কবি পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গান
*
কথা-পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর- নচিকেতা ঘোষ,  শিল্পী- মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায়

ও আমার চন্দ্রমল্লিকা বধূ চন্দ্র দেখেছে
যেন কোন শুক্লাপঞ্চমী চোখে স্বপ্ন এসেছে
তার সবুজ পাতা বলে অবুঝ হিয়া ভোলে
ও তার অঙ্গ ভঙ্গিমায় বাতাস ছন্দ রেখেছে---
ও আমার চন্দ্রমল্লিকা---
আমার ভাঙলো দ্বিধা ভয় শুধু রঙ রূপ রাগে
অধর মানলো পরাজয় নতুন আলোর সোহাগে
সেই প্রহর ফিরে এল সেই ভ্রমর দোসর পেল
ও সে পাপড়ি ধরে আজ যেন স্বর্ণ মুখেতে
ও আমার চন্দ্র মল্লিকা---

.              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা -পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়
শিল্পী - তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়

ম্যাগনোলিয়া আর ক্যামেলিয়া ফুল যার খোঁপায় আজ দুলছে লাজে |
তাই প্রতিদিন সঙ্গিবিহীন স্বপ্ন রঙ্গিন তার কাঁকন বাজে ||
জাফরাণী রং আর জংলা শাড়ী এলোমেলো হাওয়া লেগে দুলছে যেন
পথ চলা তার ভয় কেন আর
ভীরু মন চলতে গিয়ে থমকে থমকে দাঁড়ালে কেন
তাই প্রতিদিন সঙ্গিবিহীণ স্বপ্ন রঙিন
ম্যাগনোলিয়া আর ক্যামেলিয়া ফুল যদি মনের কথা বুঝতো,
চলার পথে সে সঙ্গি ছেড়ে পথ হারিয়ে আমায় খুঁজতো |
যার দিন যায় মন যায়, মনে করি বলবো বলবো তবু বলা হয়নি বলা |
চিরদিনই এমনি করেই কত কল্পনা করেছো
তাই প্রতিদিন সঙ্গিবিহীন স্বপ্ন রঙিন ||

.              *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
শিল্পী - তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়,

সোনার নামে নাম দিল কে ও সুন্দরী
রূপের গুণে রূপ হয়েছে অপ্সরী
আহা, মরি-ই মরি-ই  আহা মরি মরি
নীলকন্ঠ পাখীর পালক খোঁপার বাহারে
বিজুলির ঝিলিক লাগে মুক্ত মণিহারে |
ফুলের বনে ফুলশয্যার ফুলপরি, রূপের গুণে---
ময়ূর পেখম মন তোমার নাচে সরমে
পলাশফুলের হাসি তোমার আমার মরমে
নীলপদ্ম নেশার নয়ন আকাশ দেখেছে
উধাও মনের হংস দু’টি স্বপ্ন এঁকেছে
আমায় দেখে জ্যোত্স্নাধারা ভুল করে |
রূপের গুণে রূপ হয়েছে--

.       *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
শিল্পী - তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়

কাজল নদীর জলে ভরা ঢেউ ছলছলে
প্রদীপ ভাসাও কারে স্মরিয়া,
সোনার বরণী মেয়ে বলো কার পথচেয়ে
আঁখি দু’টি ওঠে জলে ভরিয়া |
সাঁঝের আকাশে এত রং কেগো ছড়ালে,
মনের বীণায় এত সুর কেগো ঝরালো |
কারে মালা দেবে বলে অঝোরে বকুল পড়ে ঝরিয়া |
মনের ভ্রমর বুঝি গুঞ্জনে অনুক্ষণে স্মৃতির কলমটিরে ঘিরে,
যে পাখী হারায় নীড় সুদূর আকাশে সে কি আসে কভু ফিরে |
শিউলি জরানো আজি সন্ধ্যার বাতাসে
কে গো সাড়া দিয়ে যায় স্বপ্নের আভাসে
কার লাগি দুলে ওঠে ক্ষণে ক্ষণে থরো থরো এ হিয়া ||

.               *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - নচিকেতা ঘোষ, শিল্পী - দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়

আবার দুজনে দেখা যমুনার কিনারে |
না, না, বৃন্দাবন নয়, নয় ওই ব্রজপুরে |
তার চেয়ে কিছু দূরে কুতুবের মিনারে |
আহা, যাই যাই করে শীত যায় নি,
কোকিলরা সবে গলা সেধেছে----
তখনো কোথাও গান গায় নি |
বাগান সাজান আছে গোলাপের বাহারে |
কুতুবের মিনারে |
পাথরের সিঁড়িগুলো পায়ে পায়ে পেরিয়ে
গোল বারান্দা আসতেই
যাকে আমি খুঁজতাম মনে হলো এই সেই----
.                    ( তুমি সেই, আমি সেই, তুমি সেই---- )
দেখি শহরটা পড়ে আছে নীচুতে,
সবার উপরে আছি আমরা---
হারাইনি কোনদিন কিছুতে, আলোর কবিতা
.                                তুমি জ্বেলে দিলে আঁধারে |
কুতুবের মিনারে |

.               *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
শিল্পী - দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়

ওগো সুন্দরী আজ অপরূপ সাজে সাজো
ওগো সুন্দরী মোর পরান বাঁশিতে বাজো
ওগো সুন্দরী ও রূপ কোথায় পেলেগো
তোমার মাঝেই তুলনা যে তার মেলে গো,
তোমার আমার সেই অভিসার
হবে নাকি বলো আজো |
ওগো সুন্দরী, তোমায় দিয়েছি মন,
তুমি যে আমার রূপসী প্রতিমা
তোমার নেইতো বিসর্জন
ওগো সুন্দরী ঐ রূপের নেই ক্ষয়,
বারবার দেখে আরো দেখি মনে হয়---
মোর প্রাণের ভুবনে স্নিগ্ধ সবুজ বসন্ত হয়ে রাজো |

.               *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - মৃণাল বন্দ্যোপাধ্যায়, শিল্পী - অজয় চক্রবর্ত্তী

ভোর হ’ল বিভাবরী গগনে আলোক লগনে,
হেরি কত শোভা মরি মরি ||
অরুণ আভাতে ভরি আঁখি,
কুঞ্জে গাহিয়া ওঠে পাখী
বেলা বয়ে গেল মেলো আঁখি
মেলো, অলস শয়ন পরিহরি ||
ভাবিনি এমন ঊষা পাবে ,
যা আছে সকলি দিয়ে যাবো,
সোনা মাখা দিনে এসো
পথ চিনে এ আলোতে দু’হাতে নাও ভরি  ||

.        *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - মৃণাল বন্দ্যোপাধ্যায়, শিল্পী - মান্না দে

আমি দুচোখ ভরে ভুবন দেখি,  
মায়ের দেখা পাই না
আমি হাজার গান তো গেয়ে শোনাই
মায়ের গান তো গাই না,
আমি দুচোখ ভরে----
আমি কিতাব খুলে জ্ঞান নিয়ে যাই
কিতাব খুলে জ্ঞান নিয়ে যাই  
ভালোবাসার চেতনা চাই
শুধু মার চেতনায় চেতন আমার
চিনতে তাকে চাই না |
আমি দুচোখ ভরে ---
আমি এই পৃথিবীর মাটি নিয়ে,
করি অনেক যত্ন
ফসল ফলাই ফুলকে ফোটাই,
পাই যে মানিক রত্ন,
করি অনেক যত্ন
আমি শুধু মার প্রতিমার মাটি,
মার প্রতিমার মাটি আমি
জানি না তো কতো দামি,
এই মার মমতার কি ক্ষমতা
মার মমতার ক্ষমতা, বুঝতে আজও চাই না |  
আমি দু’চোখ----

.        *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - মৃণাল বন্দ্যোপাধ্যায়, শিল্পী - মান্না দে

বড়ো ময়লা জমেছে মনে
ময়লা জমেছে মনে, বড়ো ময়লা জমেছে মনে
সব ঘৃণা ভুলে তোমার আঁচলে
মুছে দাও সযতনে | বড়ো ময়লা জমেছে
সময়ের পথে চলে যেতে যেতে
কতো ধূলা লাগে নোংরা জগতে
ছুঁয়ে ফেলি  ধুয়ে ফেলি
তবু থাকে জীবনে | বড়ো ময়লা জমেছে ----
ফেলে দেবো কাকে, কাকে দেবো রেখে
কতো দিন যাবে ধুলো বালি মেখে
করো মা করুণা নিদয়া হয়ো না
কৃপা করো অভাজনে | বড়ো ময়লা জমেছে ---

.           *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর
*
কথা - পুলক বন্দ্যোপাধ্যায়,
সুর - মৃণাল বন্দ্যোপাধ্যায়, শিল্পী - মান্না দে

যখন এমন হয়, জীবনটা মনে হয় ব্যর্থ আবর্জনা
ভাবি গঙ্গায় ঝাঁপ দি রেলের লাইনে মাথা রাখি
কে যেন হঠাৎ বলে, আয় কোলে আয়
আমি তো আছি ভুললি তা কি, মাগো সেকি তুমি, সেকি তুমি,
লাঞ্ছনা শুধু লাঞ্ছনা সজনের কটু গঞ্জনা
দিনরাত শুনে শুনে যখন সারাটা গায়ে, আগুন জ্বলে
কে যেন হঠাৎ বলে ---- সেকি তুমি---
যখন ভালোবাসা বহু পথ ঘুরে ঘুরে চলে যাই দূর থেকে দূরে
বন্ধুর দরজাতে যতো কিছু করাঘাত, যায় বিফলে
কে যেন হঠাৎ বলে--- সেকি তুমি, যখন এমন হয়---

.           *************************      
.                                                                                               
সূচিতে    


মিলনসাগর