আমরা  মিলনসাগরে  কবি বিপ্লবী বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের কবিতা তুলে আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে
পারলে এই প্রচেষ্টার সার্থকতা। এই পাতা, সেলুলার জেলে দুঃসহ বন্দী জীবন কাটানো স্বাধীনতা সংগ্রামী
বিপ্লবী কবি বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের প্রতি মিলনসাগরের শ্রদ্ধার্ঘ্য।



উত্স -   
  • বারীন্দ্রকুমার ঘোষ, "দ্বীপান্তরের কথা", ১৯২০।   
  • উল্লাসকর দত্ত, "আমার কারা জীবনী", ১৯৩৭।    
  • হেমচন্দ্র কানুনগো, "বাংলায় বিপ্লব প্রচেষ্টা", ১৯২৮।
  • মদনমোহন ভৌমিক, আন্দামানে দশ বছর, ১৯৫৮।
  • যোগেশচন্দ্র বাগল, "মুক্তির সন্ধানে ভারত", ১৯৪০।
  • উপেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়, "নির্বাসিতের আত্মকথা", ১৯২১।
  • উমা মুখোপাধ্যায় ও হরিদাস মুখোপাধ্যায়, "শ্রীঅরবিন্দ ও বাংলায় বিপ্লব", ১৯৭২।
  • তারিণীশঙ্কর চক্রবর্ত্তী, “বিপ্লবী বাংলা (১৭৫৭-১৯১২)”
  • নলিনীকিশোর গুহ, “বাংলায় বিপ্লববাদ", ১৯২৯।
  • সুপ্রকাশ রায়, "ভারতের বৈপ্লবিক সংগ্রামের ইতিহাস", ১৯৪৯।  
  • সৌমেন্দ্র গঙ্গোপাধ্যায়, "স্বদেশী আন্দোলন ও বাংলা সাহিত্য", ১৯৬০।
  • উমা মুখোপাধ্যায়, "স্বদেশী আন্দোলন ও বাংলার নবযুগ", ১৯৬১।
  • চিনময় চৌধুরী, "রাজরোষে আদালতের আঙিনায়", ১৯৬২।  
  • নলিনী দাস, "স্বাধীনতা সংগ্রামে দ্বীপান্তরের বন্দী", ১৯৭১।
  • উইকিপেডিয়া ওয়েবসাইট।
  • নলেজ.এনিপারস্যুট.অর্গ ওয়েবসাইট।
  • Cellular Jail - Andaman & Nicobar Islands.        
  • Nangla Political Dacoity Case, National Archives, www.abhilekh-patal.in    
  • সেলুলার জেলে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নামের ফলকের ছবি  www.cabaltimes.com
  • সেলুলার জেলে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নামের সূচি   www.literacyparadise.com
  • বাংলা পত্র-পত্রিকার বর্ণানুক্রমিক তালিকা বৈদ্যুতিন অনুলিপি, অনুশীলন.অর্গ


কবি বিপ্লবী বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের মূল পাতায় যেতে এখানে ক্লিক করুন



আমাদের ই-মেল -
srimilansengupta@yahoo.co.in     


এই পাতার প্রথম প্রকাশ - ২৩.২.২০২১                                                            ^^ উপরে ফেরত   
...
কবি বীরেন্দ্রচন্দ্র সেন -     অগ্নিযুগের স্বাধীনতা
সংগ্রামীদের অন্যতম। তিনি জন্মগ্রহণ করেন অসমের
শিলং-এ।  পিতা  কৈলাশচন্দ্র  সেন।  তাঁদের  নিবাস
ছিল অধুনা  বাংলাদেশের   সিলেট  জেলার  অন্তর্গত
বানিয়াচং-এ। কবির ছোট ভাই সুশীল সেন। তিনিও আলিপুর ষড়যন্ত্র মামলায় ধরা পড়েন। তাঁর ৭বছরের
কারাবাসের শাস্তি ঘোষণা হয়। কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টে তাঁর সাজা মুকুব করে দেওয়া হয়।  তবুও  তিনি
একুশ মাস আলিপুর জেলে কয়েদ ছিলেন। ছাড়া পেয়ে গেলেও কবির ভাই বিপ্লবী সুশীল সেন, ১৯১৫ সালের
২রা মে তারিখে, পুলিশের সঙ্গে এক বাদবিতণ্ডায় প্রাণ হারান। কবির ব্যক্তিগত পরিচয় সম্বন্ধে এই তথ্যটুকু
আমরা পেয়েছি নলেজ.এনিপারস্যুট.অর্গ ওয়েবসাইট এবং উইকিপেডিয়া থেকে। সেখানে কবির ভাই সুশীল
সেনের জন্মের সাল দেওয়া রয়েছে ১৮৯২। তাই আমরা কবি বীরেন সেনের জন্মের সাল আনুমানিক ১৮৯০
ধরছি।

কবি কলেজে পাঠরত অবস্থাতেই, ১৭ বছর বয়সে আলিপুর ষড়যন্ত্র মামলায় গ্রেফতার হন এবং ১৯০৯  
সালে, বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের ৭ বছর দ্বীপান্তরে সশ্রম কারাদণ্ডের সাজা  হয়। তাহলে তাঁর জন্মের সাল দাঁড়ায়
১৮৯২ খৃষ্টাব্দ  তাঁকে  ১৯১০  সালে  
কালাপানি-তে  অর্থাৎ আন্দামানের  সেলুলার  জেলে স্থানান্তরিত করা
হয়। ৪ বছর পরে ১৯১৪ সালে  তাঁকে  কলকাতায় ফেরত এনে ১৯১৫ সালে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু
তাঁকে আরও ৪ বছর অন্তরীন করে রাখা হয়েছিল।

পোর্টব্লেয়ারের সেলুলার জেলের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নামাঙ্কিত শ্বেতপাথরের ৪ নম্বর ফলকে (ছবিতে দ্রষ্টব্য)
১৯০৯-১৯২১ সালের কারাবরণকারীদের মধ্যে তাঁর নাম
BIREN SEN লেখা রয়েছে।  

বীরেন্দ্রচন্দ্র সেন-এর  নাম  আমরা  পাই  ১৩২৮  বঙ্গাব্দের  (১৯২১খৃ)  সাপ্তাহিক “তরুণ ভারত” পত্রিকার  
সম্পাদকের ভূমিকায়।  এই  ব্যক্তি  আমাদের  অনুমানে, এই পাতার  বিপ্লবী বীরেন্দ্রচন্দ্র সেন  ভিন্ন আর
কেউ নন। ১৯১৯ সালে, কলকাতায় তাঁর উপর ব্রিটিশ সরকারের নজরদারী-পর্ব শেষ হয়। সুতরাং তিনি
১৯২১ সালে তরুণ ভারত পত্রিকার সম্পাদনার কর্মভার গ্রহণ করতেই পারতেন।

১৯৪২ সালে তাঁকে পুনরায় গ্রেফতার করা হয় “ভারত ছারো আন্দোলন”-এ অংশ গ্রহণ করার জন্য এবং
সেবার তিনি ১০ মাসের কারাবরণ করেন।


আমরা জানিনা  বিপ্লবী  কবি  বীরেন্দ্রচন্দ্র  সেন  নিজে  কোনও  আত্মজীবনীমূলক  বা  অন্য  কোনও  গ্রন্থ
লিখেছিলেন কি না। কেবল তাঁর ১টি মাত্র কবিতা আমরা খুঁজে পেয়েছি।  আমাদের সংগ্রহে থাকা সেকালের
বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় তাঁর লেখা কোনও কবিতা খুঁজে পাই নি।  যদি কেউ আমাদের কবির একটি ছবি এবং
তাঁর  সম্বন্ধে  আরও  তথ্য  দিয়ে  সাহায্য  করেন  তাহলে আমরা তাঁর কাছে চিরকৃতজ্ঞ থাকবো এবং এই
পাতায় তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করবো
।  

কবির সঙ্গে সেলুলার জেলে বন্দী অন্যান্য স্বাধিনতা সংগ্রামী  
কবি বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের কবিতা   
কবির সঙ্গে সেলুলার জেলে বন্দী অন্যান্য স্বাধিনতা সংগ্রামী -                   পাতার উপরে . . .   
কবি যে সময়কালে বন্দী ছিলেন সেলুলার জেলে, সেই সময়ে অন্যান্য যাঁরা সেই জেলে বন্দী ছিলেন, তাঁদের
মধ্যে রয়েছেন . . .

