কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা
*
সময়ের আগে এলে
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

মানুষ ঘুমিয়েছিল, তুমি ছিলে
জাগরণে সময়ের আগে,
শীতের হিমেল হাওয়া বরফের মত
ঢেকেছিল কথা ছিল যতো,
সে কথা মিশরের মমি
জানি তুমি আমি
মানুষ জানেনা

তোমার আকাঙ্ক্ষার কবর ফুঁড়ে
বেড়ে ওঠা মাধবীলতাটি
আজ ফুলে ভরা - সে তোমারি জয়
তুমি জানলেনা,
সময়ের আগে এলে এমনই যে হয়

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
আমরা কবির কাছে কৃতজ্ঞ কারণ এই সব কবিতাই কবি নিজে আমাদের টাইপ করে পাঠিয়েছেন।
*
বসে আছি যার অপেক্ষায়
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

আজও এই সাগরের পাড়ে
সীমাহীন রাতের অন্ধকারে
বসে থাকি যার অপেক্ষায়
সে কি আজ ডেকেছে আমায়
কালের গর্ভ থেকে উঠে আসে
কার আওভান
দেখিনি শুনিনি যাকে তার ডাকে
সারা দেয় প্রাণ
কালের ও পারে গিয়ে দেখা তো
যাবেনা চোখে
চিনে তবু নিয়েছি তোমায়
তুমি সে-ই বসে আছি যার অপেক্ষায়

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
তুমি শহরে থেকোনা
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

তুমি শহরে থেকোনা,
চলো হেঁটে আসি শিশির ভেজা
ঘাসের মাঠে
সেখানে সোনালী সকালে
গড়ে তুলি স্বপ্নের খেলাঘর

তুমি সমাজের কথা লিখনা আর
মানুষের হাতে গড়া - তার সাথে
হবেনা মিল -
ঝিলমিল তারাদের নিচে
কথা বোলো মধু স্বরে
সে কথা স্পর্শ কোরে
রাত্রির বুক
তাকে করবে গভীর
ভেসে আসবে আমার হৃদয়ে
সহস্র আলোক বর্ষ পরে
সে কথা পূর্ণিমার রাতে
রুপালি জ্যোৎস্নার আলো যেন
চুয়ে চুয়ে পরবে
আমার অন্তরে

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
সাধারণ মেয়ে
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

সে এক অতি সাধারণ মেয়ে
কপাট ধরে পথের পানে চেয়ে
তার মন ছিল আনমনা -
চোখ দুটি তার যেন দোয়েল পাখি
মনের ভিতর চলছে ডাকাডাকি
মনের মানুষ এই পথে এসোনা !
তোমায় না দেখে এ ই মন
হলও বড়ই উচাটন
কতো বোঝাই
মন তবু বোঝেনা

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
সাধারণের দাম নেই সমাজে
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

সাধারণের দাম নেই সমাজে
সবাই শুধু অসম্ভবই মজে
অর্থ, শিক্ষা, রূপ ও প্রতিষ্ঠান
মাপ কাঠিটা অনেক উঁচু -
সাধারণের নেই এখানে স্থান

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
কিন্তু সে যে এসেছিল কাছে
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

কিন্তু সে যে এসেছিল কাছে
বলেছিল ভালোবাসি
অদেয় কিছুই থাকেনা তো প্রেমে
তাই শরীর ও করেছি বাসী
আজ যদি সে ফিরে না আসে
কোথায় দাঁড়াব আমি

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
তুমি সমাজের মতো সুচতুর হও
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

তুমি সমাজের মতো সুচতুর হও
নয় এসো রাস্তায় নামি,
সাধারণের জন্য অনেক কঠিন নিয়ম আছে
ভালো যদি থাকতে চাও তো
রাখো নিজের কাছে
তোমার ভালবাসার দান
যে জন তার মূল্য না বোঝে
হৃদয় মাঝে এখনো তার স্থান
অমূল্য এ মানব জীবন
ঈশ্বরের ই দান
তুমি প্রস্ফুটিত গোলাপ যেন
নও কো সাধারণ
খোঁজো তোমার মনের মানুষ
নিজের মাঝে চেয়ে

ওগো ও সাধারণ মেয়ে.

