কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - রবীন চট্টোপাধ্যায়
শিল্পী- হেমন্ত মুখোপাধ্যায়
ছবি - ইন্দ্রধনু

যদি কোনোদিন ঝরা বকুলের গন্ধে হও তুমি আনমনা,
জেনো ওগো গরবিনী, সে নহে সুরভি,
সে মন গো এই মিলন তিথির কামনা  ||
রাত জাগা এক পাখি
হয়তো সেদিন হারানো সাথীরে কাঁদিয়া ফিরিবে ডাকি-----
সে নহে কূজন, সে যেন গো এই মিলন তিথির কামনা ||
উতলা মাধবী রাতে স্মৃতি যদি ব্যথা আনে
( তুমি ) কেঁদো না গো অভিমানে |
যদি কোনো অবসরে
কিছু ব্যথা আর কিছু গান নিয়ে বাতাস বিলাপ করে---
সে নহে রোদন, সে যেন গো এই মিলন তিথির কামনা ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
কবি গৌরিপ্রসন্ন মজুমদারের গান
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর ও শিল্পী- হেমন্ত মুখোপাধ্যায়
ছবি - স্বরলিপি

যে বাঁশি ভেঙে গেছে তারে কেন গাইতে বল ?
কেন আর মিছেই তবে সুরের খেয়া বাইতে বল ?
আজ সোনার খাঁচায় বন্দী পাখির কন্ঠে যে সেই সুর,
আজ যেন সেই বনের ছায়া সে তো অনেক দূর |
তাকে হারিয়ে যাওয়া ফাগুনেরে ফিরে কেন চাইতে বল ?
একদা সুরে সুরে দিত যে হৃদয় ভরে
দেখ তার গানের বীণা ধূলায় পড়ে |
আজ সব হারানোর নীরব ব্যথায় কাঁদে গো যার প্রাণ,
বলো ওগো কেমন করে গাইবে সে তার গান |
মিছে ফাগুন বেলার হাসিতে তার সুরের ভুবন ছাইতে বল ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- হেমন্ত মুখোপাধ্যায়
ছবি - ইন্দ্রাণী

সূর্য ডোবার পালা আসে যদি আসুক বেশ তো----
গোধূলির রঙে হবে এ ধরণী স্বপ্নের দেশ তো ||
তারপর পৃথিবীতে আঁধারের ধূপছায়া নামবেই
মৌমাছি ফিরে গেলে জানি তার গুঞ্জন থামবেই ;
সে আঁধার নামুক না, গুঞ্জন থামুক না---
কানে তবু রবে তার রেশ তো ||
তারপরে সারারাত দু’জনেই একা একা ভাববো----
হৃদয়ের লিপিকাতে কে যেন লিখেছে এক কাব্য |
জোনাকিরা দীপ জ্বেলে আমাদের সাথে রাত জাগবেই,
দু’টি প্রাণে চুপে চুপে নতুন সে সুর এক লাগবেই ;
জোনাকিরা জাগুক না, প্রাণে সুর লাগুক না-----
চাওয়াতে পাওয়াতে হবে শেষ তো ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়

এলো না সে তো এলো না, তাই ডুবুরি ডুবুরি মন
ডুবেও মুক্তা পেল না | মন পেল কি না পেল ----নাই পাক |
এখনি তখনি যখনই ভাবি না মন পাব কিনা পাব,
মেনেও মানি না জেনেও জানি না,ভুলে যাব কিনা যাব
চোখের ঝিনুকে ব্যথার মুকুতা শুধু ঝরে যেতে চায়, একন কি করি উপায় |
মন পেল কি না পেল ---- নাই পাক |
কি ছিল কি আছে, কি হবে কি রবে, কারে ডেকে আর বলি,
কে জানে কে মানে কি ব্যথা এ প্রাণে,  একি জ্বালাতে যে জ্বলি,
ফণীর মনে কি মেলে গো কখনো বিষে দেহ জ্বলে যায়, এমন কি করি উপায় ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়

নীলাঞ্জনা রে, এই মধুর নাম,
একি আমার বধূর নাম না কিসের নাম
আমি জানি না, ওরে নীলাঞ্জনা রে,
একি পাখির নাম, না ফুলের নাম
না নদীর নাম ---- আমি জানি না |
তার আকাশ আকাশ চোখ
যখন নালাঞ্জনে নীল, আমার ছন্দ দোলা
আহা পায় রে খুঁজে মিল, ও নীলাঞ্জনা রে |
ওরে পাখি নয়, নদী নয়, ফুল নয়, তারা নয়
তবে সে কি তাকে তবু যে ডাকি, নীলাঞ্জনা রে |
যখন জোনাক জোনাক রাত
দূরে নীল তারাদের ভিড়, তার চোখের তারার ওই
কত স্বপ্ন বাঁধে নীড়, ও নীলাঞ্জনা রে |
আহা নাম তার যাই হোক, তার দু’টি নীল চোখ
চেয়ে যে দেখি তাকে তাই তো ডাকি ----- নীলাঞ্জনা রে |
তাকে মধুর নাম ধ’রে, আমার বধূর নাম ধরে,
আমার দেয়া এ নামে তোমায় ডাকব নীলাঞ্জনা গো ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- তরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়

বেশ তো না হয় সপ্তঋষির অস্ত যাওয়ার প্রহরে হাওয়া,
কথাগুলো সব ক্লান্ত হবে, তবুও তুমি আমারই রবে |
বেশতো না হয় হাসনুহানার গন্ধ ছড়ানো আবেশ ভরানো
এই যে রাত্রি বিদায় লবে, তবুও তো তুমি---
তবুও জানো কি জানো না ফুলেরই এ মালা কি হবে না ভুলেরই সে জ্বালা
হয়ত দ্বিধায় দাও গো বিদায়, এইটুকু শুধু রবে |
আর রবো কি রবো না এত কাছাকাছি, তুমি আছ বলে আমিও তো আছি,
আসুক আড়াল রবে চিরকাল, হৃদয়ের অনুভবে | বেশ তো---

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - প্রফুল্ল ভট্টাচার্য
শিল্পী- ধনঞ্জয় ভট্টাচার্য

বাসরের দীপ আর আকাশের তারাগুলি,
নিবিড় নিশীথে জাগে জ্বলবে
মনে হয় তাকে দেখে স্মরণের ব্যথাগুলি
আমায় মনের কিছু বলবে |
হৃদয় গহন হতে স্বপন কুড়ায়ে লয়ে
সুরের খেয়ালী জাল বুনবো,
তোমার গোপন কথা শুনবো
মুখে রবে হাসি আর, চোখে চোখে চেয়ে শুধু
মন দেওয়া নেওয়া চলবে ||
হয়তো ব্যাকুল হয়ে বাতাসের বাঁশীখানি
সেই ক্ষণে কত সুর ধরবে
তাই শুনে বনছায় না ফোটার বেদনায়
কত ফুল ঝুলিতে যে ধরবে ||
এত যে জেনেছি আমি, মনে হয় আরও
যেন কত যে নিবিড় করে জানবো,
তোমায় আপন বলে মানবো
তবুও কি অকারণে মিলনেরই ফুলমালা
অবহেলা ভরে তুমি দলবে ||

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
শিল্পী - সুবীর সেন

রাত হল নিঝুম ফুলের দু’চোখে ঘুম,
চাঁদ ঐ জেগে রয়
আজ শুধু কথা কয়, রাত হল নিঝুম-----
মন নাই প্রেম নাই আপনারে যেন তাই
কত একা মনে হয় হাওয়া শুধু কথা কয় , রাত হল----
নিবু নিবু হল তারার প্রদীপ গো আপনার সাথে একা একা কথা কই
এই মালা এই ফুল মনে হয় সবই ভুল, আমি যেন কারো নয়
হাওয়া শুধু কথা কয় |  রাত হল---

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর - নচিকেতা ঘোষ
শিল্পী- মান্না দে
ছবি - আনন্দমেলা

আমি উকিল না হ’য়ে যদি কোকিল হতাম
কুহু কুহু কুহু সুরে গান শোনাতাম
আর নথিপত্র যদি ওগো প্রেমপত্র হোতো
প্রেমের সাগরে দোঁহে ডুবে মরতাম  ||
আমি ছিলাম বাজপড়া একটি মরাগাছ
.       নদী হ’য়ে তাকে তুমি বাঁচালে কেন
আর আদালতটা যদি হোতো প্রেমের বৃন্দাবন
প্রেমের খেলায় নাগর হ’য়ে বাঁশী বাজাতাম  ||
গোলাপ তো নয় ছিলাম-আমি একটি ঘেটুফুল
.       ফুলদানিতে তাকে তুমি সাজালে কেন
প্রেম যদি বাঘা ওল আমি যে তেঁতুল
.       রসেরই চাট্ নি তাতে বানালে কেন্
আর গোপিনীরা হোতো যদি মুঁহুরী পিওন
.       তাদের নিয়ে যমুনাতে কেলী করতাম |

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*
কথা- গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার
সুর ও শিল্পী- নির্মলেন্দু চৌধুরী

ঝুনুর ঝুনুর পায় সুন্দরী য়ে যায়,
ইতি উতি চায় সুন্দরী যে যায় |
ও শাড়ীর ভাইজে ভাইজে থাইকা থাইকা
রে যেন বিজুলী চমকায় ||
কাঁচা অঙ্গে ঢেউ উঠেছে যেন রসে টল্ মল,
আহা পদ্মমধু খেয়ে ভ্রমর হয়েছে পাগল
ঈষৎ কটাক্ষে সে যে মন ভুলায় |
আগুন জ্বালা এ রূপেরই এমনতর গুণ
হায়রে দিনদুপুরে ডাকাত প’ল আমি হইলাম খুন |
কাষ্ঠে লোহায় ভাব করে জলে ভাসে দু’জনা  |
চুন বিনা পানে কভু পিরীতি মজে না
জিয়ন্তে মরেছি আমি যম যন্ত্রনায়  |

.          *************************                                                         
সূচিতে . . .    


মিলনসাগর
*