কবিয়াল রাইগোপাল দাম-এর গণসঙ্গীত
*
ও ভাই কৃষক ও ভাই শ্রমিক
কথা ও সুর - কবিয়াল রাইগোপাল দাম
সুব্রত রুদ্র সম্পাদিত গণসংগীত সংগ্রহ কাব্যসংকলন থেকে নেওয়া।

১৯৫০ সালের দাঙ্গার সময় রচিত।


ও ভাই কৃষক ও ভাই শ্রমিক
.                দস বেঁধে সব রুখে দাঁড়া।
নাগিণী তুলেছে ফণা, স্বভাব ধর্মে মানুষ মারা॥
.                কালো বর্ণ জাতি সাপ,
.                ফোঁস করে দেখায় প্রতাপ।
.                ভয় করিলে পাবে না মাফ
.                                পেছন দিকে করে তাড়া।
ধর্মের নামে ডাক ছাড়ে, দেয় মাঝে মাঝে অঙ্গ ঝাড়া॥

.                স্বার্থের নেশায় রক্ত চুষে
.                টাকা দিয়ে দালান পুষে।
.                বাধা পেলে দ্বিগুণ রুষে
.                                লেজের উপর হয় খাড়া।
মুখ দিয়ে তার ঝরে পড়ে, সাম্প্রদায়িক বিষের ধারা॥

.                দেশকে বিষাক্ত করে।
.                সেই বিষেতে গরীব মরে,
.                হাসি ফুটে ধনীর ঘরে।
.                                আহ্লাদে হয় মাতোয়ারা।
গরীবে গরীব মারে, দংশনেতে জ্ঞান হারা॥

.                কালো সাপের এমনি খেলা॥
.                এ সাপ সাদা সাপের চেলা।
.                ভিন্ন দেখায় রংয়ের বেলা
.                                অভিন্ন ভাব কাজের দ্বারা।
সাপের তোষণ বিভেদ দাঁত ভেভে, বাঁচতে হবে গরীব যারা॥

.      
            ************************       
.                                                                          
সূচীতে . . .    




মিলনসাগর
*
যারা দেশের দরদী
কথা ও সুর - কবিয়াল রাইগোপাল দাম
সুব্রত রুদ্র সম্পাদিত গণসংগীত সংগ্রহ কাব্যসংকলন থেকে নেওয়া।

পাকিস্তানে কমিউনিস্ট পার্টি যখন বেআইনী ঘোষিত হয়, সেই সময় রচিত।


যারা দেশের দরদী
তাহারা মরেছে দূরে দেখা পাই যদি॥
মনের কথা জানাইতাম,
.        দেখলাম না আজ অবধি॥
.        কত শত নেতা হল স্বাধীনতার পর
.        অখ্যাত কুখ্যাত কত হল মাতবর,
দেশপ্রেম নাই দুই রত্তিভর, তারা পেল মস্ নদি॥

দেশের লাগি বুকের রক্ত দিয়েছে যারা,
তারা হল দেশের শত্রু ঘর বাড়ি হারা,
গরীবের দুঃখ বুঝতে কারা, নাই তাদের প্রতিনিধি॥

জোর করিয়া দেশ দরদী দেশেতে যে দল,
গরীবগণের চামড়া নিয়া বাজায় মাদল,
জীবন নৌকা পড়তেছে তল,
.                শোষণের ভরা নদী॥

.                  ************************       
.                                                                          
সূচীতে . . .    




