.   ঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃঃ


বৈষ্ণব পদাবলী নিয়ে মিলনসাগরের ভূমিকা
       
নরহরি চক্রবর্তীর কবিতা বা পদাবলীর মান দ্বিতীয় শ্রেণীর কি না, তাঁর কবিতা বিদ্যাপতি-চণ্ডীদাসের তুল্য
কি না বা
জ্ঞানদাসের কাব্যের মানের কাছাকাছি কি না, এই সব গূঢ় তাত্ত্বিক তর্ক-বিতর্কের আলোচনায়  
উনিশ ও বিংশ শতকের বাংলার পদাবলী সাহিত্য সরগরম হয়েছিল! সেসময়ের বিভিন্ন গ্রন্থকারের লেখা  
পড়লেই তা বোঝা যায়। কিন্তু মিলনসাগর এ বিষয়ের অতি সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম তত্ত্বকথায় যেতে আগ্রহী নয়! তাই
এই আলোচনা আমরা এখানে করছি না।

আমাদের ভূমিকা, উত্কর্ষের নিরিখে বৈষ্ণব পদাবলীর বিচার করা নয়। আমাদের ভূমিকা পদকর্তাদের  
যতগুলি সম্ভব পদ একত্রে এখানে প্রকাশ করায়। বৈষ্ণব পদকর্তা ও সংকলকগণ যে আজীবন কঠোর   
পরিশ্রম  করে এই বিশাল সাহিত্য বাঙালীকে এযুগে উপহার দিয়ে যেতে পেরেছেন, আমরা  মিলনসাগরে  
তাঁদের সবাইকে আমাদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও নমস্কার জানাই।

আমরা প্রতিটি পদে, সেই পদটির উত্স-গ্রন্থের নাম উল্লেখ করেছি। একাধিক ক্ষেত্রে একাধিক রূপে পাওয়া
একই পদ একত্রে তুলে দিয়েছি  তুলনার জন্য।  সংস্কৃত ভাষার  পদগুলির বাংলায় অনুবাদ বা
ব্যাখ্যা, হাতে পেলেই তুলে দেওয়ার চেষ্টা করেছি।