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
মেয়েটা
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

দল বেঁধে সব দেখছে সারাক্ষণ,
কেমন মেয়ের কোমর সরু
কেমন দেহের ভাঁজ,
ইশারায় কাছে ডাকে
রঘু, বিনয়, বান্টি কখনো জয় রাজ
জল আনতে রোজ ই মেয়ে
আড় চোখেতে চায়
আজ বাগানে রঘুর সাথে
কালকে সিনেমায়
সবার সাথে ই ঘোরে মেয়ে
তার যৌবন
এমনি ভাবেই রাস্তায় কেটে যায়
কোথাও একটা বাজবে সানাই
আশায় ছিল মন,
বস্তির এক ধিঙ্গী মেয়ের
বিয়ের ইচ্ছেটাই
মাথায় ঘোরে সারাক্ষণ
দোলের সকাল বস্তি জুড়ে
হই হট্টগোল - রং মেখে সব
সঙ সেজেছে - আয় রে খেলি দোল
মেয়েটা কোই সবাই খোঁজে
সে ই তো মধ্য মনি
মেয়ে কোথায়, রঘু বলে
ডেকে আন এখুনি
মেয়ে এখন শুয়ে আছে
শরীর ভালো নয়
তার পেটাতে বাচ্চা নাকি
সবার মনে ভয়!

রঘু বলে আমার নয় - বান্টি বিনয় জয়
একই কথা বলছে তারা - এ বাচ্চা আমার নয়।

মুচকি হেসে বললে মেয়ে
তোরা বড়ই বোকা
সঙ্গে নিয়ে ঘুরি বলে
করতে দেবো খোকা
এ কাজটা কাজের বাড়ির ছেলের
টাকা দেবে নয়তো যাবে জেলে
আমি গতর ভেঙ্গে খাই
তোদের কাছে টাকা তো আর নাই
তাইতো আজ কাজের বাড়ির ছেলে
টাকা দেবে নয়তো যাবে জেলে।

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
জাগিয়ে দিলে
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

আজ শীতের শেষে ফাগুন মাসে
নেশার মতন হওয়ায় ভাসে
কার বারতা - কাব্য কথা
আমার জীবন মরণ সকল জুড়ে
যে থাকে আজ সে এসেছে ,
আয় রে তোরা কে যাবি আয়
আমার সাথে কদম তলায়
ঝুমকো লতা দুলিয়ে গলায়
আমায় কে ডেকেছে
মধুর স্বরে
তার বলিষ্ঠ হাত জড়িয়ে ধরে
আলিঙ্গনে শরীর জুড়ে ফুল ফুটেছে
সেই যে তুমি লুকিয়েছিলে
আমার মনের মণিকোঠায়
আজ দখিন হওয়ার দোলায় যেন
বাহির হলে -
আজ তোমার রঙে রাঙিয়ে
এ মন জাগিয়ে দিলে

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর
*
লেখনী তোমার কোনোদিন হবেনা কবর
কবি সান্ত্বনা চট্টোপাধ্যায়

তুমি আসবে চিরদিন
মরণের ওপাড় থেকে
অন্তহীন অনুপ্রেরণায়

তুমি আস ফিরে বারে বারে।
নিঃস্বরে কথা বলে যাও
তুমি আসনই শরীরে
তবু দেখেছি তোমায়
পূর্ণিমার রাতে
নতুন প্রভাতে
আর গরীবের ভাতে
তুমি বলনি যে কথা।
রেখেছিলে মনে।
সে কথাও ছুঁয়েছে তার
হৃদয় বিনার
গোপনে গোপনে

তোমার বুক চিরে যত অশ্রু
নীল অক্ষরের স্রোতে করেছে পিছল
আমার চলার পথ
কল্পনায় দেখেছি তোমায়
কবি তুমি আসবে
ফিরে
আসবে কালের গভীরে
আসবে বারে বার
দেহ নাই বা এলো

লেখনী তোমার কোনোদিন
হবেনা কবর।

.           ****************  
.                                                                               
সূচিতে . . .    



মিলনসাগর