গণসঙ্গীতকার কবি মেঘনাদের কবিতা
*
অনেক রক্তের বিনিময়ে, অনেক ত্যাগের বিনিময়ে
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া
রচনা -- আগষ্ট,  ১৯৯৪

অনেক রক্তের বিনিময়ে, অনেক ত্যাগের বিনিময়ে
.               পেয়েছি আমরা স্বাধীনতা
প্রায় পঞ্চাশ বছর তবু ঘুচলো না তার অধীনতা ||
খাদ্য সবার কথা ছিল কর্ম সবার কথা ছিল
শিক্ষা স্বাস্থ্য বাসস্থানের সুরাহা হবার কথা ছিল
পড়লো না ভাত কেন সবার পেটে, জুটলো না কাজ কেন সবার হাতে
.             গৃহহীন, শীর্ণ, নিরক্ষরতা ||
স্বনির্ভরতার কথা ছিল      সম্পদশালিনীর কথা ছিল
নৈতিকতার কথা ছিল       অধিকার সুবিচার কথা ছিল
.             আজও কেন ভিখ্ মাগি ধনীর দ্বারে
.             আমাদের ধন কেন পরের ঘরে
.             নীতিহীন অনাচার পাশবিকতা ||
রক্ষক কেন ভক্ষক হ’ল, শাসন ত্রাসে দেশ শ্মশান হল
দেশপ্রেম আর দেশসেবা আজ শুধু রইল মুখের কথা |
.            পুণ্যবস্তু পণ্য হল ভ্রষ্ট কর্ম নিয়ম হ’ল
.            খুন রাহাজানি পেল আইন ছায়া ||
ভারত আবার জগত সভায় শ্রেষ্ঠ হবার কথা ছিল
ধনধান্য পুষ্পভরা সুজলা সুফলা কথা ছিল
.            কোটি মেহমতি ঘরে বেকারী ক্ষুধা
.            ঋণের বোঝায় দেশ নত মাথা
.            অগ্রগতি মুখের কথা ||
শপথ নিলাম ওগো ভারতমাতা
করবো না নত আর মোদের মাথা
ভুলিনি আমরা রক্ত ত্যাগের দান
ঘুচাবো আমরা অধীনতা ||

.             ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
ও সোনা নদী রে
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া
রচনা - ১৬ই ডিসেম্বর,১৯৮৫

.              ও সোনা নদী রে
.              আঁকাবাঁকা পথে পথে
.              চলো আপন মনে |

( তোমার ) দুকূল সোনাহীরায় ভরা
.              শাল মহুলের সবুজ ঘেরা
.              তবু দেখি ক্ষুধার জ্বালা
.              আঁধার পরান রে ||
.                     তোমার সন্তান কালো সোনা
.              ভিটাছাড়া বোবা কালা
.              দানব এলো বন্ধ হলো
.              মাদল দোলা রে ||
( একদিন )  তোমার বুকে ঢেউ-এ বন্ধু
.              জেগেছিল লক্ষ বাহু
( আজ )     নিথর চোখে দেখো শুধু
.              মরণ খেলা রে ||

.             ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
চটকদারী বিজ্ঞাপনে
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া
রচনা--৩১শে জানুয়ারী , ১৯৯৪

চটকদারী বিজ্ঞাপনে
.            হরেক কথা ভুলো না
মিঠে কথা রঙের খেলায়
.            দাবীর কথা ভুলো না
এ যে রঙ মাখানো ছলচাতুরী
.            মন ঘোরানোর ছলনা ||

টিভিতে দেখো নাচে ললনা
.            কতই তাদের ছলাকলা
মিথ্যে কথা ষোলআনা
.            গেলে পুত্র কন্যা
ভাবে ঘর বাপ মা আমার কেন
.            এমন হল না
হিরো হিরোইন মতো
.            মনে হয় না ভারতীয়
অঙ্গভঙ্গী আর নৃত্য
.            ভাদ্র মাসের কুকুর মতো ||
রোষের আগুন নিভায়
.            জাগায় ভোগের কামনা
.        ছেলে মেয়ের পড়াশুনা
.        ব্যাঘাত করার এক ছলা
.        পরিবারের গল্প গুজব
.         বন্ধ করার এক কলা
ভাবের মিলন না হলে ভাই
.         ঘরের ঐক্য হবে না ||

.          পড়লে বই করলে চিন্তা
.         বাড়লে মোদের চেতনা
.         বাড়লে মনের চেতনা তা
.         দেশের মালিক চাইবে না
চায় যে নদীর পথ ঘোরাতে
.         এটা কি বোঝ না ||

.         অন্যভাবে বাঁচতে চাওয়া
.         এটা মোদের অধিকার
.         যেটুকু ভাই পেয়েছি তা
.         নয়রে দয়া দানের ভার
তাই রোষ দেখাতে ঘরের জিনিসপত্র
.         ভেঙো না ||

