কবি হীরেন বসু – জন্মগ্রহণ করেন কলকাতায়। তিনি একাধারে গীতকার, সঙ্গীতকার, কণ্ঠশিল্পী, গল্পকার
ও ঔপন্যাসিক ছিলেন। কবি প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার পর কলকাতার সংস্কৃত কলেজ থেকে
বিদ্যাভূষণ উপাধি লাভ করেন।

তিনি প্রথমে ধ্রুপদ শেখেন রাজেন ঘোষের কাছে, পরে খেয়াল শেখেন নগেন দত্ত, শুকদেব মিশ্র ও মাস্তান
গামার কাছে। কণ্ঠসঙ্গীতের পরিমার্জনা পান ওস্তাদ জমিরুদ্দিনের কাছেও।

হীরেন বসু প্রথম প্রথম গাইতেন
রবীন্দ্রনাথ, দ্বিজেন্দ্রলালরজনীকান্তের গান। পরে নিজেই গান লিখে, সুর
দিয়ে গাইতে শুরু করেন। তিনি “জোর বরাত” (১৯৩১) ছায়াছবিতে নেপথ্যশিল্পী হিসেবে গান গেয়েছিলেন।
তিনি নাট্যাভিনয় এবং নৃত্যেও পারদর্শী ছিলেন।  চলচিত্র  প্রিচালনা  ও  অভিনয় দুয়েরই অভিজ্ঞতা তাঁর
ছিল। তাঁর লেখা গল্প, কবিতা, উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে প্রবাসী, মানসী ও মর্মবাণী, কল্লোল, দেশ, অমৃত,
দীপালি প্রভৃতি পত্রিকায়।

১৯২৯ সালে তাঁর “সুরের ডালি” নামে এক গীত-সংকলন প্রকাশিত হয়। তাঁর অন্যান্য গীত সংকলনের মধ্যে
রয়েছে “ধূপধুনা”, “গীতসরিতা” প্রভৃতি।

আকাশবাণী কলকাতার আদিপর্ব থেকে তাঁর যোগাযোগ ছিল গায়ক ও প্রযোজক রূপে। এই.এম.ভি. (হিজ
মাস্টার্স ভয়েস), কলম্বিয়া, ও মেগাফোন এর মতো গ্রামোফোন কোম্পানির সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ ছিল বিভিন্ন
সময়ে।

তিনি প্রায় দেড় হাজার গান লিখে গিয়েছেন। তাঁর "শেফালি তোমার আঁচলখানি" এবং "শঙ্খে শঙ্খে মঙ্গল
গাও" গান জনপ্রিয়তার নিরিখে উল্লেখনীয়। এই রেকর্ডটিতেই প্রথম অর্কেস্ট্রা ব্যবহৃত হয়।

আমরা
মিলনসাগরে  কবি হীরেন বসুর কবিতা তুলে আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে পারলে এই
প্রচেষ্টার সার্থকতা।


উত্স --- স্বপন সোম, গানের ভিতর দিয়ে ১, ১৯৯৮   


কবি হীরেন বসুর মূল পাতায় যেতে এখানে ক্লিক করুন।   



আমাদের ই-মেল -
srimilansengupta@yahoo.co.in     


এই পাতা প্রথম প্রকাশ - ২৬.০৪.২০১৫
...