কবি তমালিকা পণ্ডাশেঠ-এর কবিতা
যে কোন গানের উপর ক্লিক করলেই সেই গানটি আপনার সামনে চলে আসবে।
*
এ দেশে নোটে ভূষিমাল নয় ভোট কেনে মহাজন
কাঁধে বন্দুক মানেই আর দেশপ্রেমিক নয় --- হাইটেক মস্তান |
যাদের অঙ্গুলি হেলনে এসব ঘটে
যারা কুশীলব---   তারা কোন নীতিবিদ তোমাদের মতে ?
গল্পকার থেকে রাজনীতিবিদদের বিখ্যাত হওয়ার রসদ গরিবী
এরাও দিব্যি বেঁচে-বর্তে আছে----
মিডিয়ার জীবিকা-মৃগয়ায় এরা তো সোনার হরিণ |
আর আমি একজন পূর্ণ বয়স্ক ভালবাসাধীন
যুবক, প্রবাহিত নদীকে ভালবাসছি
সেখানেও মরু-হাত অনুশাসনের ?
কে আগে এসেছে কে বসেছে তীরে-----
অবগাহনে তারই অধিকার ?
যে নারীর ধমনীতে সরযূ-মহানন্দা
সে নারী আমার | এতদিন ভুল খাতে ছিল----
এখন সমুদ্রগামী হবে | সমুদ্র পথে দেখা হতেই পারে তার
দামোদর-রূপনারায়ণের সাথে ---স্বাভাবিক ও অপরীহার্য
সে মিলন | নৈতিকতার সংজ্ঞাও বদলায় সুমনা---- চিন্তাকে সময়োপযোগী
করাই আধুনিকতা | তোমার যত্তসব প্রাচীন ধ্যান-ধারণা |

.                ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
*
বড্ড একঘেয়ে আজকাল
অন্যেরও কিছু চাওয়া আছে
চাওয়ারও আছে কিছু রীতিনীতি
মানুষের কথা ---- সমাজের কথা তোমার কাছে রাজনীতি
মাটির কাছে ---- বাতাসের কাছে----- সূর্যের কাছে-----বৃক্ষের কাছে-----
তোমার যে ঋণ তা অস্বীকার করতে পার কি
আত্মসর্বস্ব ---- দায়িত্ব বোধহীন কিছু চিন্তা ঘিরে আছে
তোমার স্বার্থপর মগজের আশপাশ নিম্মচাপের মেঘের মত
কিভাবে ভুলে যাও আমাকে নিয়ে তোমার আবেগ
.                                             একান্ত ব্যক্তিগত
তার বাইরে অপার পৃথিবী আছে
হাজার দুঃখ যন্ত্রণা আছে----- তার কাছে কত তুচ্ছ
তোমার চাওয়া  | ফুল, পাখি, প্রজাপতি নিয়ে কাব্যের
মামুলি দিন গেছে ধুয়ে মুছে |
দিনান্তে ঘর্মাক্ত কলেবরে যে যুবক ঘরে
ফেরে----- তপ্ত ভাতের থালায়
প্রতীক্ষা জেগে থাকে ---- জানালায় ----- গরাদে-----
ভালবাসারও তো কিছু দক্ষতা যোগ্যতা লাগে
যে দায়বদ্ধ নয় স্বীকৃত সত্যের কাছে
সে কিভাবে প্রেমে দায়বদ্ধ হবে !

.                ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
*
.                                               সহমরণের রাত---
.                         ভন্ড ইচ্ছার অগ্নিগমন |
সমাজ স্বীকৃত অধিকারের হাত যখন আকর্ষণ করে
.                     দৈনন্দিন খাওয়া পরার অভ্যাসে---
তখনই তোমার অস্তিহীন অস্তিত্ব, বেদনাহত মুখচ্ছায়া
.                                  আমার চারপাশে
ব্যক্ত ও অব্যক্ত আকাঙ্খাগুলি মূর্ত হয়ে ওঠে মশারির দেওয়ালে দেওয়ালে
বিপুল বিমুখতা আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে ফেলে--- আমি পাথর হয়ে যাই---
অন্ধকারের মত ভারী নিস্পৃহ খাপে ঢাকা তরবারী
মিশে থাকে বিছানার ছায়ান্ধকারে |
কত বড়ো দ্বিচারিচতা বলো ! না ঘাটের --- না ঘরের |
আমাদের পারস্পরিক সম্পর্কের কোনো আকার নেই
তবুও সম্পর্ক আছে, স্বীকৃত বা অস্বীকৃত
গোপন এবং প্রকাশ্য |  সম্পর্ক এক অনস্বীকার্য
অদ্ভুত বলয়--- মানুষেরও আসার আগে বৃক্ষে বাতাসে,
আকাশ মাটিতে, লতায়-পাতায়
সম্পর্ক ছিল, সম্পর্ক এক আশ্চর্য কোমল গ্রন্থি
আমাদের বেঁধে রাখে সহজ উষ্ণতায় |

.              ******************     
.                                                                                     
সুচিতে...   


মিলনসাগর
তমালিকা পণ্ডাশেঠ-এর কবিতা . . .
তমালিকা পণ্ডাশেঠ-এর কবিতা . . .
তমালিকা পণ্ডাশেঠ-এর কবিতা . . .
আরে রাখো তোমার নীতি ও
নীতি নৈতিকতা ! এসবের ত’             
দাসযুগে --- দাসত্বই নীতি--- প্র   
দাসেদের নৈতিকতা
রাজতন্ত্রে সিংহাসন নিরাপদ
.                                  
.            রাজনীতি নামে প
পথের কাঁটা সরিয়ে ফেলতে--
বন্দী করেছে--- এর কোন্ টা
সুনীতি ? আর এখন ? আ-মো
চিন্তনের মন্থনজাত বেসরকারী
নিরাপত্তা বিক্রী করে একলক্ষ
পিতাস্বর্গ শাজাহানকে
ন্ টা নীতিহীন --- কোন্ টা
মায়াবতী বিস্তার---