কবি প্রেমেন্দ্র মিত্রের কবিতা ও গান
যে কোন কবিতার উপর ক্লিক করলেই সেই কবিতাটি আপনার সামনে চলে আসবে।
.
১।
২।
৩।
৪।
৫।
৬।
৭।
৮।
৯।
১০।
১১।
১২।
১৩।
১৪।
১৫।
১৬।
১৭।
১৮।
১৯।
২০।
২১।
২২।
২৩।
২৪।
২৫।
২৬।
২৭।
২৮।
২৯।
৩০।
৩১।
৩২।
৩৩।
৩৪।
৩৫।
৩৬।
৩৭।
৩৮।
৩৯।
৪০।
৪১।
৪২।
৪৩।
৪৪।
৪৫।
৪৬।
৪৭।
৪৮।
৪৯।
৫০।
৫১।
৫২।
৫৩।
৫৪।
৫৫।
৫৬।
৫৭।
৫৮।
৫৯।
৬০।
৬১।
৬২।
৬৩।
৬৪।
৬৫।
৬৬।
৬৭।
৬৮।
৫৯।
৭৯।
৮০।
৮১।
৮২।
৮৩।
৮৪।
৮৫।
৮৬।
৮৭।
৮৮।
৮৯।


৯০।
৯১।
৯২।
৯৩।
৯৪।
৯৫।
৯৬।

৯৭।
৯৮।
৯৯।
১০০।
১০১।
১০২।
১০৩।
১০৪।
১০৫।
১০৬।
১০৭।
১০৮।
১০৯।
কবিতা             গান                         
আজ এই রাস্তায় গান গাইব      
আজ আমি চ’লে যাই     
আজি এই প্রভাতের      
আদ্যিকালের বুড়ি      
আমরা      
আমি কবি যত কামারের     
আর বরষের পথিক-পাখীর      
আরো এক    
উদ্বেলিত যৌবনের সিন্ধুতীরে       
এই ভুবনের মধুর দিনের পথিক যত     
এক আকাশ অন্ধকার      
এস নারী       
এ সুন্দর পৃথিবীরে আমি ভালবাসি     
ওরা ভয় পায়    
কথা      
কবি-নাস্তিক      
কাক ডাকে     
কাগজ বিক্রী       
কাঠের সিঁড়ি     
কালা ধলা ভাই আমার     
কালো দীঘি জল     
খুকুর পুতুল        
ঘরটা একটু অগোছাল     
চীনা তর্জমা      
ছাদে যেওনাক     
জং      
জীবন-বিধাতা আজি      
জীবন-মহাদেবের নৃত্য      
জীবন-শিয়রে বসি      
জোনাকিরা     
ঝড় যেমন ক’রে জানে অরণ্যকে     
ট্রেনের জানলা       
তৃতীয় প্রহরে চাঁদ উঠেছিল     
তোমাকে চিঠি      
দশানন    
দু-পিঠে       
দেখেছি     
দেবতার জন্ম হ’ল    
দ্বার খোল, খোল দ্বার     
নমো নমো নমো     
নিরর্থক     
নীলকন্ঠ     
নীল দিন      
নৌকো     
পঁচিশে বৈশাখ      
পথ     
পাখিদের মন    
পায়ের শব্দ শুনতে পাও     
পোলের ওপর ৫ই মাঘ    
প্রলাপ     
ফেরারী ফৌজ     
ফ্যান       
বইটই      
বিফল নায়ক      
বিরাট সেতু সে    
বেনামী বন্দর      
ভস্মলোচন      
ভাড়াটে কুঠি      
মনে করি ভাল বাসব      
মাটির ঢেলা, মাটির ঢেলা      
মানুষের মানে চাই       
মামলা      
মুখ     
মৃত্যুরে কে মনে রাখে     
যদিও মেঘ চাই      
যদি ফিরে আসি     
যাযাবর হাঁস নীড় বেঁধেছিল     
শত বর্ষ পরে      
শস্য-প্রশস্তি     
শহর     
সাধু     
সাপ     
সার্সীতে জল-সারেঙ বাজে      
সুদূরের আহ্বান      
সূর্য্য-বীজ      
সৃষ্টির প্রথম প্রাতে বিধাতার মনে যে কথাটি ছিল সঙ্গোপনে     
সে কবে আমার মনে     
সেথা তুমি পূর্ণ ছিলে     
হঠাৎ যদি     
হারিয়ে     

গান            
আরও একটু সরে বসতে পার     
এই জীবনের যত মধুর ভুলগুলি     
কে জানে জাল পেতে কে রাখল কবে    
চাঁদ যদি নাহি উঠে, না উঠুক      
চেয়েই বারেক দ্যাখো না      
জানি না কোথায় আছ - রাশিয়া কিংবা রাঁচি     
ঠোঁটের কোণে হাসি বুঝি, নয়ন-কোণে জল      
দাঁড়াও না দোস্ত ! একটু শোন     
নাবিক আমার নোঙর ফেল    
নীল! নীল! সবুজের ছোঁয়া কিনা তা বুঝি না      
ফেলে যাবে চলে জানি      
যদি ভালো না লাগে তো দিয়োনা মন     
যেতে যেতে ফিরে চাই       
শরীরখানা গড়ো আগে শরীর গড়ো       
শহরে সবই বিকায়       
সে তো ভাসায় ফুল জলে, আমার ভাসে কূল লো          
হই যদি বড়লোক মস্ত      
হাওয়া নয়, ও তো হাওয়া নয়       
হাতেতে হাত মেলাও     
হারা--মরু নদী, শ্রান্ত দিনের পাখি      



মিলনসাগর
*