কবি সুরবালা ঘোষের কবিতা
*
মৃত্যুর কিছু আগে লেখা একটি কবিতা
কবি সুরবালা ঘোষ

কে জানে কোথা যাব, সে স্থান কেমন পাব
.        কে আছে তথায়?
স্বজন বিরহ দুঃখে, ভুলাইয়া নব সুখে
.        ভরিবে হৃদয়?
বিধূর হৃদয় মোর, আনন্দ অমৃতে ভোর,
.        হবে শান্তিময়?
অবশ্য অবশ্য আছে সে শান্তি আলয় আছে,
.        নহে সৃষ্টি বৃথা ;
কল্পনা করিতে যারে, দর্শ-বিজ্ঞান হারে,
.        কহে ইতিকথা।
অধম মানব জ্ঞান, পায় নাই সেই সন্ধান,
.        কিন্তু আছে, আছে,
নহিলে এ ধর্মাধর্ম স্নেহ প্রেম কর্মাকর্ম
.        সব কি গো মিছে?

.        *************************      
.                                                                               
সূচিতে . . .   



মিলনসাগর   
*
তাপসী-শ্রুবাবতী
কবি সুরবালা ঘোষ

রাজা নহে, ঋষি নহে, দানব, দানব
যক্ষ, রক্ষ, অপ্সর, কিন্নরে নাহি মতি,
বনচারিণীর অতি আশা অসম্ভব,
চাহি দেবরাজে আমি --- সুরপতি।

শুষ্ক এ শরীরে মোর কোন প্রয়োজন
করি না প্রদাহ কেন কাষ্ঠ বিনিময়ে?
দেব সেবা হতে শ্রেষ্ঠ অতিথি পূজন
বদরী হউক সিদ্ধ এ দেহ লয়ে।

অনশনে একাসনে হ’ল যুগ গত,
অতিথি পূজন মাত্র করি এক ধ্যান,
দাহনে দহিছে তনু, চিত্ত পুলকিত,
কোন নারী করে নাই এমন সাধন!

অনন্ত যৌবন লাভ অমর জীবনে,
দেবরাজ-রাণী! পর পারিজাত হার,
চল স্বর্গে বসিবে ইন্দ্রের একাসনে,
শচীর সমান তব স্বর্গে অধিকার,
স্বর্গ ধন্য হবে দেবী! পরশে তোমার!

.        *************************      
.                                                                               
সূচিতে . . .   



মিলনসাগর