি ঘরে এসে বাজে রয়ে রয়ে |
যখনই ডাকবে সে তখনই যেতে হবে--
আমি কি এমনতর ফেলনা ||

.          *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - মান্না দে

সুন্দরী গো, দোহাই দোহাই, মান করো না,
আজ নিশীথে কাছে থাকো, না বোলো না ||
অনেক শিখা পুড়ে তবে এমন প্রদীপ জ্বলে,
অনেক কথার মরণ হলে হৃদয় কথা বলে  |
( না না ) চন্দ্রহারে কাজল ধোওয়া জল ফেলো না ||
একেই তো এই জীবন ভরে কাজের বোঝাই জমে,
আজ পৃথিবীর ভালোবাসার সময় গেছে কমে |
( না না ) একটু ফাগুন আগুন দিয়ে না জ্বেলো না  ||

.          *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী - মান্না দে

( আকাশপানে চেয়ে চেয়ে সারারাত জেগে জেগে
দেখেছি অনেক তারার ভীড়
অরুন্ধতী, স্বাতী, সপ্তঋষির খেলা--- সব দেখেছি )

শুধু চাঁদ দেখতে গিয়ে আমি তোমায় দেখে ফেলেছি,
কোন্ জোছনায় বেশি আলো এই দোটানায় পড়েছি ||
বন্ধুরা সব বলে এমনধারা হলে চোখ নাকি আর সরে না,
যদি হঠাৎ এমন করে কারো চোখেতে চোখ পড়ে,
তবে দৃষ্টি না কি ফেরে না |
বলো তাহলে কি আমার এ চোখ নষ্ট আমি করেছি ||
বন্ধুরা সব বলে এমনধারা হলে ঘোর নাকি আর কাটে না,
আমার প্রাণটা জ্বলে মরে মন কেমন যেন করে---
আমার কিছুই ভালো লাগে না |
তাই চিন্তা করে পাইনা বুঝে বেঁচেছি কি মরেছি ||

.          *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - শৈলেন মুখোপাধ্যায়
শিল্পী - মৃণাল চক্রবর্তী

ভুলে থাকার কথা ছিল তোমারই, আমার তো নয়,
কথা রাখার কথা ছিল তোমারই, আমার তো নয় ||
সোনা নদীর কোণাতে ওই কূল ছাপানো লহর এলে
একা তুমি আঁকবে কিছু পূর্ণ চাঁদের প্রহর এলে----
ছবি আঁকার কথা ছিল তোমারই, আমার তো নয় ||
কথা ছিল ভালোবাসায় আসব আমি মালা দিত
তুমি শুধু ডাকবে আমায় অবহেলায় জ্বালা দিতে |
চাঁপা বনের কাঁপা হাওয়া আরও কিছু সরল হলে
অভিমানের যত সুধা ভুলি হাসির গরল হলে---
হাসি ঢাকার কথা ছিল তোমারই, আমার তো নয় ||

.                  *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - সুধীন দাশগুপ্ত
শিল্পী - লতা মঙ্গেশকর, ছবি - শঙ্খবেলা

আজ মন চেয়েছে আমি হারিয়ে যাব----
হারিয়ে যাব আমি তোমার সাথে ;
সেই অঙ্গীকারের রাখী পরিয়ে দিতে
কিছু সময় রেখো তোমার হাতে | |
কিছু স্বপ্নে দেখা, কিছু গল্পে শোনা,
ছিল কল্পনা জাল এই প্রাণে বোনা-----
তার অনুরাগের রাঙা তুলির ছোঁয়া
নাও বুলিয়ে নয়নপাতে ||
তুমি ভাসাও আমায় এই চলার স্রোতে
চিরসাথি রইব পথে |
তাই যা দেখি আজ সবই ভালো লাগে
এই নতুন গানের সুরে ছন্দরাগে---
কেন দিনের আলোর মতো সহজ হয়ে
এলে আমার গহন রাতে ||

.      *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - হেমন্ত মুখোপাধ্যায়,
শিল্পী - লতা মঙ্গেশকর, ছবি - মণিহার

নিঝুম সন্ধ্যায় পান্থ পাখিরা
বুঝি বা পথ ভুলে যায়----
কুলায়ে যেতে যেতে কি যেন কাকলি
আমারে দিয়ে যেতে চায় ||
দূর পাহাড়ের উদাস মেঘের দেশে
ওই গোধূলির রঙিন সোহাগ মেশে ;
বনের মর্মরে বাতাস চুপি চুপি
কি বাঁশি ফেলে রাখে হায় ||
কোন্ অপরূপ অরূপ রূপের রাগে
সুর হয়ে রয় আমার গানের আগে ;
স্বপন কথাগুলি ফোটে কি ফোটে না,
সুরভি তবু আঁখি ছায় ||

