কবি শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়ের গান ও কবিতা
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - ভি. বালসারা
শিল্পী - অপরেশ লাহিড়ী

এই জীবন্ত নাটকের নাট্যশালায়
কেউ হাহা হিহি হাসছে,
এই ঘুরন্ত মঞ্চের অন্তরালে
চোখের জলে কেউ ভাসছে ||
রূপকথা নয় তবু রূপকথা মনে হয়,
আছে কত কাহিনির লজ্জা-----
কেউ রাজা হবু আর কেউ গবু মন্ত্রী,
চকমকি বাহারের সজ্জা  |
হাসি আর কান্নার, হৈ চৈ হল্লার
একটানা সুর ভেসে আসছে ||
এই কানামাছি জীবনের ভোজবাজি নাটকের
নায়ক আর নায়িকার গল্প----
হায়, চোখ বাঁধা রয় কারও চোখ থেকে অন্ধ----
শোন সব কাহিনী সেই অল্প |
কেউ আলাদিন সেজে হায় যত সুখ মন চায়
সবটুকু তার খুঁজে পাচ্ছে,
কেউ আলিবাবা হয়ে ভাই হিজিবিজি রাস্তায়
সারাদিন ঘুরপাক খাচ্ছে |
এত ব্যথা পেয়ে মন তবু কেন অকারণ
মনকে ফের ভালোবাসছে ||

.           *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - অনল চট্টোপাধ্যায়
শিল্পী - সনৎ সিংহ

সরস্বতি বিদ্যেবতী
তোমায় দিলাম খোলা চিঠি
একটু দয়া কর মাগো বুদ্ধি যেন হয়
এসব কথা লিখছি তোমায় নালিশ করে নয় |

শুনলে তোমার দুঃখ হবে মাগো
কোন দেশেতে ধান বেশী হয় কোন দেশেতে গম
মনে আমার থাকে নাযে কোথায় হনুলুলু
ভূগোল দেখে তাই মনে হয় বুক-ঢিপ ঢিপ যম
দোষ বলো কার পরীক্ষাতে যদি করি ভয়
এসব কথা লিখছি তোমায় নালিশ করে নয় |

সত্যি কথা বলছি তোমায় মা-গো
গুরুমশাই যখন- তখন কানটা ধরেন এসে
বলেন, পাজী হাডু-ডু-ডু ,কেবল খেলা খেলা
অঙ্ক  ভূগোল ইংরাজীতে গোল্লা খাবি শেষে

শুনলে তোমার দুঃখ হবে মা-গো
অঙ্ক মাথায় ঢোকে নাযে নতুন ধারাপাত
কিলো মিলো হেক্টো-ডেকা ধাক্কা খেয়ে শেষে
লিটার মিটার গ্রাম দিয়ে সব ধুলোয় কুপোকাত
ছোট, মাথায় কত ধরে তাইতো লাগে ভয়
এসব কথা লিখছি তোমায় নালিশ করে নয় |

.           *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - ভূপেন হাজারিকা

আমি এক যাযাবর পৃথিবী আমারে আপন করেছে ভুলেছি নিজের ঘর
আমি গঙ্গার থেকে মিসিসিপি হয়ে ভলগার রূপ দেখেছি
অটোয়ার থেকে অষ্ট্রিয়া হয়ে প্যারিসের ধুলো মেখেছি |
আমি ইলোরার থেকে রং নিয়ে দূরে শিকাগো সহরে গিয়েছি
গালিবের ‘শের’ তাসখন্দের মিনারে বসে শুনেছি |
মার্ক টোয়েনের সমাধিতে বসে গোর্কির কথা বলেছি
বারে বারে আমি পথের টানেই পথকে করেছি ঘর ||
বহু যাযাবর লক্ষ্যবিহীন আমার রয়েছে পণ,
রঙের খনি যেখানে দেখেছি রাঙিয়ে নিয়েছি মন |
আমি দেখেছি অনেক গোলাপ বকুল ফুটে আছে থরে থরে,
আবার দেখেছি না ফোটা ফুলের কলিরা ঝরে গেছে অনাদরে,
প্রেমহীন ভালবাসা দেশে দেশে ভেঙেছে সুখের ঘর |
পথের মানুষ আপন হয়েছে, আপন হয়েছে পর, তাই আমি যাযাবর ||

.                  *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - ভূপেন হাজারিকা

আজ জীবন খুঁজে পাবি ছুটে ছুটে আয় |
আয় মরণ ভুলে গিয়ে ছুটে ছুটে আয়
হাসি নিয়ে আয় আর বাঁশি নিয়ে আয়
আজ যুগের নতুন দিগন্তে সব ছুটে ছুটে আয় ||
আজ ফাগুন ফুলের আনন্দে সব ছুটে ছুটে আয় |
মনের চড়াই পাখিটির বাঁধন খুলে দে
শিকল খুলে মেঘের নীড়ে আজ উড়িয়ে দে
যত বন্ধ হাজার দুয়ার ভেঙে আয়রে ছুটে আয়
সময় ধারাপাতে দেখো নেই বিয়োগের ঘর
চলার পথে পথে পথের বাঁকে নেই তো আপন পর
কি আর পাবি কি আর দিবি আঙ্গুল গুণে কি
লাভের খাতায় হিসাব করে জীবন ভরে কি |
আজ পাওনা দেনা মিটিয়ে দিয়ে আয়রে ছুটে আয় ||
আর ভালবাসার পান্না হীরে কুড়িয়ে নিয়ে আয় |
এই ফাগুন ফুলের আনন্দে সব ছুটে ছুটে আয় ||

.             *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর ও শিল্পী - ভূপেন হাজারিকা

এ কেমন রঙ্গ যাদু
এ কেমন রঙ্গ
ভালবাসা পোড়ায় যে মন
পোড়ে না তো অঙ্গ |

পিরীতির রীতি এমন,
দূরে গেলে কাঁদে যে মন
দু’চোখের কুল ছাপানো
.                ব্যথারই তরঙ্গ।

চুপি চুপি আসা যাওয়া
তারই নাম ফাগুন হাওয়া,
ফাগুনের আগুনে হায়
.                পোড়ে যে পতঙ্গ |

সোহাগের রীতি এমন,
কাছে এলে কি জ্বালাতন
দিবানিশি মন ভোলানো
.                কথারই প্রসংগ ||

.        *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
মূল রচনা ও সুর - ভূপেন হাজারিকা
বাংলা রূপান্তর - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
শিল্পী - ভূপেন হাজারিকা

( শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়ের গানের সংকলন “গঙ্গা আমার মা পদ্মা আমার মা” বইটিতে এই গানটি নেই। গানটি এভাবেই
আমরা সংগ্রহ করেছি অন্যখান থেকে। তাই আমরা সঠিক জানাতে পারছি না যে গানটি আসলে কার রচনা, শিবদাস
বন্দ্যোপাধ্যায়ের না ভূপেন হাজারিকার।  )

সাগর সঙ্গমে সাঁতার কেটেছি কত কখন তো হই নাই ক্লান্ত,
তথাপি মনের মোর প্রশান্ত পসাগরে উর্মিমালা অশান্ত-----
মোর মনের প্রশান্ত সাগরের বক্ষে জোয়ারের নাই আজ অন্তঃ
অজস্র লহরী নব নব গতিতে এনে দেয় আশা অফুরন্ত ---
মোর প্রশান্ত পারের কত মহাজীবনের শান্তি আজ আক্রান্ত
নব নব সৃষ্টিকে দৈত্যদানবে করে নিষ্ঠুরাঘাত অবিশ্রান্ত---
ধ্বংসের আঘাতে দিয়ে যায় প্রতিঘাত সৃষ্টির সেনানী অনন্ত ,
সেই সংঘাত আনে মোর প্রশান্ত সাগরে প্রগতির নূতন দিগন্ত
মোর গভীর প্রশান্ত সাগরের শক্তি ধ্বংসকে করে দিকভ্রান্ত
অগমন মানুষের শান্তির অভিযান সৃষ্টিকামী জীবন্ত |