মিলনসাগর
*
কৃষকেরে বাড়াতে কয় উত্পাদন
কথা ও সুর - কবিয়াল রাইগোপাল দাম
সুব্রত রুদ্র সম্পাদিত গণসংগীত সংগ্রহ কাব্যসংকলন থেকে নেওয়া।


কৃষকেরে বাড়াতে কয় উত্পাদন,
কেমনে উত্পাদন বাড়ে, জানে না কি বন্ধুগণ।
উত্পাদন বাড়াতে হলে জোগান দিতে হবে তার,
.        চাষের গরু বীজধান লাঙ্গল
.        কৃষি ঋণ বৈজ্ঞানিক সার,
ঠিক সময় করলে ব্যবহার
.        জমিনে বাড়ে ফলন।
দশ টাকা মন ইউরিয়া, আশী টাকা হয়েছে
বিনা পয়সার অষুধের দাম চল্লিশ টাকায় উঠেছে,
কেরোসিনে প্রেম করেছে,
.        হয় না আর পোকার মরণ।
উত্পাদনে ব্যয় করিতে, টাকার সংকট ঘুচে না।
জমিনের নাই মালিকানা, ত্রুটিপূর্ণ ঋণ বণ্টন।
কৃষকের উত্পন্ন ফসল যখন বেচে বাজারে,
উত্পাদন দাম পায় না তার, খরচ পোষাইতে নাড়ে,
কৃষক ঠকে বারে বারে,
.        বাড়িতেছে ধনীর ধন।

.               ************************       
.                                                                          
সূচীতে . . .    




মিলনসাগর
*
আর কত দিন ঘুমিয়ে রবে
কথা ও সুর - কবিয়াল রাইগোপাল দাম
সুব্রত রুদ্র সম্পাদিত গণসংগীত সংগ্রহ কাব্যসংকলন থেকে নেওয়া।


আর কত দিন ঘুমিয়ে রবে, বাংলাদেশের কৃষকগণ
শোষকেরা লুট করে খায় ফাঁকি দিয়ে অনুক্ষণ।
.        স্বাধীনতার সুফল যত,
.        করে তারা কুক্ষিগত,
.        তোমাদের করে বঞ্চিত,
.                বাড়াইতেছে ধনীর ধন।

চাষীরা রক্তে মাটি জলে,
বাংলা দেশের ফসল ফলে,
শোষক শ্রেণীর যাঁতাকলে,
.        বাঁচে না চাষীর জীবন।
.        কৃষকের আশা মনেতে,
.        উত্পাদন বৃদ্ধি করিতে,
.        পারে না তার যোগান দিতে,
.                ঘুচে না অভাব অনটন।

জোঁকে জানে রক্ত খেতে।
জানে না সে রক্ত দিতে,
বাঁচতে হলে করতে হবে
.                সংগঠন আর আন্দোলন।

.               ************************       
.                                                                          
সূচীতে . . .    




মিলনসাগর
*
ভূমিহীন কৃষকের ভাগ্যের পরিবর্তন হল না
কথা ও সুর - কবিয়াল রাইগোপাল দাম
সুব্রত রুদ্র সম্পাদিত গণসংগীত সংগ্রহ কাব্যসংকলন থেকে নেওয়া।


ভূমিহীন কৃষকের ভাগ্যের পরিবর্তন হল না।
কেমন করে বাঁচতে পারে ভাই বন্ধুগণ বল না॥
পরাধীন আমলের মতন পরের জমিন্ চাষ,
চাষ করিয়া বর্গা দিয়া কষ্ট বারো মাস,
স্বাধীনতার শীতল বাতাস, তাদের গায়ে লাগল না॥
জমির মালিকানা স্বত্বে কৃষকের নাই অধিকার,
হালে গরু বীজধান লাঙ্গল সব কিছু চাষার,
মালিক---ফসল বোনা ফসল কাটার,
.                খরচের দায় রাখল না॥
যাদের গুণে খাদ্য ফসল উত্পাদন দেশে,
ঋণে বন্ধ মাথা নত শোষণ নাগপাশে,
উত্পাদন বাড়িবে কিসে,
.                কেহ ভেবে দেখল না॥
শোনরে ভাই গরীব চাষী খেত মজুরের দল,
বাঁচার দাবি নিয়ে এবার লড়াই করি চল,
চনতে পারবে আসল নকল,
.                শোষণ-কারীর ছলনা।

.               ************************       
.                                                                          
সূচীতে . . .    




মিলনসাগর