.      *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর -  রাজেন সরকার,
শিল্পী - সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়, ছবি - নতুন জীবন

আমি তোমারে ভালোবেসেছি
চিরসাথি হয়ে এসেছি ||
এ লগন পূর্ণ যে তোমাতে
শুভরাত জানে না গো পোহাতে
তোমারই ব্যথায় কেঁদেছি যে হায়
তোমারই হাসিতে হেসেছি ||
তোমার কানে কানে দুটি কথা তাই শুধু বলব,
‘ভালোবাসি, ভালোবাসি |’
প্রণয়ের নীলাকাশে দুটি তারা হয়ে মোরা জ্বলব
‘ভালোবাসি, ভালোবাসি’ |
পৃথিবীকে তাই বলি বারেবার,
মোর চেয়ে সুখী কেহ আছে আর ?
বহু জনমের মিলনসাগরে
আমারা দু’জনে ভেসেছি  |

.      *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - রতু মুখোপাধ্যায়,
শিল্পী - সুমন কল্যাণপুর

দুরাশার বালুচরে একা একা আজও গান গাই,
সাগরের ঢেউ আসে আমি তবু ঘর বেঁধে যাই ||
.        মনে হয় ভাঙনের তীরে
.        আবার এসেছ তুমি ফিরে----
আমার হারানো নাম শুনে আমি চোখ মেলে চাই ||
সযতনে রাখি ফুলমালা ----
মানি না ঝরুক এ ফুল দেখি না কাঁটার ভুল,
লাগে না তো বুকে কোনো জ্বালা |
.       যেখানেই থাকো তুমি শোনো
.       অনুভব রাখি নি তো কোনো-----
আকাশে প্রদীপ জ্বলে অন্তরে আমি আলো পাই ||

.              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, সুর - রতু মুখোপাধ্যায়,
শিল্পী - সুমন কল্যাণপুর

বাদলের মাদল বাজে গুরু গুরু দুরু দুরু মন,
বরষার স্বপ্নে ভিজে কাঁপলো দু’নয়ন ||
আমাকে আমার মাঝে যায় না দরে রাখা,
জানি না খুশির মযূর কোথায় মেলে পাখা---
তা তা থৈ নাচের কি তাল শুনছি সারাক্ষণ ||
হয়তো আমার কথা না শুনে না মেনে আসবে না আর,
তাই তো মনে মনে তোমায় ভেবে ভেবে এই অভিসার |
খেলেছ মেঘের পরে মেঘ জমানোর খেলা,
এল তাই নতুন করে বৃষ্টি ঝরার বেলা-----
কিছুতেই মানবে না মন  ঝরবে অকারণ ||

.              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর ও শিল্পী- হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, ছবি - মন নিয়ে

ওগো কাজলনয়না হরিণী, তুমি দাও না ও দু’টি আঁখি ;
ওগো গোলাপ পাপড়ি মেলো না, তার অধরে তোমাকে রাখি ||
ওগো কাঞ্চনবর্ণা চম্পক মঞ্জরী করো তাকে চম্পকবর্ণা,
এসো উচ্ছল ঝর্ণা অকারণ উল্লাসে হাসি হয়ে তার ঝরে’ পড়্ না ;
ওগো নিবিড় পুঞ্জ মেঘ দিগন্ত হতে এসো মেঘমালা কুন্তল ললনা,
এসো অপরূপ চন্দ্রিমা পূর্ণিমা জোছনা ঝর না আননে তার ঝর্ না |
ওগো মযূর পেখম তোলো না, তার লজ্জা তোমাতে ঢাকি ||
ওগো কুঞ্জ কোকিল এসো পঞ্চম সুর দিয়ে কোকিলকন্ঠী তাকে কর্ না,
এসো অশান্ত সমীরণ দাও দোল দাও ছন্দে ছন্দে তাকে ধর্ না ;
ওগো যৌবনবন্যা লীলায়িত রঙ্গে কানায় কানায় তাকে ভর্ না,
এসো অনন্ত জগতের যত রূপ লাবণি তার রূপে সাধ করে মর্ না |
এসো আমার মনের মাধুরী, তার স্বপ্ন তোমাতে আঁকি ||

.              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর