কবি রায় বসন্ত - কবি দুর্গাদাস লাহিড়ী তাঁর বৈষ্ণব-পদলহরী (১৯০৫) গ্রন্থে লিখেছেন, “অনুমান ৮৪০
সালে (৮৪০ বঙ্গাব্দে অর্থাৎ ১৪৩৩ খৃষ্টাব্দে ) ইনি জন্মগ্রহণ করেন। ইঁহার পিতার নাম ভবানন্দ রায়
(মজুমদার) বলিয়া জানা যায়। “বসন্ত সুকুমার” কাব্য ইঁহার প্রধান গ্রন্থ। কেহ কেহ আবার বলেন ইনি
যশোহরেশ্বর প্রতাপাদিত্যের পিতৃব্য ছিলন।”

ভুরশুট পরগণার অবস্থান ছিল বর্তমান হুগলী ও হাওড়া জেলায়। তিনি রায় বসন্ত ভণিতায় পদাবলী রচনা
করেছিলেন।

বারোভুঁইয়াদের মধ্যে প্রমুখ, যশোহরের মহারাজা প্রতাপাদিত্যের ( ১৫৮৪ খৃষ্টাব্দে রাজ্যাভিষেক ) পিতৃব্য
(জ্যাঠামশায়), যাঁকে প্রতাপাদিত্য মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করেছিলেন ১৫৯৪-৯৫ সালে,
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের  
বৌঠাকুরাণীর হাট উপন্যাসের যা ঐতিহাসিক পটভূমিকা ছিল।

এই বসন্ত রায়ও কবি ছিলেন এবং পদ রচনা করতেন। তিনি
রবীন্দ্রনাথের প্রিয় কবিও ছিলেন। রবীন্দ্রনাথ
ঠাকুরের "বসন্তরায়" প্রবন্ধ পড়তে  এখানে ক্লিক করুন . . .।    

সুকুমার সেন তাঁর বাংলা কবিতা সমুচ্চয় গ্রন্থে লিখেছেন যে বসন্তরায় “
গোবিন্দদাস কবিরাজের সুহৃৎ।
নরোত্তম দাসের শিষ্য”।

আমরা
মিলনসাগরে  কবি রায় বসন্তর বৈষ্ণব পদাবলী আগামী প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে পারলে এই
প্রচেষ্টার সার্থকতা।


কবি রায় বসন্তর মূল পাতায় যেতে এখানে ক্লিক করুন।                             
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের "বসন্তরায়" প্রবন্ধ পড়তে এখানে ক্লিক করুন . . .।    
.        


আমাদের ই-মেল -
srimilansengupta@yahoo.co.in     

এই পাতা প্রথম প্রকাশ - ৬.২.২০১৭
প্রথম পরিবর্ধিত সংস্করণ - ২১.৩.২০১৭
১১টি নতুন পদ সহ দ্বিতীয় পরিবর্ধিত সংস্করণ - ২১.৫.২০১৭
...
বৈষ্ণব পদাবলী নিয়ে মিলনসাগরের ভূমিকা     
বৈষ্ণব পদাবলীর "রাগ"      
কৃতজ্ঞতা স্বীকার ও উত্স গ্রন্থাবলী     
মিলনসাগরে কেন বৈষ্ণব পদাবলী ?     
*

এই পাতার উপরে . . .
*

এই পাতার উপরে . . .
*

এই পাতার উপরে . . .
*

এই পাতার উপরে . . .
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের "বসন্তরায়" প্রবন্ধ
পড়তে এখানে ক্লিক করুন . . .।