.        *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - ভূপেন হাজারিকা
শিল্পী- সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

ও কুহু কুহু কুহু ডাকে কোয়েলিয়া,
দুরু দুরু দুরু দুরু কাপে হিয়া
আগুন আগুন আগুন ফাগুন আসেরে
ভ্রমর হাসে কি উচ্ছ্বাসে কি উচ্ছ্বাসে রে
গোলাপ গোলাপ বনে উঠে ফুল ফুটিয়া॥

সবুজ সবুজ পাতায় পাতায়
লজ্জাবতী লতায়
চুপি চুপি রঙ মেশানো বনের টিয়া
আকাশটাকে লাল করেছে কৃষ্ণ চূড়া
রত্নাবলি রাত হয়েছে অপ্সরা॥

লাজুক লাজুক কুমারী ফুল
সরম রাঙা বকুল পারুল
ভীরু ভীরু চোখে তাকায় পিউ পাপিয়া ||

.        *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - অজয় দাস
শিল্পী- সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

ঢেউ তুলে তুলে হয় সাগর নদী,
ফুল গেঁথে গেঁথে হয় মালা
অনুরাগ তাকে বলে ক্ষণে ক্ষণে কেউ
আনমনা করে দেয় যদি॥

মন ছুঁয়ে ছুঁয়ে যায় আশা
কত স্বপ্ন করে যাওয়া আসা
নূতন খুশীর পালা
জীবন সাজায় ডালা
মিলন প্রদীপ জ্বালা
হৃদয়ে সুরভি ঢালা
নিরালা বাসর গড়ে যদি॥

সেই সুরে সুরে বলা কথা
হয়ে যায় গো যদি রূপকথা
চকিতে বাঁশির তানে
লজ্জা রাঙিয়া আনে
গোপনে আকূল প্রাণে
দূরকে কাছেতে টানে
প্রথম ফাগুন হাসে যদি ||

.        *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

মায়াবতী মেঘে এল তন্দ্রা
তুল তুল রাঙা পায়েতে ফুল ফুল বনছায়েতে
পলাশের রঙ রাঙালো কখন
চোখে সে স্বপন আঁকে
গুন্ গুন্ গুন্ গুন্ ফিরে এলো ওই ফাল্গুন
মহুল বনে মৌ দোল দোল দোল দুনয়নে নেই ঘুম ঘুম
ছুন্ ছুন্ ছুন্ ছুন্ নুপূর বাজে কার রুমঝুম্
পথিক মেয়ে হয় চঞ্চল কাঁকন বাজে ঠুন ঠুন ঠুন

.            *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর
*
কথা - শিবদাস বন্দ্যোপাধ্যায়
সুর - ভূপেন হাজারিকা
শিল্পী- ললিতা ধরচৌধুরী

ও ঠাকুর পো,
আমার মাথা খাও
পোস্টাপিসে যাও
তোমার দাদার চিঠি এল কি-না
একটু খবর নাও ||

পাড়ায় পাড়ায় চিঠি বিলোয়
.         পোস্টাপিসের পিওন
আমার কে দেয় না চিঠি
.         পোড়া কপাল এমন
বছর ঘুরে পার হতে যায়
.         বোঝ না কি তাও ?

বিয়া-সাদি করলে না, ভাই
.         বুঝবে কেমন করে
বুঝতে তুমি বউটি তোমার
.         গেলে বাপের ঘরে
দেখে নিতাম এক্ লা তুমি
.         কি করে কাটাও ?

.            *************************  

.                                                                                          
সূচিতে . . .   


মিলনসাগর