কবি অন্য আমি - তিনি জন্মগ্রহণ করেন পশ্চিম বঙ্গের বর্ধমান জেলার কুলটি শিল্প নগরীতে। পিতা
স্বর্গীয় হিরন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়, মাতা শ্রীমতী কল্পনা বন্দ্যোপাধ্যায়। কবির এক বোন, কবিই বড়। কবির
আসল নাম ইন্দ্রনীল ব্যানার্জী। তিনি শুরুতে “ধ্রুবতারা” ছদ্মনামে লিখতেন।

পিতা ছিলেন কুলটি তে অবস্থিত
IISCO-র কর্মচারী। চাকরির সাথে সাথে তিনি অভিনয়ও করতেন।  
প্রফেশনাল অভিনেতা ছিলেন, পূর্ণাঙ্গ নাটক, একাঙ্ক নাটক ও যাত্রায় অভিনয় করতেন। তাঁর বিশেষ  
জনপ্রিয়তা ছিল নাট্য ব্যক্তিত্ব হিসেবে। সারা বাংলা একাঙ্ক নাটক প্রতিযোগিতায় দুইবার সেরা অভিনেতা
হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছিলেন। তিনি স্মারক গ্রহণ করেছিলেন
উত্পল দত্ত মহাশয়ের হাত থেকে ১৯৮৪ ও
১৯৮৬ সালে। তাঁর খুব ইচ্ছে ছিল পুত্র কবি ও তাঁর বোনকে দিয়ে অভিনয় করবার, কিন্তু তাঁরা দুই ভাই
বোন বেশ কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেও চূড়ান্ত অসফল হন। তাঁদের এই বিষয়টা হিরন্ময় বাবুকে আহত
করেছিল সেই সময়ে। কবির মা শ্রীমতী কল্পনা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক হয়েও রক্ষণশীল
পরিবারে বিবাহের পরে স্কুল শিক্ষিকার চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়ে ঘর সংসারে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

কবি অন্য আমির পড়াশোনা কুলটিতেই।  বিজ্ঞান নিয়ে  উচ্চমাধ্যমিক  পাশ করে  মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং
পড়তে শুরু করেন। পিতার কর্মসংস্থায় লক আউট হয়ে যাওয়ায় কলেজের তৃতীয় বর্ষে তিনি ইঞ্জিনিয়ারিং
পড়া ছেড়ে দেন এবং ১৯৯৬ সালে সেনা বিভাগে কনস্টেবল পদে যোগদান করতে বাধ্য হন। চাকরিতে যোগ
দেবার  পূর্বেই কবি স্নাতকতার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরবর্তীকালে কমিশন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বর্তমানে
তিনি  সুবেদার মেজরের পদে কর্মরত। এক সন্তানের পিতা কবি অন্য আমি, বিবাহিত জীবনে নিজেকে সুখী
বলে  দাবী করেন।

কর্মজীবনে সৈনিক এই কবিকে ভারতের বিভিন্ন জায়গায় কর্মসূত্রে ঘুরতে হয়েছে। চাকরি জীবনে জম্মু  
কাশ্মির, মনিপুর, আসাম, নাগাল্যান্ড, ছত্তিসগড় এ দীর্ঘদিন নিযুক্ত ছিলেন। দেশের হয়ে বিদেশেও তাঁকে  
পাঠানো হয়েছে। কবি, বিভিন্ন বীরত্মসূচক পুরস্কার ও মেডেলে সম্মানিত হয়েছেন, যার মধ্যে রয়েছে পশ্চিম
আফ্রিকায়  ইন্টারপোল এর সাথে দুটি সফল মিশন সম্পন্ন করার জন্য তদানিন্তন রাষ্ট্রসংঘের জেনারেল
সেক্রেটারি ওয়ান কি মুন (বান-কি-মুন) দ্বারা
UN মেডেল। এ ছাড়াও কবির অন্যতম উপার্জন তাঁর ভারতীয়
সেনাবাহিনীর “সেবা পদক” ও”উত্কৃষ্ট সেবা পদক” মেডেলে ভূষিত হওয়া। আফ্রিকায় মিশনের দিনগুলি খুব
কষ্টকর ছিল সেটা বলা বাহুল্য। ভীষণ রকমের অসুস্থ হয়ে পড়া সত্তেও মিশন সফল করে বিদেশের মাটিতে
জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে দেশে ফিরে আসা কবির জীবনের এক পরম গৌরবের মুহূর্ত ছিল।

এ হেন সৈনিকের কবিতার জগতের সঙ্গে পরিচয় আরও তাগে থেকে। ছোট বেলা থেকেই ডাইরি লিখতেন।
উচ্চমাধ্যমিক পড়ার সময় থেকেই তাঁর কবিতা লেখা শুরু হয়। শুরুতে “ধ্রুবতারা” ছদ্মনামে লিখতেন। এখন
“অন্য আমি” ছদ্মনামেও লিখছেন। তাঁর বিভাগে বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত বিভিন্ন ম্যাগাজিনে আমার তাঁর  
লেখা হিন্দি কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। বাংলা ছাড়া তিনি হিন্দি ও ইংরাজিতেও কবিতা লেখেন। তবে  
বাংলায় কবিতার পাশাপাশি ছোট গল্প, ভ্রমন কাহিনী,  লতিফা, হাইকু ছাড়া তাঁর রচনা সম্ভারে রয়েছে  
তিনটি উপন্যাসও। ভারত ও বাংলাদেশের বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় তাঁর লেখা প্রকাশিত হয়েছে। কবির বলতে
দ্বিধাবোধ নেই যে বিভিন্ন কারণে তা সেটা অর্থনৈতিক অথবা  সাহিত্য জগতে প্রকাশকদের কর্মকান্ডের প্রতি
তীব্র অনীহা থাকার কারণে এ যাবৎ নিজের একক বই প্রকাশ করতে তিনি আগ্রহ প্রকাশ করেন নি।  

তাঁর প্রিয় কবিদের মধ্যে রয়েছেন
নজরুল ইসলাম, শামসুর রহমান, নির্মলেন্দু গুন, মুন্সী প্রেমচাঁদ,  
সুমিত্রানন্দন পন্থ,
হরিবংশ রায় বচ্চন, পাবলো নেরুদা, শার্ল বোদলেয়ার, ভ্লাদিমির মায়াকোভস্কি, সিলভিয়া
প্লাথ, টি এস এলিয়ট, চার্লস ডিকেন্স।

সৈনিকের পেশায় লেখালেখি, সম্পূর্ণ বিপরীত মেরুর একটি বিষয়। কবি নিজেকে নিজের মধ্যে বাঁচিয়ে  
রাখতে, কলম কাগজকে ধরে রাখতে বাধ্য হয়েছেন। নিজের ভেতরের “অন্য আমি” কে বাঁচিয়ে রাখার এই
প্রচেষ্টা কতদিন অব্যাহত  থাকবে সেটা সময় ছাড়া আর কেউ বলতে পারবেনা।

মিলনসাগরে  আমরা কবি অন্য মনের কবিতা তুলে আনন্দিত।





কবি অন্য আমির মূল পাতায় যেতে এখানে ক্লিক করুন



উত্স -  ইমেলে যোগাযোগ।


কবির সঙ্গে যোগাযোগ -
ইমেল -
indronilb9@gmail.com     





আমাদের ই-মেল -
srimilansengupta@yahoo.co.in     


এই পাতা প্রথম প্রকাশ - ১১.১১.২০১৯।
...