.         দেশের মালিক যা করে বলে
.         চোখ বুজে তা মেনো না
.        “কেন” প্রশ্ন রেখো মনে
.         দুহাত তুলে দিও না  ||
কষ্টিপাথর না ঘষে ভাই
.         কাউকে মাথায় তুলো না
.         ছবি বাক্সে যা কিছু করে
.         হাঁ করে তাই গিলো না
.         কঠোর শাসন করো মনেরে
.         টুপি মাথায় পরো না
বাঁচার লড়াই প্রতিদিনই
.                 এটা ভুলো না

.             ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
ঝড়ের দিন যুদ্ধ দিন
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া
(   ফ্যাসীবাদ যুদ্ধে বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তিতে   )   
রচনা--  ৩১শে মে ১৯৯৫

.           ঝড়ের দিন যুদ্ধ দিন
.           স্তালিনগ্রাদ বিজয় দিন
.            আজও নয় আজও নয়
.                  নয় মলিন |
তপ্ত বঙ্গভূমিতে মানুষের শোণিতে
রুদ্ধশ্বাস মৃত্যুতে জেনেছি এক সত্যকে
সাম্রাজ্যশাহী ফ্যাসীবাদ রুখতে গড়ো স্তালিনগ্রাদ ||
দখলগ্রাস অত্যাচার জাতিদম্ভ অবিচার
গেষ্টাপোর অনাচার শিখিয়েছে ওরা এই বিচার
সাম্রাজ্যশাহী ফ্যাসীবাদ রুখতে গড়ো স্তালিনগ্রাদ ||

হিটলার তেজো মুসোলিনি
.    বিশ্ব এদের রঙ্গভূমি
হত্যা ক্ষমতা এদের বাণী
.    এর প্রতিরোধে বিশ্বধ্বনি
সাম্রাজ্যবাদ ফ্যাসীবাদ রুখতে গড়ো স্তালিনগ্রাদ ||

লালসেনা আর শান্তিদল
.     শহীদ আবালবৃদ্ধ জন
সারা বিশ্বের জনগণ আর
স্তালিন শিক্ষা মোদের বল

সাম্রাজ্যশাহী ফ্যাসীবাদ রুখতে গড়ো স্তালিনগ্রাদ ||

.             ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
এসেছে সময় আবার হাঁকো
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া


এসেছে সময় আবার হাঁকো
.                 ভারত ছাড়ো ভারত ছাড়ো
নতুন রূপে বিদেশী শাসন আবার এলো ||
এই ডাকেতে একদিন ছিল ভারত উত্তাল
শহীদ রক্তে ভারত ভূমি হয়েছিল লালে লাল |
বৃটিশ শাসন দণ্ড ভারতে কেঁপেছিল থরো থরো
.                  ভারত ছাড়ো, ভারত ছাড়ো ||
দুই শ বছর বৃটিশ শাসনে আমরা সয়েছি কত
পরাধীনতার লাঞ্ছনা আর অপমান কতশত
জেনেছি আমরা প্রাণের চেয়েও স্বাধীনতা দামী বড়ো ||
.                  ভারত ছাড়ো, ভারত ছাড়ো ||
স্বাধীনতা রক্ষার ভার নিল যারা ভাই কাঁধে
আপন স্বার্থে গাটছড়া বাধে বিদেশী শোষক সাথে
খাল কেটে তারা আনছে কুমীর করতে শোষণ আরো
.                  ভারত ছাড়ো, ভারত ছাড়ো ||
ইংরেজ গেল মার্কিন এলো গ্রাস করে দুনিয়ারে
সাহায্য নামে গরীব দেশের সম্পদ লুঠ করে
মুক্তিকামী মানুষ মারতে অস্ত্র করে সে জড়ো
.                   ভারত ছাড়ো, ভারত ছাড়ো ||
যতই দেখাক অস্ত্র ডলার  হারে জনতার কাছে
চীন আর ইন্দোচীনের শিক্ষা দুনিয়ার মনে আছে
৪২-কে স্মরণ করে আবার সে হাঁক ছাড়ো ||

.                   ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
ওমা ও তুই আর কান্দিস না
স্বপন দাসাধিকারী সম্পাদিত যুদ্ধ জয়ের গান থেকে নেওয়া

ওমা ও তুই আর কান্দিস না
.                 তোর কান্না আমার আর যে সয় না ||
চোখের জল চোখে শুকায় মেঘ তো না
.                  কঠিন আকাশ, কঠিন মাটি, ধূলির কণা ||
রত্নগর্ভা তুই ছিলি মা, অঙ্গভরা হীরা পান্না
.                  সন্তান ছিল আমোদ সুখে দুখ অচেনা
.                  এখন তাদের ভাষায় আছে ভরপুর কান্না ||
মাঠে বইতো সবুজ বন্যা     গতর চিকন কালোসোনা,
.                  সকাল সাঁঝে কলের বাঁশির মধুর বাজনা
সব যে হল ধূসর নীরব মৃত্যুর ধরণা !!

( তোর ) স্নিগ্ধ চোখে আগুন জ্বাল মা
.           বাজা মা তোর রণের শিঙা
.           কোটি কড়া হাতে অস্ত্র তুলে না
.            রক্তধারার পিছে আসবে সুখের বন্যা ||

.                   ***************  
.                                                                                
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর