১৯৩০ - ১৯৪৬ সাল সময়কালে, অবিভক্ত বাংলার খুলনা জেলার মূলঘর গ্রামের পণ্ডিত কবি
তারাপ্রসন্ন তর্কতীর্থ মহাশয়, যাঁর ছদ্মনাম ছিল বেদ ব্যাস এবং কবি শচীন্দ্রনাথ সেন এর মধ্যে কবির
লড়াইয়ের খ্যাতি গ্রামের সীমানা ছাড়িয়ে বহুদূর ছড়িয়ে পড়েছিল | তেমনই কোন এক বার কবি বেদ
ব্যাস
পাড়াগাঁয়ের মেয়ে কবিতাটি রচনা করেন | যার উত্তরে শচীন্দ্রনাথ সেন রচনা করেন শহরের
মেয়ে
কবিতাটি | শহরের মেয়ে কবিতাটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন |
যাহা খাই ভস্ম হয় মুহুর্ত থাকে না |
দিন রাত শ্রম করি পেটে বাড়ে ক্ষুধা
শাক ভাত যাহা খাই তাহা যেন সুধা |
ধান ভানি চিড়া কুটি ঢেঁকি পার দিয়ে
কলাই মুশুরি ভাঙ্গি জাঁতাটা ঘুরায়ে |
ধনে জিরে পিষে নিই পাটালোড়া ঠেলে
কলসিতে জল আনি নিজে অবহেলে |
এতে মোর নিত্য হয় শরীর চালনা
শরীরে শকতি বাড়ে আলস্য ধরে না |
গোপালন করি আমি নিজে দুধ দুই
ঘন আঠা দুধ খাই দই পেতে থুই |
সর তুলি ঘি বানাই ননী মাঠা খাই
ফেনা ভাতে মেখে প্রাতে বালকে খাওয়াই |
শহরে খাবার খায় বাবুর যেনানা
কিনে এনে বিষ খায় জেনেও জানেনা |
দোকানের বাসি তেলে তৈরী খাবার
শুনে সাধ মিটে গেছে সেথায় যাবার |
বাসায় মেলেনা কিছু সব চিজ কেনা
বাবু এত আয় করে অভাব ঘুচে না |
বাড়ী মোরা করে খাই যাহা দরকারী
রোজ তুলে রোজ খাই তাজা তরকারী |
খেটেখুটে খেয়ে যবে করি গড়াগড়ি
রামায়ণ আদি কত ভাল বই পড়ি |
সময় কাটেনা যার বাসায় বসিয়া
নাটক নভেল পড়ে হাসিয়া রসিয়া |
বিধাতার কাছে তাই এই বর চাই
দিনের খোরাক যেন খেটে খুটে পাই |
পতি আর বিশ্বপতি পদে থাকে মতি
সতত বিভূর পদে এ মোর মিনতি |
**********************
[একটি অনুরোধ - এই
সাইট থেকে আপনার
ব্ লগ্ বা সাইটে,
আমাদের কোন লেখা,
কবিতা বা তার
অংশবিশেষ নিলে,
আমাদের মূল পাতা
http://www.milansagar.
com/index.html

এ দয়া করে একটি
ফিরতি লিঙ্ক দেবেন
আপনার ব্ লগ্  বা
সাইট থেকে, ধন্যবাদ! ]