অবনীভূষণ  চক্রবর্তী,  অবিনাশ  ভট্টাচার্য্য,  অমৃতলাল  হাজরা,  আশুতোষ  লাহিড়ী,  অশ্বিনীকুমার  বসু,
বারীন্দ্রকুমার ঘোষ,  ভূপেন্দ্র নাথ ঘোষ, বিভূতিভূষণ সরকার, বিধুভূষণ দে, বিধুভূষণ সরকার, বীরেন সেন
(আমাদের  এই  পাতার কবি,  কবির  নাম  সেলুলার  জেলের  ৪ নং ফলকে “
BIREN SEN” দেওয়া রয়েছে),
ব্রজেন্দ্রনাথ দত্ত,  গোবিন্দচন্দ্র কর, গোপেন্দ্রলাল রায়,  হরেন্দ্র ভট্টাচার্য্য, হেমচন্দ্র দাস (কানুনগো), হৃষিকেশ
কাঞ্জিলাল, ইন্দুভূষণ রায়,  যতীন্দ্র নাথ নন্দী,  জ্যোতিষচন্দ্র পাল, কালিদাস ঘোষ, খগেন্দ্রনাথ চৌধুরী ওরফে
সুরেশ চন্দ্র,  কিনুরাম পাই  ওরফে  প্রিয়নাথ,  ক্ষীতিশচন্দ্র সান্যাল,  মদনমোহন  ভৌমিক,  
নগেন্দ্রনাথ চন্দ,
নগেন্দ্রনাথ সরকার, ননীগোপাল মুখার্জী,  নিখিলরঞ্জন গুহ রায় (২য়বার ১৯৩২-৩৮), নিকুঞ্জবিহারী পাল,  
নিরাপদ রায়,  ফণীভূষণ রায়,  পুলিনবিহারী দাস,  শচীন্দ্রনাথ দত্ত,  শচীন্দ্রলাল (নাথ) মিত্র, সানুকুল চ্যাটার্জী,  
সতীশচন্দ্র চ্যাটার্জী (ভট্টাচার্য্য), সত্যরঞ্জন বসু, সুধীরচন্দ্র দে,  সুধীরকুমার সরকার,  সুরেন্দ্রনাথ বিশ্বাস,
সুরেশচন্দ্র সেনগুপ্ত, ত্রৈলোক্য চক্রবর্তী, উল্লাস্কর দত্ত, উপেন্দ্রনাথ ব্যানার্জী প্রমুখরা।

আমরা নামগুলি যেভাবে  সেলুলার জেলের  ফলকে  দেওয়া  রয়েছে, ঠিক সেইভাবেই তুলে দিলাম, অর্থাৎ
ইংরেজী  বর্ণক্রমে।  সেলুলার  জেলে  বন্দী  সকল   স্বাধীনতা  সংগ্রামীদের  নামের  ফলকগুলি  দেখতে  
কাবালটাইমস ওয়েবসাইটের
এই লিঙ্কটিতে ক্লিক করুন . . .

আন্দামানের পোর্টব্লেয়ার শহরে অবস্থিত সেলুলার জেলে, বাংলা থেকে মোট ৩৯০ জন (একটি
RTI থেকে
জানা যায় এই সংখ্যা ৩৯৮) সাজাপ্রাপ্ত স্বাধীনতা সংগ্রামীদের মধ্যে আমরা এই কবির নাম পাই। ১৯০৯-
১৯২১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামীদের মধ্যে (সেলুলার জেলে কবির নামাঙ্কিত শ্বেতপাথরের ফলকটির ছবি
দেখুন)। কবির নাম এই ৪নং শ্বেতপাথরের ফলকের শেষ নাম। পাশে দেওয়া ছবিতে ক্লিক করলে তা বড়
হয়ে ফুটে উঠবে। সেই ছবির নীচে কবির নাম দেখতে পাবেন। সম্পূর্ণ তালিকা
দেখতে  লিটারেসিপ্যারাডাইস ওয়েবসাইটের
এই লিংকটিতে ক্লিক করুন . . .
*
কবি বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের কবিতা -                                                      পাতার উপরে . . .   
কবি বীরেন্দ্রচন্দ্র সেনের একটি মাত্র কবিতা আমরা পেয়েছি, কবির সেই মামলারই স্বতীর্থ বিপ্লবী হেমচন্দ্র
কানুনগোর, ১৯২৮ সালে প্রকাশিত “বাংলায় বিপ্লব প্রচেষ্টা” গ্রন্থের ষষ্ঠ পরিচ্ছেদের ৮৬-পৃষ্ঠা থেকে।
কবিতাটির প্রথম কলি “তুমি যদি হ'তে ব্যর্থ মরুভূ ঊষর”। কবিতাটি তিনি লিখেছিলেন আলিপুর বোমা
মামলার সময় বন্দীদশায় আলিপুর জেলের একটি কুঠরীর মেঝেতে খোদাই করে।
*